উপকূলীয় আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের এস.এস.সি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের কৃতি সংবর্ধনা প্রদান

শেয়ারবাজার ডেস্ক:  “স্মৃতির খোঁজে চলো হারায়, প্রাণের প্রিয় আঙ্গিনায়” এই স্লোগানকে ধারণ করে উপকূলীয় আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় হতে ২০১৮ সালের এস.এস.সি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের কৃতি সংবর্ধনা ও ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়েছে। হেলাল উদ্দিনের পবিত্র কোরআন তেলোয়াতের মাধ্যমে গত বৃহস্পতিবার (২৩ আগস্ট) সকাল ১০ টায় অনুষ্ঠানের শুভসূচনা হয়। পরিষদের সদস্য নুরুল আবছার সবুজ, তাছমিন আক্তার ও মিজান মাহিনের ত্রয়ী সঞ্চালনায় উক্ত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন পরিষদের আহবায়ক মো. আবদুল জব্বার।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলালিংক ডিজিটাল কমিউনিকেশন-এর চীফ কমপ্লায়েন্স অফিসার এম. নুরুল আলম। বিশেষ অতিথি হিসেবে যথাক্রমে উপস্থিত ছিলেন কুমিল্লা ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আরাফাত দোলন, উপকূলীয় আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় গভর্নিং বডির সভাপতি এডভোকেট আজিজুল হক চৌধুরী, বেসিক ব্যাংক লিমিটেড আগ্রাবাদ ব্রাঞ্চের নির্বাহী ব্যবস্থাপক বাবুল মিয়া(এসিএস), শিক্ষক কামরুল ইসলাম, আব্দুর রহিম প্রমুখ।

দেশের জনগণকে সেবা প্রদান ও দেশ বিনির্মাণে শিক্ষার্থীদের এগিয়ে আসতে হবে। একমাত্র শিক্ষিতরাই পারে একটি শিক্ষিত জাতি উপহার দিতে। বিশ্বের যা কিছু গড়ে উঠেছে একমাত্র শিক্ষার বলেই শিক্ষিত সমাজ নির্মাণ করতে পেরেছে। আনোয়ারায় উপকূলীয় আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত ঈদ পুনর্মিলনী ও কৃতি সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন অতিথিরা।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি বাংলালিংক ডিজিটাল কমিউনিকেশন-এর চীফ কমপ্লায়েন্স অফিসার এম. নুরুল আলম বলেন, “এরকম একটি প্রত্যন্ত অঞ্চলে এতোগুলো মেধাবী, শিক্ষিত ও সচেতন মুখ দেখে সত্যিই গর্ববোধ করছি। দেশের সেবায় এই আপনাদের সকলকেই ঝাঁপিয়ে পড়তে হবে।”

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আরাফাত দোলন সবার উদ্দেশ্যে মোটিভেশনাল বক্তব্য প্রদান করেন। তিনি পরিষদের সার্বিক সফলতা কামনা করেন।

বিদ্যালয় গভর্নিং বডির সভাপতি এড. আজিজুল হক চোধুরী বলেন, “পরিষদের প্রাক্তন ছাত্রদের কাজ দেখে নিজেকে নিয়ে গর্ব করছি। আমি সকলের উত্তরোত্তর সাফল্য কামনা করছি।”

উক্ত অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে আরো বক্তব্য রাখেন পরিষদের সিনিয়র সদস্য সাংবাদিক বজলুল হক, আবু ছাদেক ছিটু, ফজলুল হক মনি, দেলোয়ার হোসেন, সজীব তালুকদার, শাহিদা ইয়াসছিন কাওসার, মো. পারভেজ, মোঃ আলমগীর, জিয়াউল হক ফাহিম, আশিকুর রহমান প্রমুখ। এসময় প্রাক্তন ছাত্র পরিষদের অনেক সদস্য উপস্থিত ছিলেন। তাদের মুহুর্মুহু ধ্বনি ও করতালিতে অনুষ্ঠানের সৌন্দর্য অনেকাংশে বৃদ্ধি পায়।

উক্ত ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানের স্পন্সর হিসেবে ছিলেন কনফিডেন্স সিমেন্ট লিমিটেড।

পরে ৬জন গুণী ব্যক্তিকে ক্রেস্ট প্রদানের মাধ্যমে সম্মানিত ও অতিথিদের মাধ্যমে বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ ৭৭ জন কৃতি শিক্ষার্থী ও বিদ্যালয়ে ৬ষ্ঠ-১০ম শ্রেণীতে অধ্যয়নরত ২৪ জন মেধাবী শিক্ষার্থীকে ক্রেস্ট ও সার্টিফিকেট দিয়ে পুরস্কৃত করার মাধ্যমে সংবর্ধিত করা হয়।

-প্রেস বিজ্ঞপ্তি

আপনার মন্তব্য

*

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top