কাল থেকে লেনদেন শুরু কুইন সাউথ টেক্সটাইলের

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: দেশের উভয় স্টক এক্সচেঞ্জে আগামীকাল ১৩  মার্চ থেকে শেয়ার লেনদেন শুরু করবে বস্ত্র খাতের কুইন সাউথ টেক্সটাইল মিলস লিমিটেড। ওইদিন সকাল সাড়ে ১০টায় আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হবে এ কোম্পানির শেয়ার লেনদেন। ডিএসই সূ‌ত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

জানা যায়, আগামীকাল ১৩ মার্চ, মঙ্গলবার থেকে কোম্পানিটি পুঁজিবাজারে ‘এন’ ক্যাটাগরিতে লেনদেন শুরু করবে। উভয় স্টক এক্সচেঞ্জে কোম্পানিটির ট্রেডিং কোড হবে “QUEENSOUTH”। ডিএসইতে কোম্পানি কোড হবে ১৭৪৭৬ আর সিএসইতে কোম্পানি কোড হবে ১২০৬৪।

এর আগে গত মাসের ২৮ ফেব্রুয়ারি আইপিও লটারিতে বরাদ্দ পাওয়া শেয়ার সিডিবিএলের মাধ্যমে বিনিয়োগকারীদের নিজ নিজ বিও হিসাবে জমা হয়েছে।

জানা যায়, গত ১লা ফেব্রুয়ারি কোম্পানিটি প্রাথমিক গণ প্রস্তাবের (আইপিও) আইপিও ড্র সম্পন্ন করে। কোম্পানির আইপিও আবেদনে ৩৭.৩১ গুন বেশি জমা পড়েছে। আইপিওতে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ৬২ গুণ এবং বিদেশী বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ৯৭ হাজার আবেদন জমা পড়েছে। কোম্পানিটি পুঁজিবাজারে ১.৫০ কোটি সাধারণ শেয়ারের বিপরীতে ১৫ কোটি টাকা উত্তোলন করবে। এই ১৫ কোটি টাকার বিপরীতে কোম্পানিটির  আইপিওতে মোট ৬৫২ কোটি টাকার আবেদন জমা পড়েছে।

বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) ৬১৫তম কমিশন সভায় কোম্পানিটির আইপিও অনুমোদন দেওয়া হয়। এরপর গত ৭ জানুয়ারি কোম্পানিটির আইপিও আবেদন শুরু হয়েছিল। আইপিও আবেদন প্রক্রিয়া ১৫ জানুয়ারি শেষ হয়।

কোম্পানিটি পুঁজিবাজার থেকে ১.৫০ কোটি সাধারণ শেয়ার ছেড়ে ১৫ কোটি টাকা সংগ্রহ করেছে। আর এ লক্ষ্যে অভিহিত মূল্যে তথা ১০ টাকা দরে শেয়ার ইস্যু করেছে কোম্পানিটি। উত্তোলিত এ টাকা দিয়ে কোম্পানিটি ওয়ারহাউজ নির্মাণ, ম্যাশিনারিজ ক্রয়, কারখানা আধুনিকায়ন, ব্যাংক ঋণ পরিশোধ এবং আইপিও খাতে ব্যয় করবে কোম্পানিটি।

কোম্পানি সূত্রে জানা যায়, ২০১৭-২০১৮ হিসাব বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে অর্থাৎ অক্টোবর ২০১৭ থেকে ডিসেম্বর ২০১৭ পর্যন্ত ইপিএস হয়েছে ০.৪৩ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে ছিল ০.৩৪ টাকা। ইপিএস বেড়েছে ২৬.৪৭ শতাংশ।

এই সময়ে কোম্পানির পণ্য বিক্রি বাবদ মোট আয় হয়েছে ৯১ কোটি ৮৭ লাখ ৭৪ হাজার টাকা। এর আগের বছর একই সময়ে এই আয় ছিল ৭৮ কোটি ২৬ লাখ ৮২ হাজার টাকা।

এদিকে ২০১৭-২০১৮ অর্থবছরের অর্ধবার্ষিকে জুলাই ২০১৭ থেকে ডিসেম্বর ২০১৭ পর্যন্ত ইপিএস হয়েছে ০.৮৯ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে ছিল ০.৮৬ টাকা। আলোচিত সময়ের ব্যবধানে ইপিএস বেড়েছে।

এই সময়ে কোম্পানির পণ্য বিক্রি বাবদ মোট আয় হয়েছে ১৮৩ কোটি ৯৭ লাখ ৪৩ হাজার টাকা। এর আগের বছর একই সময়ে এই আয় ছিল ১৬৭ কোটি ২ লাখ ৯৩ হাজার টাকা।

এছাড়া অর্ধবার্ষিকে শেয়ার প্রতি প্রকৃত সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ১৮.০৭ টাকা। যা ৩০ জুন, ২০১৭ শেষে ছিল ১৭.১৮ টাকা।

অর্ধবার্ষিকে শেয়ার প্রতি নগদ কার্যকর প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ০.৫১ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে ছিল ২.০৭ টাকা।

প্রথম প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর) শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৪৬ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে ছিল ০.৫২ টাকা। এছাড়া আলোচিত সময়ে শেয়ার প্রতি প্রকৃত সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ১৭.৬৪ টাকা এবং শেয়ার প্রতি নগদ কার্যকর প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ০.২০ টাকা।

এদিকে ৩০ জুন, ২০১৭ সমাপ্ত বছরের নিরীক্ষা প্রতিবেদনে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ১.৮৫ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে ছিল ১.৭৭ টাকা। এছাড়া আলোচিত সময়ে এনএভি হয়েছে ১৭.১৮ টাকা এবং এনওসিএফপিএস হয়েছে ১.২৮ টাকা।

উল্লেখ্য, কোম্পানিটির ইস্যু ম্যানেজার হিসেবে কাজ করছে আলফা ক্যাপিটাল ম্যানেজমেন্ট লিমিটেড।

শেয়ারবাজারনিউজ/এম.আর

আপনার মন্তব্য

Top