অনুসন্ধানী রিপোর্ট এর সকল সংবাদ

৬৫ কোম্পানির ইপিএসে গড়মিল

৬৫ কোম্পানির ইপিএসে গড়মিল

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: ইতিমধ্যে দেশের শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত শতাধিক কোম্পানি তাদের ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৬ সমাপ্ত তৃতীয় প্রান্তিকের অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। এর মধ্যে ৬৫টি কোম্পানির ইপিএসে গড়মিল খুজে পেয়েছে দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই)। যে কারণে এসব কোম্পানির প্রোফাইলের প্রান্তিক প্রতিবেদনে লাল চিহ্ন দেয়া হয়েছে। যেসব কোম্পানির ইপিএসে গড়মিল রয়েছে সেগুলো হলো : আইপিডিসি, ব্র্যাক ব্যাংক, ইসলামিক

৩৩ হাজার কোটি টাকা ঋণের তলে ১১ ব্যাংকের পরিচালক!

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: প্রভাব খাটিয়ে প্রায় ৩৩ হাজার কোটি টাকা ঋণ একে অপরের সঙ্গে ভাগাভাগি করে নিয়েছেন পরিচালকরা। পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ১১ ব্যাংকের পরিচালক নিজ নিজ ব্যাংক থেকে এ ঋণ ভাগাভাগি করে নিয়েছেন। বাংলাদেশ ব্যাংক সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। সূত্র জানায়, ব্যাংক এশিয়া প্রায় ৪ হাজার ১৭৮ কোটি টাকা, ন্যাশনাল ব্যাংক প্রায় ৪ হাজার ৮৯৩ কোটি

শেয়ারবাজারে ১০ কোম্পানির বিনিয়োগ এক হাজার ৬৯৪ কোটি টাকা

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ১০ জীবন বীমা কোম্পানি সেকেন্ডারি মার্কেটে মোট এক হাজার ৬৯৩ কোটি ৩৭ লাখ ৭৭ হাজার টাকার শেয়ার কিনেছে। বর্তমান বাজার দরে যার মূল্য দাঁড়িয়েছে এক হাজার ৭৮০ কোটি ৭৯ লাখ ৭৮ হাজার টাকা। অর্থাৎ শেয়ারবাজারে বিনিয়োগ করে এ ১০ কোম্পানি ৮৭ কোটি ৪২ লাখ টাকা লোকসানে রয়েছে। তবে এ ১০ কোম্পানির

আইপিও অনুমোদনের প্রক্রিয়ায় ৯ কোম্পানি

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হতে আসছে ৯ কোম্পানি।  ইতিমধ্যে কোম্পানিগুলো বিভিন্ন ইস্যু ম্যানেজারের মাধ্যমে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনে (বিএসইসি) আবেদন করেছে। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। সূত্র মতে,  ৯ কোম্পানির মধ্যে ৪ কোম্পানি বুক বিল্ডিং পদ্ধতিতে আর বাকী ৫ কোম্পানি অভিহিত মূল্যে বাজারে আসতে চায়। কোম্পানিগুলো হলো-

কারসাজির উৎস গ্রুপ অব ইন্ডাষ্ট্রিজ

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: পুঁজিবাজারে কারসাজি করে বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে অর্থ হাতিয়ে নেয়ার অন্যতম উৎস হচ্ছে গ্রুপ অব ইন্ডাষ্ট্রিজ। গ্রুপ অব ইন্ডাষ্ট্রিজের বিভিন্ন কোম্পানিকে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত করে বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ইতিমধ্যে হাতিয়ে নেয়া হয়েছে কয়েক হাজার কোটি টাকা। এ গ্রুপ অব ইন্ডাষ্ট্রিজের সবচেয়ে ভালো একটি কোম্পানি পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত করার পর পরবর্তীতে তালিকাভুক্ত করা হচ্ছে অপেক্ষাকৃত দুর্বল কোম্পানি। আর

প্রকল্প এক কোম্পানির, দর বাড়ছে অন্য তিন কোম্পানির

শেয়ারজার রিপোর্ট: লোকসানের ভারে ন্যুজ, আলোচনার বাইরে থাকা চিনিকলগুলো হঠাৎ করেই যেন জেগে উঠেছে। চলতি বছরের ১৮ জুলাই থেকে কোম্পানিগুলোর শেয়ারদরে হঠাৎ করেই আগুন লেগেছে। একনেকে ঠাকুরগাঁও চিনিকলের উৎপাদন বাড়ানোর প্রকল্প অনুমোদন হলেও দর বাড়ছে শ্যামপুর সুগার মিলস, ঝিল-বাংলা সুগার মিলস ও রেনউইক যজ্ঞেশ্বরের। বাজার সংশ্লিষ্টরা বলছেন, দেশের পুঁজিবাজারে চিনিকলগুলোর দর বাড়ার কারণ গুজব। সম্প্রতি জাতীয়

৪ হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগে যাচ্ছে ২৭ কোম্পানি

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: পুঁজিবাজারে উৎপাদনশীল খাতের ২৭ কোম্পানি উৎপাদন ও ব্যবসা বাড়াতে প্রায় ৪ হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগ করার প্রক্রিয়ায় রয়েছে। নিজস্ব অর্থায়ন, ব্যাংক ঋণ, রাইট ইস্যু, করপোরেট বন্ড এবং প্রেফারেন্স শেয়ার বিক্রির মাধ্যমে এ অর্থ ব্যবসা ও উৎপাদন বাড়াতে বিনিয়োগ করা হচ্ছে। চলতি ২০১৬ হিসাব বছরের প্রথম অর্ধে এ ২৭ কোম্পানি ব্যবসা বাড়াতে প্রায় ৪ হাজার কোটি

প্রিমিয়াম নিয়ে তালিকাভুক্তির ৫৪ শতাংশ শেয়ারই ইস্যুমূল্যের নিচে

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: গত পাঁচ বছরে (২০১১ থেকে ২০১৫) প্রিমিয়াম নিয়ে আইপিও’তে আসা কোম্পানিগুলোর মধ্যে ৫৪ শতাংশ কোম্পানির শেয়ারদর এখন ইস্যু মূল্যের নিচে অবস্থান করছে। যার পিছনে দায়ী ইস্যু্ সংশ্লিষ্টরা। এমনটাই মনে করছেন বাজার সংশ্লিষ্টরা। এ বিষয়ে পুঁজিবাজার বিশেষজ্ঞ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. আবু আহমেদ বলেন, বর্তমানে সূচকের অবস্থা খারাপ যাচ্ছে। তা গেলেও গত পাঁচ বছরে

বিএসইসির চোখের সামনে টাকা নিয়ে পালালো জিএমজি এয়ারলায়ন্স: ক্ষতি ৩০০ কোটি টাকা

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্তির আশা দেখিয়ে প্লেসমেন্ট শেয়ারের মাধ্যমে ৩০০ কোটি টাকা উত্তোলন করে গা ঢাকা দিয়েছে জিএমজি এয়ারলায়ন্সের পরিচালকরা। যদিও এ কোম্পানির মালিকপক্ষ বর্তমানে দেশে একটি ব্লেডস (সামা রেজর ব্লেড) তৈরির কোম্পানি চালাচ্ছে। কিন্তু নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) এ বিষয়ে কোনো ব্যবস্থা নিচ্ছে না। তথ্যানুসন্ধানে জানা যায়, রীতিমতো অর্থলোপাটের প্রতিযোগিতায় নেমেছে

মার্চেন্ট ব্যাংকের মূলধনী লোকসান ৩ হাজার কোটি টাকা

শেয়ারবাজার রিপোর্ট : পুঁজিবাজারে শীর্ষ ৩২ মার্চেন্ট ব্যাংক গ্রাহকদের কাছে সুদসহ মার্জিন ঋণ পাবে প্রায় সাড়ে ৬ হাজার কোটি টাকা। এসব মার্চেন্ট ব্যাংকে বিনিয়োগকারীদের হিসাবে মূলধনি লোকসান প্রায় ৩ হাজার কোটি টাকা। এর মধ্যে প্রায় দুই হাজার কোটি টাকা ফেরত পাওয়া নিয়ে শঙ্কা রয়েছে মার্চেন্ট ব্যাংকগুলোর। উল্লেখ্য, পুঁজিবাজারে ৫৬টি মার্চেন্ট ব্যাংক রয়েছে। নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ

Top