অনুসন্ধানী রিপোর্ট এর সকল সংবাদ

ছয় মিউচ্যুয়াল ফান্ড থেকে বিনিয়োগ প্রত্যাহার চায় স্পন্সররা

ছয় মিউচ্যুয়াল ফান্ড থেকে বিনিয়োগ প্রত্যাহার চায় স্পন্সররা

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: পুঁজিবাজারে মেয়াদি মিউচ্যুয়াল ফান্ডগুলোর মধ্যে এলআর গ্লোবাল অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট পরিচালিত সবগুলো ফান্ডই ক্রমাগত লোকসান দিচ্ছে। পরিণতিতে এসব ফান্ড থেকে বিনিয়োগকারীরা আশানুরুপ ডিভিডেন্ড পাচ্ছে না। এছাড়া সম্পদ ব্যবস্থাপক এলআর গ্লোবালের দুর্নীতি, অনিয়ম, অদক্ষতা ও অব্যবস্থাপনার জন্য ছয় মিউচ্যুয়াল ফান্ড থেকে বিনিয়োগ প্রত্যাহার করার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে চাচ্ছেন ফান্ডগুলোর স্পন্সররা। তথ্যানুসন্ধানে জানা যায়, এলআর গ্লোবাল

মিউচ্যুয়াল ফান্ডে বিনিয়োগকারীর লোকসান প্রায় সাড়ে ৩০০ কোটি টাকা

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত মেয়াদি ৩৩টি মিউচ্যুয়াল ফান্ডে বিনিয়োগ করে ৩৪৮ কোটি ৫৭ লাখ টাকা লোকসানে পড়েছে সংশ্লিষ্ট বিনিয়োগকারীরা। ফান্ডগুলোর নীট সম্পদ মূল্য (এনএভি) ক্রয় মূল্যের তুলনায় বর্তমান বাজার মূল্য কমে যাওয়ায় এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা। এই ৩৩টি ফান্ডের মধ্যে ক্রয় মূল্যের তুলনায় বাজার মূল্যে এনএভি কমেছে ২৮টি ফান্ডের। এই হিসেবে

যে কারণে বীমায় ডিভিডেন্ড কমেছে

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: রাজনৈতিক অস্থিরতায় আমদানি-রপ্তানি কমে যাওয়ার পাশাপাশি বীমা বিষয়ে জনসচেতনতার উন্নতি না হওয়া এবং বীমা নিয়ন্ত্রণকারী কর্তৃপক্ষ আইডিআরএ’র সমন্বয়হীন সিদ্ধান্তের কারণে ২০১৪ হিসাব বছরে নন-লাইফ বীমা কোম্পানিগুলো ভাল ব্যবসা করতে পারেনি। আর এর প্রভাবে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ৬২ শতাংশ কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) কমেছে। পরিণতিতে ৪১ শতাংশ কোম্পানি ডিভিডেন্ড কমাতে বাধ্য হয়েছে। অথচ ২০১৩

৬ কোম্পানির রমরমা ব্যবসা: বঞ্চিত বিনিয়োগকারীরা

শেয়ারবাজার রিপোর্টঃ মুনাফায় থাকা সত্বেও কোনো প্রকার ডিভিডেন্ড না দিয়ে বিনিয়োগকারীদের বঞ্চিত করে চলেছে পুঁজিবাজারে তলিকাভুক্ত ৬ কোম্পানি। বিনিয়োগকারীদের টাকায় ব্যবসা পরিচালনার মাধ্যমে মুনাফা করলেও তাদেরই অবহেলিত করে রাখা হচ্ছে। অন্যদিকে পরিচালনা পর্ষদ কোম্পানির টাকায় আরাম-আয়েশে জীবন-যাপন করছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। তথ্যানুসন্ধানে জানা যায়, রংপুর ডেইরী এন্ড ফুড প্রোডাক্টস লিমিটেড, বিকন ফার্মা, ড্যাফোডিল কম্পিউটার, আরএন

মূল্য সংবেদনশীল তথ্য গোপন করে ড্যাফোডিলের জমজমাট ব্যবসা !

রেজাউল করিম রকি: পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত তথ্য ও প্রযুক্তি খাতের কোম্পানি ড্যাফোডিল কম্পিউটার্স মূল্য সংবেদনশীল তথ্য গোপন করে জমজমাট ব্যবসা করে যাচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। অথচ ধারাবাহিক মুনাফায় থাকলেও টানা দুই বছর শেয়ারহোল্ডারদের কোন ডিভিডেন্ড দিচ্ছে না। এ বিষয়ে কোম্পানির পক্ষ থেকে জানানো হয়, সহযোগী (সাবসিডিয়ারি) প্রতিষ্ঠানে পুনরায় বিনিয়োগ করার কারণে তারল্য সঙ্কট দেখা দেয়। তাই পরপর

অর্থ আত্মসাৎ করে উধাও: বিএসইসির দায়সারা জবাব

শেয়ারবাজার রিপোর্ট : পুঁজিবাজার থেকে অর্থ আত্মসাৎ করে পালিয়ে রয়েছে বেশকিছু কোম্পানির পরিচালক। এসব কোম্পানির অস্তিত্ব বলতে কিছুই নেই। গোপনে কোম্পানি বিক্রি করে লাপাত্তা রয়েছে অনেক পরিচালক। আবার ভুল ঠিকানা ও ফোন নাম্বার দিয়ে মানুষের সঙ্গে প্রতারণা করে চলেছে অনেকে। অন্যদিকে কারখানা ভাড়া দিয়ে নিজেদের পকেট টিকিয়ে রাখলেও পুঁজিবাজারের প্রতি ভ্রুক্ষেপ করছে না এমনও কিছু

অনিয়মের আরেক নাম গ্লোবাল ইন্স্যুরেন্স

শেয়ারবাজার রিপোর্টঃ অনিয়মে জর্জরিত হয়ে পড়েছে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত বীমা খাতের সাধারণ বীমা কোম্পানি গ্লোবাল ইন্স্যুরেন্স লিমিটেড। মূলধন ঘাটতি সহ ২০১৪ সাল থেকে কোম্পানিটি প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ছাড়াই ব্যবসায়িক কার্যক্রম পরিচালনা করছে। এছাড়া কোম্পানিটি করপোরেট গভর্ন্যান্স গাইডলাইন (সিজিজি) ভঙ্গ করলেও পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এন্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) পক্ষ থেকে কোন ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। মূলধন ঘাটতি

প্রশ্নবিদ্ধ তসরিফার মূলধন বৃদ্ধি (পর্ব-৪)

শেয়ারবাজার রিপোর্ট : বস্ত্রখাতের তসরিফা ইন্ডাষ্ট্রিজ লিমিটেড পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্তির আগে পরিশোধিত মূলধন অনেক দ্রুত বৃদ্ধি করেছে। এমনকি একইদিনে মূলধন দুইবার বাড়িয়ে দেখানো হয়েছে।তালিকাভুক্তির অনুমোদনের আগ মুহূর্তে এতো দ্রুত মূলধন বৃদ্ধি করা প্রশ্নবিদ্ধ মনে করছেন বাজার সংশ্লিষ্টরা। তথ্যানুসন্ধানে জানা যায়, মাত্র ৫ লাখ টাকা পরিশোধিত মূলধন দিয়ে ব্যবসা শুরু করে তসরিফা ইন্ডাষ্ট্রিজ। ২০০৬ সালের ৭ আগস্ট

নিজস্ব পাওয়ার প্লান্ট ছাড়া তসরিফার ভবিষ্যত কতদূর? (পর্ব-৩)

শেয়ারবাজার রিপোর্ট : পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত বস্ত্রখাতের বেশিরভাগ কোম্পানির ফ্যাক্টরীতে নিজস্ব পাওয়ার প্লান্ট রয়েছে। বিদ্যুৎ সমস্যায় জর্জরিত এদেশে উৎপাদন কোনোরুপ বাধাগ্রস্ত যেন না হয় সেজন্য নিজস্ব পাওয়ার প্লান্ট রাখা হয়। কিন্তু সদ্য তালিকাভুক্তির অনুমোদন পাওয়া বস্ত্রখাতের তসরিফা ইন্ডাষ্ট্রিজ লিমিটেডের ফ্যাক্টরীতে নিজস্ব পাওয়ার প্লান্ট নেই। ঢাকা ইলেট্রিক পাওয়ার সাপ্লাই কোম্পানি (ডেসকো) থেকে এ কোম্পানির বিদ্যুৎ সরবরাহের ব্যবস্থা

সুশাসন ছাড়া চলছে তসরিফা ইন্ডাষ্ট্রিজ (পর্ব-২)

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: সিকিউরিটিজ আইনের কোনো রকম তোয়াক্কা করছে না তসরিফা ইন্ডাষ্ট্রিজ লিমিটেড। করপোরেট গভর্নেন্স গাইডলাইন (সিজিজি) প্রতিটি কোম্পানিকে বাধ্যতামূলকভাবে পরিপালনের নির্দেশনা থাকলেও এ কোম্পানি তা করছে না। প্রতি ৫ জন পরিচালকের একজন স্বাধীন পরিচালক থাকার বিধান থাকলেও এ কোম্পানির কোনো স্বাধীন পরিচালক নেই। পরিচালকরা নিজেদের মধ্যেই কোম্পানির সার্বিক ব্যবস্থাপনা কার্য সম্পাদন করছে বলে জানা গেছে।

Top