আইসিবি’র বে-মেয়াদি ফান্ডগুলোর পুঁজিবাজারে বিনিয়োগ ৩৩৬১ কোটি টাকা

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: ইনভেস্টমেন্ট করপোরেশন অব বাংলাদেশের (আইসিবি) সাবসিডিয়ারি আইসিবি অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট পরিচালিত ১৩টি বে-মেয়াদি ফান্ডের পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানির শেয়ারে ক্রয়মূল্যে মোট বিনিয়োগ ৩ হাজার ৩৬১ কোটি ১৪ লাখ ৮১ হাজার টাকা। আর এ শেয়ারগুলোর বাজার মূল্য ২ হাজার ৮১৫ কোটি ৪৭ লাখ ৬৫ হাজার টাকা। ফান্ডগুলোর পোর্টফোলিও-তে বিনিয়োগজনিত ৫৪৫ কোটি ৬৭ লাখ ১৬ হাজার টাকা লোকসানে রয়েছে।

৩১ মার্চ, ২০১৮ পর্যন্ত সর্বশেষ প্রকাশিত ফান্ডগুলোর ত্রৈমাসিক পোর্টফোলিও থেকে এমন তথ্য জানা গেছে।

আইসিবি এএমসিএল পরিচালিত ১৩টি ফান্ডের মধ্যে ৯টি শেয়ারবাজারে বিনিয়োগ করে লোকসানে এবং বাকী ৪টি ফান্ড মুনাফায় রয়েছে। আর এই সময়ে বে-মেয়াদি ফান্ডগুলো ৪৩ কোটি ২২ লাখ ৫৩ হাজার টাকা তালিকা বহির্ভুত কোম্পানিতে বিনিয়োগ করেছে।

ফান্ডগুলোর মধ্যে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত শেয়ারে সবচেয়ে বেশি বিনিয়োগ করেছে বাংলাদেশ ফান্ড। তাদের লোকসানও সবচেয়ে বেশি। ফান্ডটির বিনিয়োগ ক্রয়মূ্ল্যে ২ হাজার ২ কোটি ৫০ লাখ ৮৬ হাজার টাকা। যার বাজারমূল্য এক হাজার ৬৩২ কোটি ৪২ লাখ ১০ হাজার টাকা। পোর্টফোলিও-তে লোকসান ৩৭০ কোটি ৪৫ লাখ ২৫ হাজার টাকা। ৩০ জুন ২০১৮ সমাপ্ত হিসাব বছরে ফান্ডটি ইউনিট প্রতি ৬ টাকা ডিভিডেন্ড দিয়েছে। ফান্ডটির ইউনিট প্রতি বিক্রয় মূল্য ৯৮ টাকা এবং পুন:ক্রয় মূল্য ৯৫ টাকা।

এরপর রয়েছে আইসিবি এএমসিএল ইউনিট ফান্ড। তাদের মোট বিনিয়োগ ক্রয়মূল্যে ৮৫৪ কোটি ২৬ লাখ ৫২ হাজার টাকা। যার বাজারমূল্য ৭১৮ কোটি ২৩ লাখ ৬৫ হাজার টাকা। ফান্ডটির পোর্টফোলিও লোকসান ১৩৬ কোটি ২ লাখ ৮৬ হাজার টাকা। ৩০ জুন ২০১৮ সমাপ্ত হিসাব বছরে ফান্ডটি ইউনিট প্রতি ১৯ টাকা ডিভিডেন্ড দিয়েছে। ফান্ডটির ইউনিট প্রতি বিক্রয় মূল্য ২২০ টাকা এবং পুন:ক্রয় মূল্য ২১৫ টাকা।

এছাড়া আইসিবি এএমসিএল পেনশন হোল্ডার ইউনিট ফান্ডের বিনিয়োগ ক্রয়মূল্যে ৫১ কোটি ৯৫ লাখ ৭৬ হাজার টাকা। যার বাজারমূল্য ৩৫ কোটি ৫০ লাখ ৫০ হাজার টাকা। লোকসান ১৬ কোটি ৪৫ লাখ ২৫ হাজার টাকা। ৩০ জুন ২০১৮ সমাপ্ত হিসাব বছরে ফান্ডটি ইউনিট প্রতি ১২.৫০ টাকা ডিভিডেন্ড দিয়েছে। ফান্ডটির ইউনিট প্রতি বিক্রয় মূল্য ১৯০ টাকা এবং পুন:ক্রয় মূল্য ১৮৫ টাকা।

আইসিবি এএমসিএল কনভার্টেড ফার্স্ট ইউনিট ফান্ডের বিনিয়োগ ক্রয়মূল্যে ৪৮ কোটি ৫৬ লাখ ৮৮ হাজার টাকা। যার বাজারমূল্য ৩৮ কোটি ৯৭ লাখ ২৮ হাজার টাকা। লোকসান ৯ কোটি ৫৯ লাখ ৬০ হাজার টাকা। ৩০ জুন ২০১৮ সমাপ্ত হিসাব বছরে ফান্ডটি ইউনিট প্রতি ০.৬০ টাকা ডিভিডেন্ড দিয়েছে। ফান্ডটির ইউনিট প্রতি বিক্রয় মূল্য ১০ টাকা এবং পুন:ক্রয় মূল্য ৯.৭০ টাকা।

আইসিবি এএমসিএল ইসলামিক ইউনিট ফান্ডের বিনিয়োগ ক্রয়মূল্যে ৬০ কোটি ৫৪ লাখ ৭৩ হাজার টাকা। যার বাজারমূল্য ৫৫ কোটি ৩৯ লাখ ৮৮ হাজার টাকা। লোকসান ৫ কোটি ১৪ লাখ ৮৫ হাজার টাকা। ৩০ জুন ২০১৮ সমাপ্ত হিসাব বছরে ফান্ডটি ইউনিট প্রতি ০.৮০ টাকা ডিভিডেন্ড দিয়েছে। ফান্ডটির ইউনিট প্রতি বিক্রয় মূল্য ১০ টাকা এবং পুন:ক্রয় মূল্য ৯.৭০ টাকা।

প্রথম আইসিবি ইউনিট ফান্ডের বিনিয়োগ ক্রয়মূল্যে ১০৪ কোটি ৯৯ লাখ ৭০ হাজার টাকা। যার বাজারমূল্য ৯৬ কোটি ৮৯ লাখ ১৪ হাজার টাকা। লোকসান ৮ কোটি ১০ লাখ ৫৬ হাজার টাকা। বর্তমানে ফান্ডটির ইউনিট প্রতি বিক্রয় মূল্য ১০.৪০ টাকা এবং পুন:ক্রয় মূল্য ১০.১০ টাকা।

দ্বিতীয় আইসিবি ইউনিট ফান্ডের বিনিয়োগ ক্রয়মূল্যে ১৪ কোটি ৫৬ লাখ ৪৮ হাজার টাকা। যার বাজারমূল্য ১৩ কোটি ৬৪ লাখ ৯৯ হাজার টাকা। লোকসান ৯১ লাখ ৪৮ হাজার টাকা। বর্তমানে ফান্ডটির ইউনিট প্রতি বিক্রয় মূল্য ১১.০০ টাকা এবং পুন:ক্রয় মূল্য ১০.৭০ টাকা।

চতুর্থ আইসিবি ইউনিট ফান্ডের বিনিয়োগ ক্রয়মূল্যে ২৭ কোটি ৭ লাখ ১৭ হাজার টাকা। যার বাজারমূল্য ২৫ কোটি ৩৬ লাখ ৭৯ হাজার টাকা। লোকসান ১ কোটি ৭০ লাখ ৩৮ হাজার টাকা। বর্তমানে ফান্ডটির ইউনিট প্রতি বিক্রয় মূল্য ১১.১০ টাকা এবং পুন:ক্রয় মূল্য ১০.৮০ টাকা।

পঞ্চম আইসিবি ইউনিট ফান্ডের বিনিয়োগ ক্রয়মূল্যে ৪৩ কোটি ৩২ লাখ ৪৪ হাজার টাকা। যার বাজারমূল্য ৪২ কোটি ৫ লাখ ৮৯ হাজার টাকা। লোকসান ১ কোটি ২৬ লাখ ৫৪ হাজার টাকা। বর্তমানে ফান্ডটির ইউনিট প্রতি বিক্রয় মূল্য ১১.৩০ টাকা এবং পুন:ক্রয় মূল্য ১১.০০ টাকা।

অষ্টম আইসিবি ইউনিট ফান্ডের বিনিয়োগ ক্রয়মূল্যে ৪১ কোটি ৯৬ লাখ ৫১ হাজার টাকা। যার বাজারমূল্য ৪০ কোটি ৬৬ লাখ ৬৯ হাজার টাকা। লোকসান ১ কোটি ২৯ লাখ ৮২ হাজার টাকা। বর্তমানে ফান্ডটির ইউনিট প্রতি বিক্রয় মূল্য ১১.২০ টাকা এবং পুন:ক্রয় মূল্য ১০.৯০ টাকা।

এদিকে শেয়ারে বিনিয়োগ করে মুনাফায় রয়েছে তিনটি বে-মেয়াদি ফান্ড। এগুলোর মধ্যে তৃতীয় আইসিবি ইউনিট ফান্ডের বিনিয়োগ ক্রয়মূল্যে ৩১ কোটি ৩০ লাখ ১৪ হাজার টাকা। যার বাজারমূল্য ৩১ কোটি ৩৫ লাখ ৮৫ হাজার টাকা। মুনাফা ৫ লাখ ৭১ হাজার টাকা। বর্তমানে ফান্ডটির ইউনিট প্রতি বিক্রয় মূল্য ১০.৪০ টাকা এবং পুন:ক্রয় মূল্য ১০.১০ টাকা।

ষষ্ঠ আইসিবি ইউনিট ফান্ডের বিনিয়োগ ক্রয়মূল্যে ৩৪ কোটি ৯১ লাখ ২৫ হাজার টাকা। যার বাজারমূল্য ৩৬ কোটি ৯০ লাখ ৩ হাজার টাকা। মুনাফা ১ কোটি ৯৮ লাখ ৭৭ হাজার টাকা। বর্তমানে ফান্ডটির ইউনিট প্রতি বিক্রয় মূল্য ১২.৩০ টাকা এবং পুন:ক্রয় মূল্য ১২.০০ টাকা।

সপ্তম আইসিবি ইউনিট ফান্ডের বিনিয়োগ ক্রয়মূল্যে ৪৫ কোটি ১৬ লাখ ৩০ হাজার টাকা। যার বাজারমূল্য ৪৮ কোটি ৪ লাখ ৭৯ হাজার টাকা। মুনাফা ২ কোটি ৮৮ লাখ ৪৮ হাজার টাকা। বর্তমানে ফান্ডটির ইউনিট প্রতি বিক্রয় মূল্য ১২.৪০ টাকা এবং পুন:ক্রয় মূল্য ১২.১০ টাকা।

উল্লেখ্য, ২৯ মার্চ ২০১৮ শেষে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ছিল ৫৫৯৭ পয়েন্ট। যা ২৯ জুন ২০১৮ শেষে ছিল ৫৪০৫ পয়েন্ট।

আইসিবি’র সঙ্গে অ্যাসেট ম্যানেজমেন্টের বার্ষিক কর্ম সম্পাদন চুক্তি মতে চলতি হিসাব বছরে পুঁজিবাজারে নতুন করে আরো ৯০ কোটি টাকা বিনিয়োগের লক্ষ্যমাত্রা দেওয়া হয়েছে।

 

শেয়ারবাজারনিউজ/আ

 

আপনার মন্তব্য

Top