আজ: শনিবার, ০২ জুলাই ২০২২ইং, ১৮ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১লা জিলহজ, ১৪৪৩ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

১৯ ডিসেম্বর ২০২০, শনিবার |



kidarkar

লেনদেন ও শেয়ার দরে পতন শেয়ারবাজারে: মূলধন ফিরেছে ১৪ হাজার কোটি টাকা

শেয়ারবাজার ডেস্ক : দেশের উভয় শেয়ারবাজারে গত সপ্তাহে উত্থানের মাধ্যমে লেনদেন শেষ হয়েছে। সপ্তাহটিতে শেয়ারবাজারের সব সূচক বেড়েছে। তবে বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দর এবং টাকার পরিমাণে লেনদেন কমেছে। সপ্তাহিটিতে উভয় শেয়ারবাজারে প্রায় ১৪ হাজার কোটি টাকার বাজার মূলধন ফিরেছে। বিদায়ী সপ্তাহে উভয় শেয়ারবাজারে ১৩ হাজার ৮৮০ কোটি ৮৬ লাখ ৯৬ হাজার টাকা মূলধন ফিরেছে।

গত সপ্তাহে ডিএসইতে সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস লেনদেন শেষে বাজার মূলধন দাঁড়ায় ৪ লাখ ১৬ হাজার ৯৪৭ কোটি ২৩ লাখ ৭১ হাজার টাকায়। আর সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবস লেনদেন শুরুর আগে বাজার মূলধন ছিল ৪ লাখ ১০ হাজার ৬১৭ কোটি ৭৩ লাখ ৩৫ হাজার টাকায়। অর্থাৎ সপ্তাহের ব্যবধানে ডিএসইর বিনিয়োগকারীরা ১৩ হাজার ৮৮০ কোটি ৮৬ লাখ ৯৬ হাজার টাকা মূলধন ফিরেছে।

সপ্তাহের ব্যবধানে ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ১৩.৩৭ পয়েন্ট বা ০.২৬ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫ হাজার ১০৮.০৩ পয়েন্টে। অপর সূচকগুলোর মধ্যে শরিয়াহ সূচক ১০.৫৭ পয়েন্ট বা ০.৯২ শতাংশ এবং ডিএসই-৩০ সূচক ২৩.৪৬ পয়েন্ট বা ১.৩২ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে যথাক্রমে ১১৮০.০৯ পয়েন্টে এবং ১৭৯৮.৬১ পয়েন্টে।

গত সপ্তাহে চার কার্যদিবসে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) ৩ হাজার ৬৫৯ কোটি ৮২ লাখ ৯২ হাজার ৪১৪ টাকার লেনদেন হয়েছে। যা আগের সপ্তাহ থেকে ৫১৩ কোটি ৫৮ লাখ ৩১ হাজার ৪১৯ টাকা বা ১২.৩১ শতাংশ কম হয়েছে। আগের সপ্তাহে লেনদেন হয়েছিল ৪ হাজার ১৭৩ কোটি ৪১ লাখ ২৩ হাজার ৮৩৩ টাকার।

গত সপ্তাহে গড় লেনদেন হয়েছে ৯১৪ কোটি ৯৫ লাখ ৭৩ হাজার ১০৩ টাকার। আগের সপ্তাহে গড় লেনদেন হয়েছিল ৮৩৪ কোটি ৬৮ লাখ ২৪ হাজার ৭৬৭ টাকার। অর্থাৎ সপ্তাহের ব্যবধানে ডিএসইতে গড় লেনদেন ৮০ কোটি ২৭ লাখ ৪৮ হাজার ৩৩৮ টাকা কম হয়েছে।

বিদায়ী সপ্তাহে ডিএসইতে মোট ৩৬২টি প্রতিষ্ঠান শেয়ার ও ইউনিট লেনদেনে অংশ নিয়েছে। প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে দর বেড়েছে ১১৫টির বা ৩১.৭৬ শতাংশের, কমেছে ১৮২টির বা ৫০.২৭ শতাংশের এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৬৫টির বা ১৭.৯৫ শতাংশের শেয়ার ও ইউনিট দর।

অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) বিদায়ী সপ্তাহে টাকার পরিমাণে লেনদেন হয়েছে ২১৩ কোটি ৫২ লাখ ৭৪ হাজার ৬৪০ টাকার। আর আগের সপ্তাহে লেনদেন হয়েছিল ১৬৭ কোটি ১৮ লাখ ৮০ হাজার ৬৭০ টাকার। অর্থাৎ সপ্তাহের ব্যবধানে সিএসইতে লেনদেন ৪৬ কোটি ৩৩ লাখ ৯৩ হাজার ৯৭০ টাকা বা ২৭.৭১ শতাংশ বেড়েছে।

সপ্তাহটিতে সিএসইর সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ৬৭.২৬ পয়েন্ট বা ০.৪৬ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৪ হাজার ৬৭০.০৩ পয়েন্টে। সিএসইর অপর সূচকগুলোর মধ্যে সিএসসিএক্স ৪৭.৭৩ পয়েন্ট বা ০.৫৪ শতাংশ, সিএসই-৩০ সূচক ১০৫.৪৬ পয়েন্ট বা ০.৯০ শতাংশ, সিএসই-৫০ সূচক ১১.৪০ পয়েন্ট বা ১.০৮ শতাংশ এবং সিএসআই ৯.১৪ পয়েন্ট বা ০.৯৫ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে যথাক্রমে ৮ হাজার ৮৩৭.৫৬ পয়েন্টে, ১১ হাজার ৮৫০.৪৯ পয়েন্টে, ১ হাজার ৭০.১৬ পয়েন্টে এবং ৯৭১.১২ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে।

সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস লেনদেন শেষে বাজার মূলধন দাঁড়ায় ৩ লাখ ৪৬ হাজার ২৬৯ কোটি ৮৪ লাখ ৭০ হাজার টাকায়। আর সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবস লেনদেন শুরুর আগে বাজার মূলধন ছিল ৩ লাখ ৩৮ হাজার ৭১৮ কোটি ৪৮ লাখ ১০ হাজার টাকায়। অর্থাৎ সপ্তাহের ব্যবধানে সিএসইর বিনিয়োগকারীরা ৭ হাজার ৫৫১ কোটি ৩৬ লাখ ৬০ হাজার টাকা মূলধন ফিরে পেয়েছে।

সপ্তাহজুড়ে সিএসইতে ৩১৩টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট লেনদেনে অংশ নিয়েছে। প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে ৯০টির বা ২৮.৭৫ শতাংশের দর বেড়েছে, ১৬১টির বা ৫১.৪৪ শতাংশের কমেছে এবং ৬২টির বা ১৯.৮৮১ শতাংশের দর অপরিবর্তিত রয়েছে।

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.