জিম্মিদের বাঁচাতে জীবন দিলেন পুলিশ কর্মকর্তা

শেয়ারবাজার ডেস্ক: ফ্রান্সের লে. কর্নেল অ্যারোন্দ বেল্ট্রেম নামের এক সাহসী পুলিশ কর্মকর্তা একজন জিম্মির বিনিময়ে নিজেকে বন্দুকধারীর হাতে তুলে দিয়েছেন। ঘটনাটি ঘটেছিল ফ্রান্সের ত্রেবেসে একটি সুপার মার্কেটে আইএসের হাতে নিরীহ মানুষের জিম্মিকে কেন্দ্র করে। জিম্মিদের উদ্ধারে নিজের জীবনের বিনিময়ে বহু জিম্মির জীবন বাঁচিয়ে নিজেই মারা গেলেন এই সাহসী পুলিশ কর্মকর্তা। খবর বিবিসির।

ফ্রান্সের স্থানীয় সময় শুক্রবার এই পুলিশ কর্মকর্তার মৃত্যু হয়। ফ্রান্সের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জেরার কুলুম্ব এক টুইট বার্তায় এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেছেন, ‘দেশের জন্য তিনি জীবন উৎসর্গ করলেন। ফ্রান্স তার বীরত্ব ও ত্যাগকে কখনো ভুলবে না।’

বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, শুক্রবার ফ্রান্সের দক্ষিণাঞ্চলীয় শহরের এ মার্কেটে জিম্মির ঘটনা শোনার পর পুলিশ সেখানে ছুটে যায়। মার্কেটের ভেতর থেকে কয়েকজন জিম্মিকে উদ্ধার করে পুলিশ। কিন্তু এক পর্যায়ে রেদোয়ানি লাকদিম নামে ওই বন্দুকধারীর দাবির কারণে উদ্ধারকাজ ব্যাহত হয়। তখন একজন নারী জিম্মির মুক্তির বিনিময়ে পুলিশ অফিসার লে. কর্নেল অ্যারোন্দ বেল্ট্রেম ভেতরে যান। এসময় কৌশলে তিনি তার মোবাইল ফোনে কল দিয়ে রাখেন বাইরে থাকা অপর এক পুলিশ সদস্যের ফোনে। তার উদ্দেশ্য ছিল ভেতরে কী হচ্ছে তা যেন বাইরের পুলিশ সদস্যরা বুঝতে পারেন।

তার এ কৌশল শেষ পর্যন্ত কাজে দেয়। ওই ফোন লাইনে গুলির শব্দ পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে পুলিশ সদস্যরা পরিস্থিতির নিয়ন্ত্রণ নিতে মার্কেটের ভেতরে ঢুকে পড়েন এবং পুলিশের গুলিতে বন্দুকধারীর মৃত্যু হয়। এসময় অ্যারোন্দ বেল্ট্রেম গুরুতর আহত হন। তাকে তাৎক্ষণিকভাবে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

ত্রেবেসে ওই সুপার মার্কেটে বন্দুকধারীর গুলিতে ৩ জন নিহত হন। পরে পুলিশের গুলিতে বন্দুকধারীও মারা যান। তবে সিএনএনের খবরে বলা হয়েছে, হামলাকারীসহ নিহতের সংখ্যা তিন।

এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও দুজন, যাদের একজন পুলিশ সদস্য এবং অপর জন এক নারী। জিম্মিকারী রেদোয়ানি লাকদিম মার্কেটে ঢুকে প্যারিস হামলায় জড়িত থাকার অভিযোগে বিচারধীন সালাহ আব্দুস সালামের মুক্তির দাবি জানায়। বন্দুকধারীর নাম রেদোয়ানি লাকদিম। তিনি মরক্কো বংশোদ্ভূত ফরাসি নাগরিক।

সুপার মার্কেট ঢোকার আগে, ১৫ মিনিট দূরত্বে, কার্কাসোঁয়ে শহরে গাড়ি থেকে বন্দুকধারী পুলিশের ওপর অন্তত ৬ রাউন্ড গুলি করে। এতে আহত হন এক পুলিশকর্মী।

 

শেয়ারবাজারনিউজ/ম.সা

আপনার মন্তব্য

*

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top