আজ: শুক্রবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২২ইং, ২৪শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৩ই জমাদিউল আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

১৩ মে ২০১৫, বুধবার |


kidarkar

৫০ বিলিয়ন ডলার রপ্তানির লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে কাজ করছে বিজিএমইএ


BGMEA, Photograph_13_05_2015 copyশেয়ারবাজার রিপোর্ট : আগামী ২০২১ সালের মধ্যে ৫০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার রপ্তানির লক্ষ্য মাত্রা নিয়ে কাজ করছে বাংলাদেশ গার্মেন্টস ম্যানুফ্যাকচারর্স অ্র্যান্ড এক্সপোটার্স অ্যাসোসিয়েশন (বিজিএমইএ)। এ লক্ষ্যে বিভিন্ন উদ্যোগ হাতে নিয়েছে সংস্থাটি। এরই ধারাবাহিকতায় বুধবার  বিকাল সাড়ে তিনটায় কাস্টমস্ বন্ড কমিশনারেট, চট্টগ্রামের নব-নিযুক্ত কমিশনার মোঃ শফিকুল ইসলামের সঙ্গে বিজিএমইএ’র নেতৃবৃন্দের এক সভা বন্ড কমিশনারেট কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানে বিজিএমইএ’র প্রথম সহ-সভাপতি জনাব নাসিরউদ্দিন আহমেদ চৌধুরী বলেন, বাংলাদেশের তৈরী পোশাক শিল্প বর্তমানে কঠিন সময় অতিক্রম করছে, ২০২১ সালের মধ্যে ৫০ বিলিয়ন মাঃ ডঃ রপ্তানীর লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে বিজিএমইএ কাজ করছে। এ’লক্ষ্যে বন্ড কমিশনারেট সহ সংশ্লিষ্ট সকলের সহযোগিতা প্রয়োজন। গ্যাস, বিদ্যুৎ সংকট সহ অবকাঠামোগত বিভিন্ন সমস্যার কারণে চট্টগ্রামস্থ পোশাক শিল্প প্রতিষ্ঠান সমূহে অর্ডার স্বল্পতা বিরাজমান। পোশাক শিল্পের বর্তমান এই সংকটময় সময়ে বন্ড সংশ্লিষ্ট কার্যক্রম সহজীকরণের মাধ্যমে দ্রুত অনুমোদন প্রদান করে কাস্টমস্ বন্ড কমিশনারেট, চট্টগ্রাম এক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে। যে সকল রপ্তানীকারক দীর্ঘদিন যাবৎ সুনামের সাথে কার্যক্রম পরিচালনা করছে, তাদেরকে উৎসাহিত করার লক্ষ্যে সহযোগীতা বৃদ্ধির উপর গুরুত্বরোপ করেন তিনি। এ’ছাড়াও কমপ্লায়েন্স সংক্রান্ত কারণে কারখানা স্থানান্তর দ্রুত  অনুমোদন, বাৎসরিক অডিট কার্যক্রম সহজীকরন সহ,পোশাক শিল্প সংশ্লিষ্ট বন্ডের কার্যক্রম দ্রুত অনুমোদনের জন্য কমিশনারের সহযোগিতা কামনা করেন। বিজিএমইএ’র সাথে বন্ড কমিশনারেট এর কার্যক্রম সমন্বয়ের জন্য বন্ড ও বিজিএমইএ’র যৌথ মনিটরিং কমিটি গঠনের আহ্বান জানান।

কাস্টমস্ বন্ড কমিশনারেট, চট্টগ্রাম-এর কমিশনার মোঃ শফিকুল ইসলাম বিপুল পরিমাণ কর্মসংস্থান সৃষ্টি ও বৈদেশিক মুদ্রা আহরণ করে দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে তৈরী পোশাক শিল্পের ভূমিকার প্রশংসা করেন। বন্ড কমিশনারেট পোশাক শিল্পকে প্রতিযোগীতায় ঠিকে থাকার লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় সহযোগীতার আশ্বাস দেন। তিনি পোশাক শিল্প প্রতিষ্ঠানের হালনাগাদ অডিট সম্পাদনে দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহণ, কমপ্লায়েন্স সংক্রান্ত কারণে বন্ধ প্রতিষ্ঠান সমূহের মালামাল অন্যত্র স্থানান্তর / কারখানা স্থানান্তরে দ্রুত অনুমোদনে বন্ড কমিশনারেটের সার্বিক সহযোগিতা সহ বিজিএমইএ কর্তৃক উপস্থাপিত বিভিন্ন সমস্যা সমূহ দ্রুত সমাধানে কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য তাৎক্ষনিকভাবে নির্দেশনা প্রদান করেন। বন্ড সংশ্লিষ্ট কার্যক্রম সহজীকরণে বিজিএমইএ ও বন্ডের সমন্বয়ে যৌথ কমিটি গঠনে তিনি ঐক্যমত পোষণ করেন।

সভায় আরো বক্তব্য রাখেন বিজিএমইএ’র পরিচালক অঞ্জন শেখর দাশ, এমডিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী, প্রাক্তন প্রথম সহ-সভাপতি এরশাদ উল্লাহ্, এস.এম. আবু তৈয়ব, মইনুদ্দিন আহমেদ (মিন্টু) ও নাসির উদ্দিন চৌধুরী।

সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন বিজিএমইএ’র পরিচালক সাব্বির মোস্তফা, শেখ সাদী, এবং কাস্টমস্ বন্ড কমিশনারেট যুগ্ম কমিশনার মোঃ ফজলুল হক সহ সহকারী কমিশনারবৃন্দ।

শেয়ারবাজারনিউজ/সা


আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.