Tag Archives: কৌশলগত বিনিয়োগকারী

কম দরে ডিএসই’র মালিকানা পেতে ভারতের তোড়জোড়

কম দরে ডিএসই’র মালিকানা পেতে ভারতের তোড়জোড়

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) কৌশলগত মালিকানা নিয়ে চীনা ও ভারতীয় কনসোর্টিয়ামের মধ্যে জোর টানাটানি চলছে। আর্থিক, কারিগরি ও কৌশলগত বিবেচনায় শনিবারের সভায় চীনাদের প্রস্তাব গ্রহণ করেছিল স্টক এক্সচেঞ্জটির পর্ষদ। রেগুলেটরি অনুমোদনের জন্য রোববার সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবসে নিজেদের এ সিদ্ধান্ত বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনকে (বিএসইসি) অবহিত করার পরিকল্পনাও নিশ্চিত করেছিল ডিএসইর একাধিক সূত্র।

ডিএসই’র শেয়ার কিনতে ১ হাজার ১২৭ কোটি টাকার প্রস্তাব

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: কৌশলগত বিনিয়োগকারী হিসেবে চীনের সেনজেন ও সাংহাই স্টক এক্সচেঞ্জ যৌথভাবে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসইর) এক-চতুর্থাংশের মালিকানা পেতে চায়। এ জন্য শেয়ারপ্রতি সর্বোচ্চ ২৫ টাকা হারে মোট এক হাজার ১২৭ কোটি টাকার দরপ্রস্তাব করেছে স্টক এক্সচেঞ্জ দুটি। এ ছাড়া যৌথভাবে ডিএসইর অংশীদার হতে একই রকম আগ্রহ দেখিয়েছে নিউইয়র্কভিত্তিক বিশ্বের দ্বিতীয় প্রধান স্টক এক্সচেঞ্জ নাসডাক, ভারতের

স্ট্রাটেজিক পার্টনারের আবেদনের শেষ সময় ৩০ এপ্রিল

শেয়ারবাজার ডেস্ক: দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) স্ট্রাটেজিক পার্টনার বা কৌশলগত বিনিয়োগকারীদের আবেদনের শেষ সময় আগামী ৩০ এপ্রিল। আজ ফের ডিএসই স্ট্রাটেজিক পার্টনার হতে ইচ্ছুকদের আবেদনের জন্য বিজ্ঞপ্তি দিয়েছে। এতে আবেদনের সময় সীমা উল্লেখ করা হয়েছে। জানা যায়, ডিমিউচ্যুয়ালাইজেশন আইন অনুযায়ী দেশের স্টক এক্সচেঞ্জগুলোকে কৌশলগত বিনিয়োগকারীর কাছে তাদের সংরক্ষিত ২৫ শতাংশ শেয়ার বিক্রি করতে হবে।

হাতে মাত্র দুই দিন: কৌশলগত বিনিয়োগকারী খুজতে আগ্রহী নয় কেউই

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: স্ট্র্যাটেজিক ইনভেস্টর বা কৌশলগত বিনিয়োগকারী খুজছে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ (সিএসই)। সিএসই’কে এই কৌশলগত বিনিয়োগকারী খুজে পেতে যারা সাহায্য করতে আগ্রহী তাদের আগামীকাল ৩১ আগস্টের মধ্যে যোগাযোগ করতে বলা হয়েছে। সেই হিসেবে কনসালট্যান্ট বা সহায়তাকারীদের যোগাযোগের সময় আর মাত্র ২ দিন। উল্লেখ, এখনো পর্যন্ত এ বিষয়ে কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান আগ্রহ দেখায়নি বা আবেদন

৬০৯ কোটি টাকার শেয়ার বিক্রি করতে হবে উভয় স্টক এক্সচেঞ্জকে

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: ব্যবস্থাপনা থেকে মালিকানা পৃথককরণ অর্থাৎ ডি-মিউচ্যুয়ালাইজেশনের অন্যতম প্রধান শর্ত উভয় স্টক এক্সচেঞ্জকে স্ট্র্যাটেজিক পার্টনার বা কৌশলগত বিনিয়োগকারী খুঁজে বের করা। এর জন্য আর মাত্র ৪ মাস সময় রয়েছে। এ সময়ের মধ্যে কৌশলগত বিনিয়োগকারীর কাছে উভয় স্টক এক্সচেঞ্জকে সম্মিলিতভাবে ৬০৯ কোটি টাকার শেয়ার বিক্রি করতে হবে। প্রসঙ্গত, ডিএসইর বর্তমান পরিশোধিত মূলধন এক হাজার ৮০৩

Top