ন্যূনতম শেয়ার ধারনে ব্যর্থদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে বিএসইসির নির্দেশ

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত যেসব কোম্পানির উদ্যোক্তা পরিচালকদের সম্মিলিতভাবে ন্যূনতম ৩০ শতাংশ শেয়ার ধারণ করতে ব্যর্থ তাদের প্রতি পদক্ষেপ নিতে নির্দেশনা জারি করেছে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। দেশের উভয় স্টক এক্সচেঞ্জ ও সেন্ট্রাল ডিপোজিটরি বাংলাদেশ লিমিটেডকে (সিডিবিএল) দ্রুত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে নির্দেশনা দিয়েছে সংস্থাটি।

বিএসইসির চেয়ারম্যান ড. এম খায়রুল হোসেন স্বাক্ষরিত নির্দেশনাটি গত ১১ মার্চ দুই স্টক এক্সচেঞ্জ ও সিডিবিএলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক বরাবর পাঠানো হয়েছে। এর আগে এক নির্দেশনায় ন্যূনতম শেয়ার ধারণে ব্যর্থ কোম্পানির পরিচালকদের শেয়ার ব্লক মার্কেটে কেনা-বেচায় কমিশনের অনুমোদন নিতে বলা হয়।

গত ৬২২তম কমিশন সভায় তালিকাভুক্ত কোম্পানির পরিচালকদের প্রত্যেকের (স্বতন্ত্র পরিচালক ব্যতীত) পরিশোধিত মূলধনের দুই শতাংশের নিচে শেয়ার ধারণকারীদের শাস্তির আওতায় আনার উদ্যোগ নেওয়া হয়। এছাড়াও তালিকাভুক্ত কোম্পানিগুলোর ২১৯ জন পরিচালক ন্যূনতম শেয়ার ধারণে ব্যর্থ। অন্যদিকে সম্মিলিতভাবে ৩০ শতাংশ শেয়ার উদ্যোক্তা-পরিচালকদের নেই ৭৮টি কোম্পানির। তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় ওই কমিশন সভায়।

 

বিএসইসি সূত্রে জানা গেছে, যেসব কোম্পানি বিএসইসির নির্দেশনাকে উপেক্ষা করছে ক্রমান্বয়ে এনফোর্সমেন্ট বিভাগের মাধ্যমে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। এ বিষয়ে কোনো শিথলতা আরোপ করা হবে না বলে জানা গেছে।

উল্লেখ্য, ২০১১ সালের ২২ নভেম্বর কোম্পানির পরিচালকদের ন্যূনতম শেয়ার ধারণ-সংক্রান্ত একটি নির্দেশনা জারি করে বিএসইসি। ওই নির্দেশনায় বলা হয়, পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত সব কোম্পানির উদ্যোক্তা বা পরিচালককে নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের ন্যূনতম দুই শতাংশ শেয়ার ধারণ করতে হবে। একই সঙ্গে উদ্যোক্তা-পরিচালকদের সম্মিলিতভাবে ৩০ শতাংশ শেয়ার ধারণে বাধ্যবাধকতা আরোপ করা হয় ওই নির্দেশনায়।

শেয়ারবাজারনিউজ/এম.আর

আপনার মন্তব্য

*

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top