বিনিয়োগকারীর কথা এর সকল সংবাদ

আইপিও বিড়ম্বনার অবসান হোক

আইপিও বিড়ম্বনার অবসান হোক

আইপিও নিয়ে বিড়ম্বনার শেষ নেই। দেখা যায় কোনো মাসে আইপিও এক সঙ্গে ২/৩টা হয়। আবার আইপিও শূণ্য কোনো মাস পার হয়।আইপিও প্রক্রিয়া সম্পন্নের পর কোনো কোম্পানি যখন মার্কেটে আসে তখন ইপিএস অনেক ভালো দেখায়। কিন্তু বেশিরভাগ কোম্পানি সিডিবিএল’এ এন্টি হওয়ার পর থেকে ইপিএসের ধারাবাহিকতা রক্ষা হয় না। অনেক সময় ইপিএস নেগেটিভও দেখা যায়। নতুন নতুন

শেয়ারবাজারে নতুন “A+” ক্যাটাগরি করা হোক

পৃথিবীর অধিকাংশ দেশেই বিনিয়োগকারীদের আকর্ষণে এবং তাদের স্বার্থ রক্ষায় শেয়ার বাজার এর নিয়ন্ত্রক সংস্থা গুলো বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন উপায়ে তাদেরকে অনেক সুযোগ ও সুবিধা এবং সময়োপযোগী সিদ্ধান্ত গ্রহন করে। কিন্তু আমাদের দেশের শেয়ার বাজারে তা ব্যাতিক্রম। যদিও আমাদের শেয়ার বাজারে অনেক দিন ধরে স্থিতিশীলতা বজায় রাখার জন্য নিয়ন্ত্রক সংস্থা সচেতন এবং নিয়মিত চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন তবুও

আইপিও হোল্ডারদের অ্যাকাউন্টে ন্যূনতম ৫০ হাজার টাকা থাকা দরকার

বাংলাদেশ এর শেয়ার বাজারে লেনদেন ঘাটতি ও অস্হিতিশীলতা দুটোই নিত্য ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে। শেয়ার বাজারের ইতিহাসে সেই ২০১০ সালেই ধসের পূর্বক যেটা হয়েছিল সেটাই শেষ। যদিও কেউই এটার পুনরাবৃত্তি চায়না, তবুও সবাই চায় অন্তত বাজারে স্হিতিশীলতা আসুক এবং লেনদেন বাড়ুক। কিন্তু নির্দিষ্ট কিছু কারনেই আজ তা সম্ভব হচ্ছে না। বাজারের প্রতি নতুন ও পুরাতন বিনিয়োগকারীদের

জাঙ্কই এখন বিনিয়োগকারীদের আস্থার প্রতিক!

যেকোন দেশের অর্থনীতির মানদন্ডের পরিমাপ করা হয় শেয়ার বাজারের লিস্টেড কোন্পানির আর্থিক অগ্রগতির পরিমাপের উপর। মোট কথা বাজারের লিস্টেড কোন্পানির শেয়ারের দাম দেখেই সেই কোন্পানির আর্থিক অবস্হা বিবেচনা করা হয়। কিন্তু আমাদের দেশের শেয়ার বাজারে তার ১% ও মিল নেই । কথায় আছে নাই মামার চেয়ে কানা মামা ভাল। আর এই প্রবাদটি আমাদের দেশের শেয়ার

এসকে ট্রিমসের আইপিও শেয়ারের তথ্য

মো: সো‌হেল: প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) লটারির ড্র সম্পন্ন করা এসকে ট্রিমস অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের শেয়ার লেনদেন আগামী রোববার (১৫ জুলাই) দেশের উভয় স্টক এক্সচেঞ্জে লেনদেন শুরু করবে কোম্পানিটি। নিম্নে এসকে ট্রিমসের আইপিও শেয়ারের তথ্য দেয়া হ‌লো: IPO OFFER: 3,00, 00,000 SHARES (সাধারণ বিনিয়োগকারীর জন্য বরাদ্দ ১,৫০,০০,০০০ শেয়ার আর প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীর জন্য বরাদ্দ বাকী ১,৫০,০০,০০০ শেয়ার) TRADEABLE SHARE (লেনদেনযোগ্য

বসুন্ধরা পেপার মিলস লি: আইপিও শেয়ারের তথ্য

মো: সোহেল:  আগামী ২ জুলাই দেশের উভয় স্টক এক্সচেঞ্জে বসুন্ধরা পেপার মিলস লিমিটেডের শেয়ার লেনদেন শুরু হবে। ইতিমধ্যে কোম্পানিটির মার্কেটে আসা নিয়ে বিনিয়োগকারীদের মধ্যে বেশ আলোচনা চলছে। বিনিয়োগকারীদের সুবিধার্থে নিম্নে কোম্পানিটির আইপিও’র বিভিন্ন তথ্য উপস্থাপন করা হলো। ISSUE DATE: 01.04.2018 IPO OFFER: 2,60, 41,666 SHARES PUBLIC OFFER :TK.72. EL’S OFFER :TK.80. [সাধারণ বিনিয়োগকারীদের জন্য বরাদ্দ ১,০৪,১৬,৬৬৬

মে মাসে বাজার একদিনের জন্যও পজিটিভ হতে পারেনি

গত ৩০শে এপ্রিল ২০১৮ থেকে বাজার নেগেটিভ হতে শুরু করে এখন পর্যন্ত বাজার নেগেটিভ। দিন হিসেব করলে গত ২০ দিন থেকে টানা নেগেটিভ। আর কার্য দিবস হিসাব করলে গত ১২ কার্য দিবস থেকে টানা নেগেটিভ। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের রেকর্ড বলে গত ১০ বছরে এর আগে টানা ১২ কার্য দিবস এই ভাবে নেগেটিভ ছিল না। যা

শেয়ার কেনার নিরাপদ কৌশল

বিনিয়োগকারীকে তার বিনিয়োগ মূলধনকে ৩টি ধাপে বিনিয়োগ করতে হবে যার প্রথম ধাপ হল দীর্ঘমেয়াদি ।  ২য় ধাপ হল মিডল টার্ম এবং ৩য় ধাপ হল সর্ট টার্ম। ১ম ধাপ বা লং টার্মে বিনিয়োগকারীকে যেসব বিষয় অনুসরণ করতে হবে তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো:  কঃ  প্রথমেই দেখতে হবে ছোট মূলধনী A ক্যাটাগরির শেয়ারগুলোর কোনটির দাম দীর্ঘদিন ধরে স্হিরমান বা সামান্য ব্যবধানে

স্থিতিশীল মার্কেটের জন্য দরকার সব সেক্টরের ভারসাম্য

স্থিতিশীল মার্কেটের জন্য প্রথমে দরকার প্রত্যাশিত উত্থান পতন অর্থাৎ অধিকাংশ শেয়ারের উত্থান হলে ইনডেক্স আপ আবার অধিকাংশ শেয়ারের পতনে ইডেক্স ডাউন। আর এটা তখনই সম্ভব যখন সকল সেক্টরের মধ্যে ভারসাম্য থাকেবে। যত দিন ব্যাংকের লেনদেন দ্বারা গোটা মার্কেট ডমিনেট করা হবে তত দিন বিনিয়োগকারীদের আশার প্রতি ফলন ঘটবে না। বিধায় বাজারের প্রতি তারা আস্থা পাবে

জেনে নিন শেয়ার কেনার গোল্ডেন সিক্রেট টাইমিং

শেয়ার বাজার কোন গবেষণা বা অনুমান অধিকাংশই সঠিক হয়না । আর আমাদের দেশের শেয়ার বাজারে তো টেকনিক্যাল এনালাইসিসও অনেকাংশই ব্যর্থ হয়ে যায়। কারন আমাদের  শেয়ার বাজারে শেয়ার কৌশলীদের রং বদলানোর ওয়ে বেশী পাওয়া যায়। তাইতো বিনিয়োগকারীরা যত বেশী অভিজ্ঞতা সম্পন্ন এবং বিনিয়োগের জ্ঞান অর্জন করতে পারবেন ততই শেয়ার কৌশলীদের রং বদলানো দ্রুত হবে। তাই আমি

Top