শেয়ার কেলেঙ্কারি মামলায় খালাস পাওয়া ৮ আসামীকে আত্মসমর্পণের নির্দেশ

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: ১৯৯৬ সালের শেয়ার কেলেঙ্কারির ঘটনায় করা দুই মামলায় খালাস পাওয়া দুটি প্রতিষ্ঠানের ৮ পরিচালককে আদেশ পাওয়ার ৩০ দিনের মধ্যে বিচারিক আদালতে আত্মসমর্পণ করার নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। পাশাপাশি তারা জামিন চাইলে তা বিবেচনা করতেও বলা হয়েছে। বিচারিক আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে বাংলাদেশ সিকিউরিটি এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) করা আপিল শুনানির জন্য গ্রহণ করে এ আদেশ দেওয়া হয়।

আজ মঙ্গলবার বিচারপতি মো. রইস উদ্দিনের একক বেঞ্চ এ আদেশ দেন। পাশাপাশি বিচারিক আদালতের মামলার নথিপত্র তলব করা হয়েছে। আদালতে সিকিউরিটি এক্সচেঞ্জ কমিশনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী এ এম মাসুম। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল শফিউল বশর ভান্ডারি ও সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল সৈয়দা সাবিনা আহমেদ।

অভিযুক্ত ব্যক্তিরা হচ্ছেন- হেমায়েত উদ্দিন আহমেদ, মোস্তাক আহমেদ সাদেক, সৈয়দ মাহবুব মুর্শেদ, শরিফ আতাউর রহমান, আহমেদ ইকবাল হাসান, এম জে আজম চৌধুরী, শহীদুল্লাহ এবং প্রফেসর মাহবুব আহমেদ।

এর আগে ফেব্রুয়ারির ১ তারিখে ১৯৯৬ সালের মহাধসে আলোচিত শেয়ার কেলেঙ্কারির দুই মামলায় ৮ আসামি এবং দুই কোম্পানিকে বেকসুর খালাস দিয়েছিল পুঁজিবাজার মামলার দ্রুত নিষ্পত্তির লক্ষ্যে গঠিত স্পেশাল ট্রাইব্যুনাল।

মামলাগুলো: এইচএমএমএস ফাইন্যান্সিয়াল কনসালটেন্সি অ্যান্ড সিকিউরিটিজের শেয়ার কারসাজি এবং সিকিউরিটিজ কনসালটেন্টস লিমিটেডের শেয়ার কারসাজি।

এইচএমএমএস ফাইন্যান্সিয়াল কনসালটেন্সি অ্যান্ড সিকিউরিটিজের শেয়ার কারসাজি মামলা থেকে বেকসুর খালাস পেয়েছিলেন ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) সাবেক চেয়ারম্যান হেমায়েত উদ্দিন আহমেদ, ডিএসই ব্রোকার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মোস্তাক আহমেদ সাদেক, ডিএসইর সদস্য সৈয়দ মাহবুব মুর্শেদ, ডিএসইর বর্তমান পরিচালক শরিফ আতাউর রহমান এবং সাবেক চেয়ারম্যান আহমেদ ইকবাল হাসান বেকসুর খালাস পেয়েছিলেন।

সিকিউরিটিজ কনসালটেন্টস লিমিটেডের শেয়ার কারসাজি মামলায় এম জে আজম চৌধুরী, শহীদুল্লাহ ও প্রফেসর মাহবুব আহমেদ খালাস পেয়েছিলেন। একই সঙ্গে ২ মামলা থেকে এইচএমএমএস ফাইন্যান্সিয়াল কনসালটেন্সি অ্যান্ড সিকিউরিটিজ ও সিকিউরিটিজ কনসালটেন্টস লিমিটেড নামে ওই ২ প্রতিষ্ঠানকেও অব্যাহতি দেওয়া হয়েছিল।

 

শেয়ারবাজারনিউজ/আ

আপনার মন্তব্য

Top