আজ: রবিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ইং, ১৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৮ই জমাদিউল আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

১৪ জুন ২০১৫, রবিবার |


kidarkar

২১ কোম্পানি নিয়ে দুশ্চিন্তায় বিনিয়োগকারীরা


dse copyশেয়ারবাজার রিপোর্ট: সামগ্রিক বাজার পরিস্থিতি মন্দার কারণে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ২১ কোম্পানির শেয়ার দর ফেসভ্যালুর নিচে নেমে এসেছে। আর এ নিয়ে দুশ্চিন্তায় রয়েছেন বিনিয়োগকারীরা। এসব কোম্পানিতে বিনিয়োগ করার কারণে এখন প্রতিনিয়ত ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছে তারা। বাইব্যাক আইন বাস্তবায়ন করা হলে বিনিয়োগকারীদের এ ক্ষতির মুখে পড়তে হতো না বলে মনে করছেন বাজার সংশ্লিষ্টরা। তাই বিনিয়োগকারী তথা পুঁজিবাজারের স্বার্থে  বাইব্যাক আইন প্রণয়ন করা উচিত বলে মনে করেন তারা।

তথ্যানুসন্ধানে জানা যায়,  গত সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস পর্যন্ত ৮ খাতের ২১ কোম্পানির শেয়ার দর ফেস ভ্যালুর নিচে অবস্থান করছে। কোম্পানিগুলো হলো: ব্যাংক খাতের এক্সিম ব্যাংক, ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামি ব্যাংক, আইসিবি ইসলামি ব্যাংক, এনসিসি ব্যাংক, প্রিমিয়ার ব্যাংক এবং স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংক লিমিটেড। সিরামিক খাতের শাইনপুকুর সিরামিক। আর্থিক খাতের প্রিমিয়ার লিজিং। খাদ্য ও আনুসাঙ্গিক খাতের ফাইন ফুড, মেঘনা কনডেন্সড মিল্ক, মেঘনা পেট, শ্যামপুর সুগার, এবং ঝিলবাংলা সুগার। তথ্য ও প্রযুক্তি খাতের ইনফরমেশন সার্ভিসেস নেটওয়ার্ক। ওষুধ ও রসায়ন খাতের বেক্সিমকো সিনথেটিক এবং ইমাম বাটন। বস্ত্র খাতের দুলামিয়া কটন, ম্যাকসন্স স্পিনিং, মেট্রো স্পিনিং, সোনারগাঁ টেক্সটাইল লিমিটেড এবং ভ্রমণ ও অবকাস খাতের বিডি সার্ভিস লিমিটেড।

বাজার পরিসংখ্যানে দেখা যায়, বৃহস্পতিবার ১১ জুন ব্যাংক খাতের কোম্পানি এক্সিম ব্যাংকের শেয়ার দর ৯.০০ টাকা থেকে ৯.৩০ টাকায় উঠানামা করে সর্বশেষ ৯.০০ টাকায় লেনদেন হয়। গত এক মাসে কোম্পানিটির সর্বনিম্ন দর ছিল ৯.১০ টাকা এবং সর্বোচ্চ দর দাঁড়ায় ৯.৯০ টাকা।। ২০১৪ সমাপ্ত অর্থবছরে বিনিয়োগকারীদের ১০ শতাংশ স্টক ডিভিডেন্ড দিয়েছিলো। আলোচিত সময়ে কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.৯২ টাকা, শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) দাঁড়িয়েছে ১৭.৯০ টাকা এবং শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহের পরিমাণ (এনওসিএফপিএস)দাঁড়িয়েছে ২.৪১ টাকা।

এদিকে ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামি ব্যাংকের শেয়ার দর ৮.৭০ টাকা থেকে ৮.৯০ টাকায় উঠানামা করে সর্বশেষ ৮.৭০ টাকায় লেনদেন হয়। গত এক মাসে কোম্পানিটির সর্বনিম্ন দর ছিল ৮.৭০ টাকা এবং সর্বোচ্চ দাঁড়ায় ৯.৪০ টাকা। ৩১ ডিসেম্বর ২০১৪ সমাপ্ত অর্থবছরে বিনিয়োগকারীদের ১০ শতাংশ স্টক ডিভিডেন্ড দিয়েছিলো। সে সময়ে কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.৫৮ টাকা, শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) দাঁড়িয়েছে ২০.২৯ টাকা এবং শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহের পরিমাণ (এনওসিএফপিএস)দাঁড়িয়েছে ২৮.৫৯ টাকা।

আইসিবি ইসলামি ব্যাংকের শেয়ার দর ৩.৯০ টাকা থেকে ৪.১০ টাকায় উঠানামা করে সর্বশেষ ৪.০০ টাকায় লেনদেন হয়। গত এক মাসে কোম্পানিটির সর্বনিম্ন দর ছিল ৩.৯০ টাকা এবং সর্বোচ্চ দাঁড়ায় ৪.১০ টাকা। ক্রমাগত লোকসানে থাকায় ৩১ ডিসেম্বর ২০১৪ সমাপ্ত অর্থবছরে বিনিয়োগকারীদের কোনো প্রকার ডিভিডেন্ড দিতে পারেনি। এ সময়ে কোম্পানির শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ০.৪৩ টাকা, শেয়ার প্রতি দায় দাঁড়িয়েছে ১৪.৪৯ টাকা এবং শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহের পরিমাণ (এনওসিএফপিএস) দাঁড়িয়েছে নেগেটিভ ১৪.৪৯ টাকা।

এনসিসি ব্যাংকের শেয়ার দর ৯.৮০ টাকা থেকে ১০.২০ টাকায় উঠানামা করে সর্বশেষ ৯.৯০ টাকায় লেনদেন হয়। গত এক মাসে কোম্পানিটির সর্বনিম্ন দর ছিল ৯.৮০ টাকা এবং সর্বোচ্চ দাঁড়ায় ১০.৭০ টাকা। কোম্পানিটি ৩১ ডিসেম্বর ২০১৪ সমাপ্ত অর্থবছরে বিনিয়োগকারীদের ১০ শতাংশ স্টক ডিভিডেন্ড দিয়েছিলো। সে সময়ে কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.৮৬ টাকা, শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) দাঁড়িয়েছে ১৭.৮৮ টাকা এবং শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহের পরিমাণ (এনওসিএফপিএস)দাঁড়িয়েছে ২.১৯ টাকা।

প্রিমিয়ার ব্যাংকের শেয়ার দর ৮.৯০ টাকা থেকে ৯.১০ টাকায় উঠানামা করে সর্বশেষ ৮.৯০ টাকায় লেনদেন হয়। গত এক মাসে কোম্পানিটির সর্বনিম্ন দর ছিল ৮.৫০ টাকা এবং সর্বোচ্চ দাঁড়ায় ৯.৮০ টাকা। কোম্পানিটি ৩১ ডিসেম্বর ২০১৪ সমাপ্ত অর্থবছরে বিনিয়োগকারীদের ১০ শতাংশ স্টক ডিভিডেন্ড দিয়েছিলো। আলোচিত সময়ে কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.৫৫ টাকা, শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) দাঁড়িয়েছে ১৫.৮৭ টাকা এবং শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহের পরিমাণ (এনওসিএফপিএস)দাঁড়িয়েছে ১.৫৬ টাকা।

স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংকের শেয়ার দর ৯.৯০ টাকা থেকে ১০.৩০ টাকায় উঠানামা করে সর্বশেষ ৯.৯০ টাকায় লেনদেন হয়। গত এক মাসে কোম্পানিটির সর্বনিম্ন দর ছিল ৯.৯০ টাকা এবং সর্বোচ্চ দাঁড়ায় ১০.৭০ টাকা। কোম্পানিটি ৩১ ডিসেম্বর ২০১৪ সমাপ্ত অর্থবছরে বিনিয়োগকারীদের ১৫ শতাংশ স্টক ডিভিডেন্ড দিয়েছিলো। আলোচিত সময়ে কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ২.১৩ টাকা, শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) দাঁড়িয়েছে ১৭.৩৪ টাকা এবং শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহের পরিমাণ(এনওসিএফপিএস)দাঁড়িয়েছে ৬.১৩ টাকা।

অন্যদিকে সিরামিক খাতরে শাইনপুকুর সিরামিকের শেয়ার দর ৯.১০ টাকা থেকে ৯.৬০ টাকায় উঠানামা করে সর্বশেষ ৯.৩০ টাকায় লেনদেন হয়। গত এক মাসে কোম্পানিটির সর্বনিম্ন দর ছিল ৮.৮০ টাকা এবং সর্বোচ্চ দাঁড়ায় ৯.৭০ টাকা। কোম্পানিটি লোকসানে থাকায় ৩১ ডিসেম্বর ২০১৪ সমাপ্ত অর্থবছরে বিনিয়োগকারীদের কোনো প্রকার ডিভিডেন্ড দিতে পারেনি। সে সময়ে কোম্পানির শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ০.০২ টাকা।

আর্থিক খাতের প্রিমিয়ার লিজিংয়ের শেয়ার দর ৭.৬০ টাকা থেকে ৭.৯০ টাকায় উঠানামা করে সর্বশেষ ৭.৭০ টাকায় লেনদেন হয়। গত এক মাসে কোম্পানিটির সর্বনিম্ন দর ছিল ৬.৯০ টাকা এবং সর্বোচ্চ দাঁড়ায় ৭.৯০ টাকা। কোম্পানিটি ৩১ ডিসেম্বর ২০১৪ সমাপ্ত অর্থবছরে লোকসান দেখিয়ে বিনিয়োগকারীদের ডিভিডেন্ড থেকে বিঞ্চিত করেছে। সে সময়ে কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.০৭ টাকা, শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) দাঁড়িয়েছে ১১.৩৫ টাকা এবং শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহের পরিমাণ(এনওসিএফপিএস)দাঁড়িয়েছে নেগেটিভ ৮.৯৫ টাকা।

খাদ্য ও আনুষঙ্গিক খাতের ৫টি কোম্পানি ফেস ভ্যালুর নিচে রয়েছে। সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে ফাইন ফুডের শেয়ার দর ৮.৮০ টাকা থেকে ১০.০০ টাকায় উঠানামা করে সর্বশেষ ৯.৭০ টাকায় লেনদেন হয়। গত এক মাসে কোম্পানিটির সর্বনিম্ন দর ছিল ৮.২০ টাকা এবং সর্বোচ্চ দাঁড়ায় ১০.০০ টাকা। কোম্পানিটি ৩০ জুন ২০১৪ সমাপ্ত অর্থবছরে লোকসানে থাকায় বিনিয়োগকারীদের কোন প্রকার ডিভিডেন্ড দেয়নি। আলোচিত সময়ে কোম্পানির শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ০.৪৭৫ টাকা।

মেঘনা কনডেন্সড মিল্কের শেয়ার দর ৬.৮০ টাকা থেকে ৬.৮০ টাকায় উঠানামা করে সর্বশেষ ৬.৮০ টাকায় লেনদেন হয়। গত এক মাসে কোম্পানিটির সর্বনিম্ন দর ছিল ৬.৮০ টাকা এবং সর্বোচ্চ দাঁড়ায় ৭.৯০ টাকা। কোম্পানিটি প্রকাশিত প্রথম, দ্বিতীয় এবং তৃতীয় প্রান্তিকে ক্রমাগত লোকসানে থাকায় এবারও বিনিয়োগকারীদের ডিভিডেন্ড থেকে বঞ্চিত করতে পারে এমন আশঙ্কা করছেন বাজার সংশ্লিষ্টরা। গত এক মাসে কোম্পানিটির সর্বনিম্ন দর ছিল ৫.৩০ টাকা এবং সর্বোচ্চ দাঁড়ায় ৬.০০ টাকা। কোম্পানিটি ক্রমাগত লোকসান দেখিয়ে বিনিয়োগকারীদের প্রাপ্য ডিভিডেন্ড থেকে বঞ্চিত করে যাচ্ছে।

শ্যামপুর সুগারের শেয়ার দর ৬.০০ টাকা থেকে ৬.১০ টাকায় উঠানামা করে সর্বশেষ ৬.০০ টাকায় লেনদেন হয়। গত এক মাসে কোম্পানিটির সর্বনিম্ন দর ছিল ৫.৯০ টাকা এবং সর্বোচ্চ দাঁড়ায় ৬.৭০ টাকা।  কোম্পানিটি প্রকাশিত প্রথম, দ্বিতীয় এবং তৃতীয় প্রান্তিকে ক্রমাগত লোকসানে রয়েছে।

ঝিলবাংলা সুগারের শেয়ার দর ৬.৫০ টাকা থেকে ৬.৬০ টাকায় উঠানামা করে সর্বশেষ ৬.৫০ টাকায় লেনদেন হয়। গত এক মাসে কোম্পানিটির সর্বনিম্ন দর ছিল ৫.৯০ টাকা এবং সর্বোচ্চ ৬.৮০ টাকা। এ কোম্পানিটিও ফাইন ফুড, মেঘনা কনডেন্সড মিল্ক, মেঘনা পেট এবং শ্যামপুর সুগারের মতো ধারাবাহিকতা রক্ষা করে বিনিয়োগকারীদের বঞ্চিত করে চলেছে।

তথ্য ও প্রযুক্তি খাতের ইনফরমেশন সার্ভিসেস নেটওয়ার্কের শেয়ার দর ৯.৭০ টাকা থেকে ১০.০০ টাকায় উঠানামা করে সর্বশেষ ৯.৯০ টাকায় লেনদেন হয়। গত এক মাসে কোম্পানিটির সর্বনিম্ন দর ছিল ৯.৪০ টাকা এবং সর্বোচ্চ দাঁড়ায় ১০.৪০ টাকা। বর্তমানে তথ্য ও প্রযুক্তি খাতে ব্যাপক সম্ভাবনা থাকা সত্ত্বেও ক্রমাগত লোকসানে থাকায় ২০১৩-২০১৪ সমাপ্ত অর্থবছরে বিনিয়োগকারীদের কোনো প্রকার ডিভিডেন্ড দিতে পারেনি।

ওষধ ও রসায়ন খাতের বেক্সিমকো সিনথেটিকের শেয়ার দর ৮.০০ টাকা থেকে ৮.২০ টাকায় উঠানামা করে সর্বশেষ ৮.০০ টাকায় লেনদেন হয়। গত এক মাসে কোম্পানিটির সর্বনিম্ন দর ছিল ৭.৫০ টাকা এবং সর্বোচ্চ দাঁড়ায় ৮.৩০ টাকা। লোকসানে থাকায় ২০১৩-২০১৪ সমাপ্ত অর্থবছরে বিনিয়োগকারীদের কোনো প্রকার ডিভিডেন্ড দিতে পারেনি।

ইমাম বাটনের শেয়ার দর ৮.৪০ টাকা থেকে ৯.২০ টাকায় উঠানামা করে সর্বশেষ ৮.৪০ টাকায় লেনদেন হয়। গত এক মাসে কোম্পানিটির সর্বনিম্ন দর ছিল ৯.৮০ টাকা এবং সর্বোচ্চ দাঁড়ায় ৮.২০ টাকা। কোম্পানিটি প্রকাশিত প্রথম, দ্বিতীয় এবং তৃতীয় প্রান্তিকে ক্রমাগত লোকসানে রয়েছে।

বস্ত্র খাতের দুলামিয়া কটনের শেয়ার দর ৭.১০ টাকা থেকে ৭.৮০ টাকায় উঠানামা করে সর্বশেষ ৭.৮০ টাকায় লেনদেন হয়। গত এক মাসে কোম্পানিটির সর্বনিম্ন দর ছিল ৮.৪০ টাকা এবং সর্বোচ্চ দাঁড়ায় ৭.১০ টাকা। কোম্পানিটি ক্রমাগত লোকসান দেখিয়ে বিনিয়োগকারীদের প্রাপ্য ডিভিডেন্ড থেকে বঞ্চিত করে যাচ্ছে।

ম্যাকসন্স স্পিনিংয়ের শেয়ার দর ৯.১০ টাকা থেকে ৯.৫০ টাকায় উঠানামা করে সর্বশেষ ৯.১০ টাকায় লেনদেন হয়। গত এক মাসে কোম্পানিটির সর্বনিম্ন দর ছিল ৮.৭০ টাকা এবং সর্বচ্চ দাঁড়ায় ১০.০০ টাকা। কোম্পানিটি ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৪ সমাপ্ত অর্থবছরে বিনিয়োগকারীদের ৫ শতাংশ স্টক ডিভিডেন্ড দিয়েছিলো। আলোচিত সময়ে কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৭৩ টাকা, শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) দাঁড়িয়েছে ১৯.৭৮ টাকা এবং শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহের পরিমাণ (এনওসিএফপিএস)দাঁড়িয়েছে ০.৯২ টাকা।

মেট্রো স্পিনিংয়ের শেয়ার দর ৯.৭০ টাকা থেকে ১০ টাকায় উঠানামা করে সর্বশেষ ৯.৮০ টাকায় লেনদেন হয়। গত এক মাসে কোম্পানিটির সর্বনিম্ন দর ছিল ৯.৩০ টাকা এবং সর্বোচ্চ দাঁড়ায় ১০.৭০ টাকা। কোম্পানিটি ডিস্মেবর ২০১৪ সমাপ্ত অর্থবছরে বিনিয়োগকারীদের ৫ শতাংশ স্টক ডিভিডেন্ড দিয়েছিলো। আলোচিত সময়ে কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০৮৪ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) দাঁড়িয়েছে ১৮.২৯ টাকা।

সোনারগাঁ টেক্সটাইল লিমিটেডের শেয়ার দর ৭.৮০ টাকা থেকে ৮.০০ টাকায় উঠানামা করে সর্বশেষ ৮.০০ টাকায় লেনদেন হয়। গত এক মাসে কোম্পানিটির সর্বনিম্ন দর ছিল ৭.৮০ টাকা এবং সর্বচ্চ দাঁড়ায় ৮.১০ টাকা। কোম্পানিটি ক্রমাগত লোকসান দেখিয়ে বিনিয়োগকারীদের প্রাপ্য ডিভিডেন্ড থেকে বঞ্চিত করে যাচ্ছে।

সর্বশেষ ভ্রমণ ও অবকাশ খাতের বিডি সার্ভিস লিমিটেডের বর্তমান শেয়ারের  দর ৬.৩০ টাকা। কোম্পানিটি সর্বশেষ ডিসেম্বর ২০১৪ সমাপ্ত অর্থবছরে কোনো প্রকার ডিভিডেন্ড দেয়নি।

 

শেয়ারবাজারনিউজ/মু/সা

 


আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.