আজ: বৃহস্পতিবার, ০৭ জুলাই ২০২২ইং, ২৩শে আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৬ই জিলহজ, ১৪৪৩ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

২২ ডিসেম্বর ২০২০, মঙ্গলবার |



kidarkar

আবরার হত্যা মামলায় পরবর্তী সাক্ষ্যগ্রহণ ২৭ ডিসেম্বর

শেয়ারবাজার ডেস্ক: বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় পরবর্তী সাক্ষ্যগ্রহণের জন্য আগামী ২৭ ডিসেম্বর দিন ধার্য করেন আদালত।

মঙ্গলবার (২২ ডিসেম্বর) মামলাটির উচ্চ আদালতের বদলি সংক্রান্ত আদেশ দাখিলের জন্য দিন ধার্য ছিল। তবে এদিন আসামি পক্ষের আইনজীবীরা আবেদন উত্থাপিত হয়নি এই মর্মে অ্যাডভোকেট সনদ দাখিল করেন। শুনানি শেষে ঢাকার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল-১ এর বিচারক আবু জাফর মো. কামরুজ্জামানের আদালত নতুন এ দিন ধার্য করেন।

এনিয়ে মামলাটিতে ৬০ জন সাক্ষীর মধ্যে ৪০ জনের সাক্ষ্য শেষ হয়েছে।

গত ১৪ সেপ্টেম্বর একই আদালত আসামিদের অব্যাহতির আবেদন নাকচ করে চার্জ গঠনের আদেশ দেন। গত ১৩ জানুয়ারি আবরার হত্যা মামলার নথিটি বিচারের জন্য প্রস্তুত হওয়ায় মহানগর দায়রা জজ আদালতে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছিলেন ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম (সিএমএম) আদালত। এরপর মহানগর দায়রা জজ আদালত দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল-১ পাঠানোর আদেশ দেন।

২০১৯ সালের ১৩ নভেম্বর আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় ২৫ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্রটি আদালতে জমা দেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ঢাকা মহানগর (দক্ষিণ) গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) পরিদর্শক ওয়াহেদুজ্জামান।

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ৭ অক্টোবর ভোরে বুয়েটের শেরেবাংলা হলের সিঁড়ি থেকে আবরার ফাহাদের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। ফেসবুকে ভারতবিরোধী স্ট্যাটাস দেওয়ায় শিবিরের রাজনীতি করার অভিযোগ তুলে তাকে ডেকে নিয়ে বন্ধ ঘরে পিটিয়ে মেরেছিলেন বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। এ ঘটনায় আবরারের বাবা বরকত উল্লাহ চকবাজার থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলায় ১৯ জনের নাম উল্লেখ করা হয়।

গত ৬ ডিসেম্বর আসামি পক্ষের আইনজীবীদের অনাস্থার পর উচ্চ আদালতের বদলি সংক্রান্ত আদেশ দাখিলের জন্য ২২ ডিসেম্বর দিন করেন আদালত। তবে গত ২১ ডিসেম্বর এ মামলার বিচারিক আদালতের পরিবর্তন চেয়ে করা আবেদন উত্থাপিত হয়নি মর্মে খারিজ করে দেন হাইকোর্ট।

এর আগে, গত ৩ ডিসেম্বর নিরপেক্ষ বিচার নিয়ে আসামিদের ন্যায়বিচার পাওয়ার আশঙ্কা থাকায় কারাগারে আটক ২২ আসামির পক্ষে তাদের আইনজীবী আবেদনের মাধ্যমে আদালতের প্রতি অনাস্থা দেন। একইসঙ্গে মামলাটি বদলির বিষয়ে বদলি মিসিং দায়েরের জন্য উচ্চ আদালতে সময় প্রার্থনা করেন। পরে এ বিষয়ে শুনানির জন্য আদালত ৬ ডিসেম্বর দিন ধার্য করেন।

এ মামলায় মোট ৬০ সাক্ষীর মধ্যে ৪০ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ হয়েছে। গত ৫ অক্টোবর এ মামলার বাদী ও আবরারের বাবা বরকতুল্লাহর আদালতে সাক্ষ্য দেন। এর মধ্য দিয়ে মামলাটির সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু হয়। গত ১৫ সেপ্টেম্বর এ মামলার অভিযোগ গঠন করেন আদালত। ১৩ নভেম্বর মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ডিবির পরিদর্শক ওয়াহিদুজ্জামান ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেন। অভিযোগপত্রে ২৫ আসামিকে অভিযুক্ত করা হয়।

প্রসঙ্গত, ২০১৯ সালের ৬ অক্টোবর রাতে বুয়েটের শেরে বাংলা হলের দ্বিতীয় তলার সিঁড়ি থেকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করা হয় আবরার ফাহাদকে। পরে তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ওই ঘটনার পরের দিন ৭ অক্টোবর চকবাজার থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন আবরারের বাবা বরকত উল্লাহ।

শেয়ারবাজার নিউজ/মি

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.