চুল রং করার প্রাকৃতিক উপায়

শেয়ারবাজার ডেস্ক: চুলে রং করাতে হলে আমাদের বিভিন্ন কেমিক্যাল ব্যবহার করে থাকি। যা চুলের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর। আর ব্যয়বহুলও বটে। তবে আপনি চাইলে ঘরোয়া উপায়েও আপনার চুলের রং বদলে ফেলতে পারেন। এতে কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই। আর রং হওয়ার পাশাপাশি আপনার চুলও থাকবে স্বাস্থ্যোজ্জ্বল। আসুন জেনে নেয়া যাক সে উপায়-

মেহেদি পাতাঃ

চুলের রঙ করতে মেহেদি পাতার জুড়ি মেলা ভার। বাজারের কম-বেশি প্রায় সব দোকানেই মেহেদির টিউব পাওয়া যায়। টাকটা মেহেদি পাতাও বাজার থেকে কিনতে পাওয়া যায় বাজারে। মেহেদি পাতা কেবল আপনার চুলের রঙ ফিরিয়ে আনতেই সাহায্য করে না, একইসঙ্গে চুলের আর্দ্রতা ফিরিয়ে আনতেও ভূমিকা রাখে।

দারুচিনি ও লবঙ্গঃ

চুলে গাঢ় বাদামী রং করতে চাইলে দারুচিনি ও লবঙ্গ ব্যবহার করুন। এক চা চামচ দারুচিনি ও এক চা চামচ লবঙ্গ একসঙ্গে চুলায় পানির মধ্যে গরম করুন। এক ঘণ্টা পর চুলা থেকে নামিয়ে ঠান্ডা করুন। শ্যাম্পু করার পর এই পানি দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন। ২০ মিনিট পর সাধারণ পানি দিয়ে চুল ধুয়ে নিন।

জবা ফুলঃ

প্রাকৃতিকভাবে চুলের রঙ করতে ব্যবহার করতে পারেন জবা ফুলও। এজন্য প্রথমে জবা পরিমাণমতো পানিতে ফুটিয়ে ঠাণ্ডা করুন। পরে আপনার চুলে লাগিয়ে কিছুক্ষণ পর পরিষ্কার পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। জবা চুলের রঙ করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। একইসঙ্গে চুল ও মাথার ত্বকের জন্য প্রয়োজনীয় পুষ্টির জোগান দেয় জবা।

ব্লাক টি ও চেরিঃ

চুলে রঙ করার সবচেয়ে কার্যকর উপায় হলো ব্লাক টি’ এর ব্যবহার। পরিমাণমতো পানিতে ব্লাক টি দিয়ে ফুটিয়ে নিন। চুলে বেশি রঙ আনতে চাইলে এর সঙ্গে চেরি গাছের বাকলও মেশাতে পারেন। এবার মিশ্রণটি ঠাণ্ডা করে চুলে ভালোভাবে লাগিয়ে নিন। চুলের রঙ একটি নির্দিষ্ট পর্যায়ে না আসা পর্যন্ত মিশ্রনটি বার বার চুলে লাগান।

লেবুঃ

সবচেয়ে সহজলভ্য হেয়ার লাইটার হল লেবু। একটি পাত্রে সম পরিমাণে লেবুর রস এবং পানি মিশিয়ে নিন। এবার চুলের গোছা আলদা করে নিয়ে চুলে লাগিয়ে নিন। তারপর অ্যালুমিনিয়াম ফয়েল দিয়ে চুল ঢেকে রোদে বসে থাকুন। চুল শুকিয়ে গেলে শ্যাম্পু করে ফেলুন। এভাবে ২-৩ বার করুন। দেখবেন চুলে একটি সুন্দর রং চলে এসেছে।

শেয়ারবাজারনিউজ/মু

আপনার মন্তব্য

Top