আজ: বুধবার, ২১ এপ্রিল ২০২১ইং, ৮ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৭ই রমজান, ১৪৪২ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

১৩ এপ্রিল ২০১৯, শনিবার |


ঘুরে দাঁড়ানোর প্রত্যাশায় বিনিয়োগকারীরা

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: আতঙ্ক আর হতাশার আরেকটি সপ্তাহ পার করেছে পুঁজিবাজার। দরপতন হতে হতে বর্তমানে ঢাক স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) প্রাইস আর্নিং রেশিও (পিই) ১৪ এর ঘরে নেমে এসেছে। অবশ্য এতো কম পিই থাকায় বর্তমান বাজার বিনিয়োগ উপযোগী বলে মনে করছেন বাজার সংশ্লিষ্টরা।

ডিএসই সূত্রে জানা যায়, সাপ্তাহিক ব্যবধানে দেশের উভয় পুঁজিবাজারে সূচকের পতন ঘটেছে। সপ্তাহজুড়ে লেনদেন হওয়া ৫ কার্যদিবসের মধ্যে চার দিন কমেছে সূচক। বাকি এক কার্যদিবস সূচক বাড়লেও এর মাত্রা ছিলো সামান্য। এদিকে সূচকের পাশাপাশি কমেছে বেশিরভাগ কোম্পানির শেয়ার দর। আর টাকার অংকেও গত সপ্তাহে লেনদেনের পরিমান কিছুটা কমেছে। আলোচিত সপ্তাহটিতে ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ১ হাজার ৬৭৩ কোটি ৪৯ লাখ ২৫ হাজার ৭৫৫ টাকা। এছাড়া গত সপ্তাহে ডিএসই’র পিই রেশিও দাঁড়িয়েছে ১৪.৪৮ যার তার আগের সপ্তাহে ছিলো ১৫.৯২।

সাপ্তাহিক বাজার বিশ্লেষণে দেখা গেছে, সপ্তাহ শেষে ডিএসই ব্রড ইনডেক্স বা ডিএসইএক্স সূচক কমেছে ২.৪৫ শতাংশ বা ১৩৩.৫২ পয়েন্ট। সপ্তাহের ব্যবধানে ডিএসই-৩০ সূচক কমেছে ২.৩৩ শতাংশ বা ৪৫.৪৯ পয়েন্ট। অপরদিকে শরীয়াহ বা ডিএসইএস সূচক কমেছে ২.৮৫ শতাংশ বা ৩৬.২০ পয়েন্ট। আর সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে তালিকাভুক্ত মোট ৩৫৩টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের শেয়ার লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে দর বেড়েছে ৫২টির কোম্পানির। আর দর কমেছে ২৮০টির, অপরিবর্তিত রয়েছে ১৯টির এবং লেনদেন হয়নি ২টির। এগুলোর ওপর ভর করে গত সপ্তাহে লেনদেন মোট ১ হাজার ৬৭৩ কোটি ৪৯ লাখ ২৫ হাজার ৭৫৫ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। তবে এর আগের সপ্তাহে লেনদেন হয় ২ হাজার ১২ কোটি ৬৬ লাখ ৭৪ হাজার ৮৫০ টাকার। সেই হিসাবে সমাপ্ত সপ্তাহে লেনদেন কমেছে ১৬.৮৫ শতাংশ।

আর সমাপ্ত সপ্তাহে ‘এ’ ক্যাটাগরির কোম্পানির শেয়ার লেনদেন হয়েছে ৮৮.০৯ শতাংশ। ‘বি’ ক্যাটাগরির কোম্পানির লেনদেন হয়েছে ৬.২৮ শতাংশ। ‘এন’ ক্যাটাগরির কোম্পানির লেনদেন হয়েছে ৪.২৭ শতাংশ। ‘জেড’ ক্যাটাগরির লেনদেন হয়েছে ১.৩৫ শতাংশ।

সপ্তাহ শেষে চট্টগ্রাম স্টক এক্সেচঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএসসিএক্স ২৬১.৬৫ পয়েন্ট বা ২.৫৮ শতাংশ কমে সপ্তাহ শেষে দাঁড়িয়েছে ৯ হাজার ৮৭৩ পয়েন্টে। আর সপ্তাহজুড়ে সিএসইতে হাতবদল হওয়ার ২৮৫টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের শেয়ার লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে দর বেড়েছে ৩৫টি কোম্পানির। আর দর কমেছে ২২৮টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২২টির। এগুলোর ওপর ভর করে বিদায়ী সপ্তাহে ১৫৩ কোটি ৬৮ লাখ ২৩ হাজার ৩৪৩ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে।

শেয়ারবাজারনিউজ/মু

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.