দরপতনের প্রতিবাদে রাস্তায় বিনিয়োগকারীরা

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: চলতি বছরের শুরু থেকেই পুঁজিবাজারে কালো ছায়া বিরাজ করছে। বারবার চেষ্টা করলেও মাথা তুলেই দাঁড়াতে পারছে না পুঁজিবাজার। একদিন ভালোতো পরের দু-তিন দিন মন্দ। এভাবে চলতে চলতে সূচক সাড়ে ৫ হাজারের নিচে নেমে এসেছে। ৪ লাখ ২০ হাজার কোটি টাকার বাজার মূলধন নেমে এসেছে ৩ লাখ ৮৮ হাজার কোটিতে। দৈনিক লেনদেনের চিত্রতো আরো ভয়াবহ। প্রতিনিয়তই পুঁজি হারাচ্ছেন বিনিয়োগকারীরা।

অব্যাহত দরপতনের প্রতিবাদে চলতি মাসের বেশিরভাগ সময়ই ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) সামনে মানববন্ধন,বিক্ষোভ করেছেন বিনিয়োগকারীরা। বাজারকে স্থিতিশীল করতে বারবার নিয়ন্ত্রক সংস্থার দৃষ্টি কামনা করলেও এ বিষয়ে সংস্থাটির পক্ষ থেকে কোনো বার্তা দেয়া হয়নি। সর্বশেষ ডিএসই’র ব্রোকার্স অ্যাসোসিয়েশনের (ডিবিএ) মাধ্যমে পুঁজিবাজারে ব্যাংক এক্সপোজার ইস্যুতে সাংবাদিকদের ইতিবাচক খবর দিলেও কোনো লাভ হয়নি। আজ ২৭ মার্চ ফের পুঁজিবাজারে ব্যাপক দরপতন হয়েছে। এতে অতিষ্ঠ হয়ে ডিএসই’র সামনে রাস্তায় নেমে এসেছেন বিনিয়োগকারীরা। মানববন্ধন আর বিক্ষোভের মাধ্যমে বাজারকে স্থিতিশীল করতে সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণের পাশাপাশি যারা বাজারকে নিয়ন্ত্রণ করতে ব্যর্থ তাদের পদত্যাগ দাবি করেছেন বিনিয়োগকারীরা।

এ ব্যাপারে বাংলাদেশ পুঁজিবাজার বিনিয়োগকারী ঐক্য পরিষদের সভাপতি মিজান-উর-রশিদ চৌধুরী বলেছেন, পুঁজিবাজারে অব্যাহত দরপতনে নি:স্ব হয়ে পড়ছেন বিনিয়োগকারীরা। ফান্ডামেন্টাল, অ্যানালাইসিস, বিনিয়োগ শিক্ষা কোনো কাজে আসছে না। সামগ্রিক পুঁজিবাজার ভালো না থাকলে সবাই ক্ষতিগ্রস্ত হয়। বিনিয়োগকারীদের পক্ষ থেকে বাজারকে গতিশীল করতে নিয়ন্ত্রক সংস্থার সুদৃষ্টি কামনা করলেও তারা বাজারের স্বার্থে  কাজ করছে না। বিনিয়োগকারীদের স্বার্থে নয় বরং কতিপয় মহলকে বিশেষ সুবিধা দিতে বিএসইসি কাজ করছে বলে জানান তিনি।

তিনি আরো বলেন, ২০১০-২০১১ সালে ধসে যেমন আমরা আন্দোলন করে বিএসইসি পুন:গঠন করিয়েছি। তেমনি আবারো বর্তমান বিএসইসিকে পুন:গঠনের দাবি জানাচ্ছি। এখানে দক্ষ ও বাজার বান্ধব লোকবল দরকার। পুঁজিবাজারকে স্থিতিশীল করতে অনতিবিলম্বে পদক্ষেপ নিতে সরকারের আহবান জানিয়েছেন ঐক্য পরিষদের সভাপতি।

 

শেয়ারবাজারনিউজ/ম.সা

আপনার মন্তব্য

*

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top