আজ: মঙ্গলবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২২ইং, ২১শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১১ই জমাদিউল আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

১৭ জুন ২০১৫, বুধবার |


kidarkar

সুস্বাস্থ্যের জন্য ডিম!


Egg03শেয়ারবাজার ডেস্ক: ডিমের মূল্যায়ন করা হয় আদর্শ খাবার হিসেবে। তাৎক্ষণিকভাবে শরীরের দুর্বলতা দূর করতে ডিমের কথা আগে আসে। প্রতি ১০০ গ্রাম ডিমে পাবেন শক্তি ১৫৫ ক্যালরি, ফ্যাট ১১ গ্রাম, কোলেস্টরল ৩৭৩ মিলিগ্রাম, সোডিয়াম ১২৪ মিলিগ্রাম, পটাসিয়াম ১২৬ মিলিগ্রাম, কার্বোহাইড্রেট ১.১ গ্রাম, ভিটামিন ১ গ্রাম। এগুলো আমাদের দেহের জন্য খুবই উপকারী।

এবার অপনাদের জানাবো সুস্বাস্থ্যের জন্য ডিমের উপকারিতা সম্পর্কে।

* ডিমের প্রধান খাদ্য উপাদান হলো ভিটামিন এ। ভিটামিন এ রেটিনায় আলো শুষে নিতে সহায়তা করে, কর্নিয়ার পাশের মেমব্রেনকে রক্ষা করে এবং রাতকানার ঝুঁকি কমায়।

* ডিমে থাকা লৌহ দেহ কোষে অক্সিজেন বহক করে সতেজ রাখে। এটি রক্ত শূন্যতা থেকে বাঁচায়।

* ডিমে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন-ডি রয়েছে, যা দেহের প্রয়োজনীয় শক্তি যোগাতে সাহায্য করে।

* ডিমে রয়েছে কার্বনহাইডেট, যা দেহের জন্য খুবই জরুরি।

* বয়ঃসন্ধিকালে, গর্ভবস্থায় এবং যেসব মা বাচ্চাদের বুকের দুধ খাওয়ান তাদের দেহের ক্যালসিয়ামের চাহিদা মেটাতে প্রতিদিন ডিম খাওয়া উচিৎ।

* শারীরিক সুস্থতা বজায় রাখতে ৪০ বছর এর পর কুসুম ছাড়া ডিম খেতে পারেন।

* যারা নিয়মিত শরীরচর্চা করেন বা ব্যায়ামাগারে যান তাদের জন্য ডিম খাওয়া খুবই ভালো।

* ওজন কমাতে ও হজম শক্তি বারাতে নিয়মিত ডিম খেতে পারেন। শুধু ডিম নয় ডিমের তৈরি খাবার ও খেতে পারেন ।

* যেসব নারী এক সপ্তাহে কমপক্ষে ৬ টি ডিম খায়, তাদের ব্রেস্ট ক্যানসার এর ঝুঁকি ৪৪% কমে যায়।

* ডিমের কুসুমে কোলিন নামক প্রোটিন থাকে, যা মস্তিস্ক গঠনে ভুমিকা রাখে। তাই গর্ভবতী ও বুকের দুধ খাওয়ানো মায়ের খাদ্য তালিকায় ডিমের কুসুমের উপস্থিতি বাঞ্ছনীয়।

* ডিমে থাকা সেলেনিয়াম দেহের কোষ ধ্বংস রোধ করে।

শেয়ারবাজারনিউজ/অ


আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.