আজ: রবিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২১ইং, ৫ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৪ঠা রমজান, ১৪৪২ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

২৩ অক্টোবর ২০২০, শুক্রবার |

মহামারিতে প্রিমিয়াম বেড়েছে তালিকাভুক্ত ৯ বীমা কোম্পানির

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: মহামারি করোনা ভাইরাসের কারণে দীর্ঘ ৬৬দিন বন্ধের মধ্যেও গ্রস প্রিমিয়াম সংগ্রহে প্রবৃদ্ধি হয়েছে লাইফ ও নন-লাইফ বীমা খাতের ১৮টি কোম্পানির। এর মধ্যে ৯টি কোম্পানি পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত রয়েছে। চলতি বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকের (এপ্রিল-জুন) হিসাব প্রকাশ করেছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ সংস্থা (আইডিআরএ)।

আইডিআরএর তথ্য অনুযায়ী দ্বিতীয় প্রান্তিকে লাইফ বীমা খাতের কোম্পানিগুলোর মধ্যে রয়েছে- ন্যাশনাল লাইফ ইন্স্যুরেন্স, মেঘনা লাইফ ইন্স্যুরেন্স, সান লাইফ ইন্স্যুরেন্স, প্রাইম ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স ও ডেল্টা লাইফ ইন্স্যুরেন্স লিমিটেড। আর নন-লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানিগুলো হলো- বাংলাদেশ জেনারেল ইন্স্যুরেন্স, ইসল্যান্ড ইন্স্যুরেন্স, কর্ণফুলী ইন্স্যুরেন্স ও গ্লোবাল ইন্স্যুরেন্স লিমিটেড।

লাইফ বীমা কোম্পানির মধ্যে শীর্ষ স্থানে রয়েছে ন্যাশনাল লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড। কোম্পানিটি এপ্রিল থেকে জুন প্রান্তিকে ১৫৯ কোটি ৫৮ লাখ টাকা গ্রস প্রিমিয়াম সংগ্রহ করেছে। এর আগের প্রান্তিকে অর্থাৎ জানুয়ারি থেকে জুন মাসে সংগ্রহ ছিল ৫৭ কোটি ৪০ লাখ টাকা। প্রথম প্রান্তিকের তুলনায় দ্বিতীয় প্রান্তিকে ন্যাশনাল লাইফ ১০২ কোটি ১৮ লাখ টাকা বা ১৭৮ শতাংশ প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছে।

প্রবৃদ্ধির হারে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে মেঘনা লাইফ ইন্স্যুরেন্স। কোম্পানিটি চলতি বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে ৬৪ কোটি ৮৬ লাখ টাকা প্রিমিয়াম সংগ্রহ করে। এর আগের প্রান্তিকে সংগ্রহ করেছিল ২৮ কোটি ৩৯ লাখ টাকা। অর্থাৎ প্রথম প্রান্তিকের তুলনায় দ্বিতীয় প্রান্তিকে মেঘনা লাইফের ৩৬ কোটি ৪৭ লাখ টাকা বা ১২৮ শতাংশ প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছে।

তৃতীয় স্থানে অবস্থান করছে সান-লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড। চলতি বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে প্রথম প্রান্তিকের তুলনায় কোম্পানিটির ১০ কোটি টাকা বেশি প্রিমিয়াম সংগ্রহ করেছে। কোম্পানিটির প্রবৃদ্ধির হার ১২০ শতাংশ।  জানুয়ারি থেকে মার্চ মাসে কোম্পানিটির মোট প্রিমিয়াম সংগ্রহ ৮ কোটি ৩৩ লাখ টাকা এবং এপ্রিল থেকে জুনে ১৮ কোটি ৩৩ লাখ টাকা।

এছাড়া চলতি বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে প্রাইম ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স প্রথম প্রান্তিকের তুলনায় ২৯ কোটি টাকা বেশি প্রিমিয়াম সংগ্রহ করেছে। কোম্পানিটির প্রবৃদ্ধির হার ৮৭.৫৬ শতাংশ।  জানুয়ারি থেকে মার্চ মাসে কোম্পানিটির মোট প্রিমিয়াম সংগ্রহ ৩৩ কোটি ১৩ লাখ টাকা এবং এপ্রিল থেকে জুনে ৬২ কোটি ১৩ লাখ টাকা।

পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত লাইফ বীমা খাতের আরেক কোম্পানি ডেল্টা লাইফ ইন্স্যুরেন্স প্রথম প্রান্তিকের তুলনায় ৩২ কোটি ১১ লাখ টাকা বেশি প্রিমিয়াম সংগ্রহ করেছে। কোম্পানিটির প্রবৃদ্ধির হার ২৮.৮১ শতাংশ।  জানুয়ারি থেকে মার্চ মাসে কোম্পানিটির মোট প্রিমিয়াম সংগ্রহ ১১১ কোটি ৪৭ লাখ টাকা এবং এপ্রিল থেকে জুনে ১৪৩ কোটি ৫৮ লাখ টাকা।

 

এদিকে, নন-লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানিগুলোর মাত্র ৫টি কোম্পানি দ্বিতীয় প্রান্তিকে প্রবৃদ্ধি করতে পেরেছে। এর মধ্যে ৪টি কোম্পানি পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয়েছে। প্রবৃদ্ধি করা কোম্পানিগুলোর মধ্যে প্রিমিয়াম সংগ্রহে শীর্ষ স্থানে রয়েছে বাংলাদেশ জেনারেল ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড। কোম্পানিটি এপ্রিল থেকে জুন প্রান্তিকে ৩১ কোটি ৪৯ লাখ টাকা গ্রস প্রিমিয়াম সংগ্রহ করেছে। এর আগের প্রান্তিকে অর্থাৎ জানুয়ারি থেকে জুন মাসে সংগ্রহ করেছিল ১৫ কোটি ৫০ লাখ টাকা। প্রথম প্রান্তিকের তুলনায় দ্বিতীয় প্রান্তিকে কোম্পানিটির ১৫ কোটি ৯৯ লাখ টাকা বা ১০৩.১৬ শতাংশ প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছে।

প্রবৃদ্ধির হারের দ্বিতীয় প্রান্তিকে অবস্থানে রয়েছে সিকদার ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড। কোম্পানিটি এপ্রিল থেকে জুন প্রান্তিকে ৮ কোটি ২৪ লাখ টাকা গ্রস প্রিমিয়াম সংগ্রহ করেছে। এর আগের প্রান্তিকে অর্থাৎ জানুয়ারি থেকে জুন মাসে সংগ্রহ করেছিল ৪ কোটি ৯ লাখ টাকা। প্রথম প্রান্তিকের তুলনায় দ্বিতীয় প্রান্তিকে কোম্পানিটির ৪ কোটি ১৫ লাখ টাকা বা ১০১.৬৬ শতাংশ প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছে।

তৃতীয় স্থানে অবস্থান করছে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানি ইসল্যান্ড ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড। কোম্পানিটি এপ্রিল থেকে জুন প্রান্তিকে ৩৭ কোটি ৬৩ লাখ টাকা গ্রস প্রিমিয়াম সংগ্রহ করেছে। এর আগের প্রান্তিকে অর্থাৎ জানুয়ারি থেকে জুন মাসে সংগ্রহ করেছিল ১৯ কোটি ৫০ লাখ টাকা। প্রথম প্রান্তিকের তুলনায় দ্বিতীয় প্রান্তিকে কোম্পানিটির ১৮ কোটি ১৩ লাখ টাকা বা ৯৩ শতাংশ প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছে।

এছাড়া চলতি বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে কর্ণফুলী ইন্স্যুরেন্স প্রথম প্রান্তিকের তুলনায় ১০ কোটি ৭ লাখ টাকা বেশি প্রিমিয়াম সংগ্রহ করেছে। কোম্পানিটির প্রবৃদ্ধির হার ৮২.৭৫ শতাংশ।  জানুয়ারি থেকে মার্চ মাসে কোম্পানিটির মোট প্রিমিয়াম সংগ্রহ ১২ কোটি ১৮ লাখ টাকা এবং এপ্রিল থেকে জুনে ২২ কোটি ২৫ লাখ টাকা।

পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত নন-লাইফ বীমা খাতের আরেক কোম্পানি গ্লোবাল ইন্স্যুরেন্স প্রথম প্রান্তিকের তুলনায় ১২ কোটি ৮৭ লাখ টাকা বেশি প্রিমিয়াম সংগ্রহ করেছে। কোম্পানিটির প্রবৃদ্ধির হার ৫৩.৮৮ শতাংশ।  জানুয়ারি থেকে মার্চ মাসে কোম্পানিটির মোট প্রিমিয়াম সংগ্রহ ২৩ কোটি ৯০ লাখ টাকা এবং এপ্রিল থেকে জুনে ৩৬ কোটি ৭৭ লাখ টাকা।

 

শেয়ারবাজারনিউজ/এম.আর

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.