আবারও কাশ্মীর সীমান্তে ল্যাংগেটে পাল্টাপাল্টি গুলিবর্ষণ

শেয়ারবাজার ডেস্ক: ভারত অধিকৃত জম্মু-কাশ্মীর পুলওয়ামায় জঙ্গি হামলায় দেশটির বিশেষায়িত বাহিনীর ৪৯ জওয়ান নিহত হওয়ার ঘটনার পর দু’দেশের মধ্যে পাল্টাপাল্টি গুলিবর্ষণ অব্যাহত আছে। মঙ্গলবার রাজৌরি ও পুঞ্জ জেলা সীমান্তে লাইন অফ কন্ট্রোল (এলওসি) নিয়ন্ত্রণরেখা পেরিয়ে ভারত সেনা আক্রমণ চালালে পাল্টা জবাব হিসেবে পাক সেনারাও মটারশেল নিক্ষেপ করে এতে ভারতীয় সেনার ৫ জন আহত হয়। সেই রেশ ধরে বুধবার গভীর রাতে আবারও পাল্টাপাল্টি হামলার ভারতীয় ৪ সেনা আহত হয়েছে বলে জানা গেছে।

বুধবার (৬ মার্চ) গভীর রাতে ভারতীয় সেনা বাহিনী সীমান্তরেখা পেরিয়ে গুলি চালালে পাল্টা জবাব দিতে পাক সেনারা কয়েক দফায় মটারশেল নিক্ষেপ করলে এতে ভারতীয় ৪ জওয়ান আহত হয়।

কাশ্মীর পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, বুধবার গভীর রাতে ভারতীয় সেনার টহলরত গাড়িতে আকস্মিক হামলা চালানো হয়েছে। এসময় পাক সেনাদের লক্ষ্য করে গুলি চালালে পাল্টা মটারশেল নিক্ষেপ করে। ঘটনাটি ঘটেছে কুপওয়ারার হান্ডওয়ারার কাছেই, ল্যাংগেটে। ঘিরে ফেলা হয়েছে গোটা এলাকা। তবে কারা এ হামলা চালিয়েছে, তা-ও স্পষ্ট নয়।

এদিকে, চরম উত্তেজনার মধ্যেই রয়ে দু’দেশের সেনাবাহিনী। তবে উভয় দেশের পক্ষ্য থেকে শান্তির কথা মুখে আনা হলেও তা কেবল মুখেই বাণীতেই সীমাবদ্ধ। তবে ভারতীয় সেনারা পাক সেনাদের উচিত জবাব দিতে প্রস্তুত বলে জানিয়েছে সেনা প্রধান।

বুধবার ভারত পাকিস্তানকে হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছে যে কোনও হামলার চরম ফুল ভুগতে হবে পাকিস্তানকে। অন্যদিকে পাক সেনাদের পক্ষ থেকেও বলা হচ্ছে দেশ রক্ষার জন্য সব ধরণের প্রস্তুতি নেওয়া আছে।

পাক সেনাদের প্রতি অভিযোগ এনে ভারত দাবি জানিয়েছে, যে (NOT to target civilian areas) এলাকাগুলিকে যেন পাকিস্তান টার্গেট না করে। শেষ ২৪ ঘন্টায় ভারী অস্ত্রের সাহায্যে কৃষ্ণা ঘাঁটি, সুন্দরবনি এলাকায় হেভি মর্টার শেলিং করেছে পাকিস্তান সেনা। প্রত্যেক ক্ষেত্রে জনবসতি এলাকাগুলিকে টার্গেট করা হচ্ছে বলে জানানো হয়েছে ভারতীয় সেনার তরফে। আর তা যাতে না করা হয় সেই বিষয়টি জানিয়েই পাকিস্তানকে সাবধান করে দিয়েছে ভারতীয় সেনা।

এদিকে ভারতের অহেতুক মিথ্যা কথা ছড়িয়ে দিচ্ছে নিজ দেশের গণমাধ্যমে বলে দাবি পাক সেনা মুখপাত্রের। তিনি জানান পাক সেনাদের উপর তারা অতর্কিত হামলা চালিয়ে আবার উল্টা দাবি করে আসছে। এর শাস্তি হিসেবে ভারত সময় সাপেক্ষে উচিত জবাব পাবেও বলে জানান পাক সেনা মুখপাত্র গফুর।

বুধবার (৬ মার্চ) মার্কিন বার্তা সংস্থা থমসন রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সানফ্রান্সিসকো ভিত্তিক ব্যক্তিগত স্যাটেলাইট অপারেটর প্ল্যানেট ল্যাবস ইনক-এর স্যাটেলাইটে এসব ছবি ধরা পড়ে।

তবে এসব ছবি প্রকাশের আগে ভারতের পররাষ্ট্র ও প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ে ই-মেইলে পাঠিয়ে এ ব্যাপারে জানতে চাওয়া হলে মন্ত্রণালয় থেকে কোনো উত্তর পাওয়া যায়নি বলে রয়টার্সের প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।

স্যাটেলাইটের ছবি বিশ্লেষণের ১৫ বছরের অভিজ্ঞতাসম্পন্ন মিডলবেরি ইনস্টিটিউট অব ইন্টারন্যাশনাল স্টাডিজের ইস্ট এশিয়া ননপ্রলিফারেশন প্রোগ্রামের পরিচালক জেফরি লুইস বলেন, ‘উচ্চ রেজুলেশনের স্যাটেলাইটের ছবিগুলো থেকে দাবি করা বোমা হামলার কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি।’ স্যাটেলাইটের মাধ্যমে তোলা তিনটি ছবি পর্যালোচনার জন্য জেফরি লুইসের কাছে পাঠানো হয়েছিল।

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) ভারত অধিকৃত জম্মু-কাশ্মীর পুলওয়ামায় দেশটির বিশেষায়িত বাহিনীর (সিআরপিএফ) গাড়িবহনে জঙ্গি হামলার ঘটনায় ৪৯ জওয়ান প্রাণ হারান। আহত হয় প্রায় অর্ধশতাধিক। এদিকে ওই গাড়িবহরে হামলার দায় স্বীকার করেন পাকিস্তান অবস্থানরত জঙ্গি সংগঠন জইশ-ই-মোহাম্মাদ। ওই হামলার ১৩ দিন পর ভারত জইশের সবচেয়ে বড় জঙ্গিঘাঁটি ছিল পাক অধিকৃত কাশ্মীরের বালাকোটে। সেই বালাকোটে হামলা চালায় ভারতের বায়ুসেনারা। তবে ওই হামলায় জইশের ৩০০ জন জঙ্গি নিহতের দাবি জানিয়ে আসলেও পাকিস্তানের পক্ষে তার উড়িয়ে দেয়া হচ্ছে।

পাক-ভারতে এমন উত্তেজনার পারদ যখন তুঙ্গে ঠিক তখন ইসরাইলের সমর্থন নিয়ে পাকিস্তানে এক বিপজ্জনক হামলা চালানোর পরিকল্পনা নিয়েছিল ভারত। পরিকল্পনাটি করা হয়েছিল রাজস্থানের বিমানঘাঁটি থেকে। ওই পরিকল্পনার ব্যাপারে অবগত হতে পেরেছিল যথাসময়ে পাকিস্তানের গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যরা। হামলার পরিকল্পনার গোপণ তথ্য পেয়ে পাল্টা হুমকি দিয়ে বার্তা পাঠায় পাক গোয়েন্দা সংস্থা। ফলে বিপজ্জনক পথে পা বাড়ানো আগেই পিছু হটে ভারত।

শেয়ারবাজারনিউজ/মু

আপনার মন্তব্য

Top