আজ: বুধবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২২ইং, ২২শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১১ই জমাদিউল আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

১১ জুন ২০১৫, বৃহস্পতিবার |


kidarkar

রোদ-বৃষ্টিতে সতেজ থাকার উপায়!


sotejশেয়ারবাজার ডেস্ক: সকালে প্রখর রোদ। সেই প্রস্তুতি নিয়েই বাইরে বের হলেন। অথচ দুপুরেই আকাশ কালো করে ঝুম বৃষ্টি। পরের দিন আবার এর ঠিক উল্টো। এমন অবস্থা এখন প্রায় প্রতিদিনের। আবহাওয়াটাই এমন। তাই পর্যাপ্ত প্রস্তুতি নিয়েই বাইরে বের হতে হবে। সেক্ষেত্রে সবচেয়ে আগে আসে পোশাক নির্বাচনের বিষয়টি। পোশাক বাছাইয়ের বেলাতে সবারই সচেতনতা প্রয়োজন। বিশেষ করে তরুণদের। পথেঘাটে তারাই বেশি বিপত্তিতে পড়ে। এ সময় পোশাক চিন্তাভাবনা করে পরা উচিত। কেননা বৃষ্টির পাশাপাশি গরমও থাকে। সে কারণে সুতির কাপড় পরা ভালো। তাতে করে গরম কম লাগবে। তবে পায়জামা বা সালোয়ারটা গাঢ় রঙের হলে ভালো হয়। কাদা-পানি ছিটকে এলেও সহজে বোঝা যাবে না। মেয়েরা ফতুয়াও পরতে পারেন। কিন্তু জিন্সের সঙ্গে না পরাই ভালো। জিন্স ভিজলে ভারী হয়ে যায়। ফলে হাঁটা-চলায় অসুবিধা হতে পারে। যে ধরনের হোক না কেন পোশাকটি যেন আরামদায়ক হয় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।
টি-শার্ট, ফতুয়া এ সময় তরুণদের জন্য উপযুক্ত পোশাক। বৃষ্টির দিনে গাঢ় রঙকেই প্রাধান্য দেওয়া উচিত। ভেজা শরীরের সঙ্গে পোশাক এঁটে থাকলেও খারাপ দেখাবে না। যে ধরনের প্যান্টে স্বচ্ছন্দ বোধ করেন, তাই পরতে পারেন। তবে গ্যাবার্ডিন কাপড়ের প্যান্ট, ট্রাউজার পরা যেতে পারে। জিন্স এড়িয়ে যাওয়াই ভালো, বৃষ্টির দিনে শুকানোর ঝামেলা থাকে। খেয়াল রাখবেন, পোশাকটির রং পাকা কি না। তা না হলে বৃষ্টির পানিতে পোশাকের রং মিশে একাকার হয়ে যাবে। টি-শার্ট, ফতুয়া, হাতাকাটা শার্ট অবশ্যই যেন সুতির হয়।
এবার আসা যাক ব্যাগ নির্বাচনে। এ সময় পানিরোধক ব্যাগ ব্যবহার করাই ভালো। রেকসিন, ছাতার কাপড়ের ব্যাগ ব্যবহার করা যেতে পারে। তবে চামড়ার ব্যাগ ব্যবহার করা উচিত নয়। প্রয়োজনীয় আনুষঙ্গিক জিনিস নিতে ভুলবেন না। ব্যাগে অবশ্যই ছাতা, ছোট তোয়ালে, চিরুনি ও প্লাস্টিকের বাড়তি ব্যাগ রাখবেন।

এ সময়টাতে সাজসজ্জায়ও সচেতন হতে হবে। মেয়েরা চুল পনিটেইল, ফ্রেঞ্চ বেণি কিংবা খোঁপা করতে পারেন। চুলটা যেন খোলা না থাকে। বৃষ্টিতে চুল ভিজলে বাসায় ফিরে অবশ্যই ভালোভাবে শুকিয়ে নিতে হবে। এ সময়টাতে হালকা সাজ সবার জন্য মানানসই। যখনই বের হোন না কেন, প্রয়োজনীয় কাগজপত্র আলাদা প্লাস্টিকের ব্যাগে রেখে দিন। ক্যালকুলেটর কিংবা মোবাইল ফোন রাখার জন্য পানিরোধক মোড়ক আগেই কিনে রাখুন। রাস্তায় অনেক সময় ছাতা নিয়ে চলাচলে অসুবিধা হয়। সে ক্ষেত্রে রেইনকোট কিনে নিতে পারেন। এতে করে পুরো শরীর এমনকি সঙ্গে থাকা ব্যাগটিও বৃষ্টি থেকে রক্ষা পাবে। কাদা ছিটকে এসে পোশাক নষ্ট হওয়ার ভয়ও থাকে না।

পায়ে স্যান্ডেলটা কী পরবেন, তা নিয়েও তো কম ঝক্কি পোহাতে হয় না। এ সময় প্লাস্টিক, পিভিসির পানিরোধক স্যান্ডেল পরা উচিত। একদম চটি না পরে হালকা উঁচু স্যান্ডেলই ভালো। এতে করে কাদা-ময়লা পানি পায়ের ভেতরে ঢুকবে না। চামড়া, রেকসিনের তৈরি স্যান্ডেল, জুতো এড়িয়ে যাওয়া ভালো। ছেলেরা প্লাস্টিকের জুতো পরতে পারেন। একটু খোলা স্যান্ডেল পরুন, যাতে বাতাস ঢুকতে পারে।


আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.