H2O রেস্টুরেন্টে পোজ দিলেন সেই অনন্যা

শেয়ারবাজার ডেস্ক: ডায়মন্ড ওয়ার্ল্ড ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ-২০১৮’ নির্বাচিত হয়েছেন জান্নাতুল ফেরদৌসী ঐশী। প্রথম রানার আপ নিশাত নাওয়ার সালওয়া এবং দ্বিতীয় রানার আপ হয়েছেন নাজিবা বুশরা। তবে ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ প্রতিযোগিতা নিয়ে আবারও শুরু হয়েছে বিতর্ক। প্রতিযোগীদের ভুল-ভ্রান্তিই আড়ালে চলে যাওয়া এই আসরকে আলোচনায় নিয়ে আসে।

মূলত বিচারকদের প্রশ্ন বুঝতে না পেরে প্রতিযোগীদের ভুল উত্তর দেয়া কিংবা খুব সহজ প্রশ্নের জটিল ভাবে দেয়া অথবা সাদামাটা প্রশ্ন সম্পর্কে ওয়াকিবহাল না থেকে ভুল উত্তর দেয়া ডায়মন্ড ওয়ার্ল্ড মিস ওয়ার্ল্ড প্রতিযোগীতাকে সমালোচনার মুখে ফেলে দেয়।

তেমনি এক প্রতিযোগী সুমনা নাথ অনন্যা। তিনি অনন্যা অনু হিসেবে শোবিজে ইতিমধ্যে পদার্পন করেছেন। নাম লিখিয়েছেন অভিনয়শিল্পী হিসেবে। এরই মধ্যে টেলিভিশনে নাটক করেছেন কয়েকটি। অভিনেতা ডিএ তায়েবের সঙ্গে ডিবির কয়েকটি পর্বও করেছেন অনন্যা অনু।

‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ-২০১৮’ সুন্দরী প্রতিযোগিতার আসরে বিচারক খালেদ হোসেন সুজন অনন্যাকে প্রশ্ন করেন H2O মানে কী?

সহজ এই প্রশ্নটির উত্তর দিতে পারছিলেন না অনন্যা। পরবর্তীতে সুজন নিজেই উত্তর বলে দিয়ে তার আসলে প্রশ্ন শুরু করেন।

কবে সুজনের পরবর্তী প্রশ্নের মাঝে অনন্যা উত্তর দিয়ে বসেন H2O নামে রেস্টুরেন্ট আছে, ধানমন্ডিতে। আর এতে রাজদর্শন হলে তখন মিশ্র প্রতিক্রিয়া।

এ বিষয়টি নিয়ে সোমবার (১ অক্টোবর) সোশ্যাল মিডিয়ায় আলোচিত-সমালোচিত। সোশ্যাল মিডিয়ায় যখন ঘোলাজল তখন আরও ঘোলাজল করে দিলেন অনন্যা।

জানা যায়, অনন্যাকে ধানমন্ডিতে সেই রেস্টুরেন্ট আমন্ত্রণ জানায়। তাদের আমন্ত্রণে সাড়া দেন এই প্রতিযোগী। শুধু তাই নয় সেখানে গিয়ে তাদের আমন্ত্রণ রক্ষা করেন। রেস্টুরেন্টে বেশকিছু ছবি তোলেন এবং নিজের ফেসবুক হ্যান্ডেলে শেয়ার করেছেন তিনি।

এ বিষয়ে অনন্যা বলেন, ‘আসলে প্রশ্নটা বুঝতে আমার সময় লেগেছে। আমি ভেবেছি স্যার হয়তো ফান করেছেন। তিনি যদি বলতেন H2O কিসের সংকেত তাহলে আমার ব্রেইন সেদিকে মুভ করতো। কিন্তু তিনি মানে জানতে চেয়েছেন, যেটার কারণে আমি বিভ্রান্ত হয়েছি।’

এদিকে বিচারকের প্রশ্ন করা নিয়েও অনেকে ভিন্ন ভিন্নমত দিয়েছে। কেউ অনন্যার এমন কাণ্ডে ভিন্ন ভিন্নমত দিচ্ছেন, কেউ কেউ বলছেন যেখানে অনুতাপ থাকা উচিৎ, সেখানে বিষয়টি নিয়ে মজা করছেন তিনি। তার এই বিষয়টিকে হালকা ভাবে নেওয়া উচিত নয়।

বিচারকের প্রশ্নই হয়নি। জানিয়ে একজন বলেছেন, ‘H2O মানে কী?’ তিনি যদি পানির সঙ্কেত জিজ্ঞেস করতেন বা এটা কিসের সংকেত বলতেন তাহলেও কথা ছিল।

অন্য একজন বলছেন, প্রশ্ন না বোঝার উপায় নেই। এটা ক্লাস-সিক্স-সেভেনের বাচ্চারাও জানে।

তবে বিষয়টি নিয়ে মাথা ব্যথা নেই অনন্যার। তিনি বলেছেন, যার যেমন ইচ্ছে নিতে পারেন। কেউ নেগেটিভলি নিলেও নিতে পারেন, পজেটিভলি নিলেও নিতে পারেন।

এদিকে H2O রেস্টুরেন্ট তাঁকে আমন্ত্রণ জানানোয় ধন্যবাদ জানিয়েছেন অনন্যা।

শেয়ারবাজারনিউজ/মু

আপনার মন্তব্য

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top