আজ: সোমবার, ১৯ এপ্রিল ২০২১ইং, ৬ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৬ই রমজান, ১৪৪২ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

০৮ এপ্রিল ২০২১, বৃহস্পতিবার |

ফ্লোর প্রাইস প্রত্যাহারের চাপে বড় পতন শেয়ারবাজারে

শেয়ারবাজার ডেস্ক : বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) ৬৬ কোম্পানির উপর থেকে ফ্লোর প্রাইস (সর্বনিম্ন দর সীমা) তুলে নেওয়ার নির্দেশনায় দেশের উভয় শেয়ারবাজারে আজ বৃহস্পতিবার বড় পতন ঘটেছে।

গতকাল বুধবার বিএসইসি ৬৬ কোম্পানির উপর থেকে ফ্লোর প্রাইস তুলে নেওয়ার সিদ্ধান্তে আজ লেনদেন হওয়া ৩৪৮টি কোম্পানির মধ্যে ২৬৪টির দর পতন হয়েছে। দর বেড়েছে মাত্র ৪৭টির। বাকি ৩৫টির দর অপরিবর্তিত রয়েছে।

আজ ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৮২.৫৫ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ৫ হাজার ২৫৪.৭৭ পয়েন্টে। ডিএসইর অপর সূচকগুলোর মধ্যে শরিয়াহ সূচক ১৬.৫০ পয়েন্ট এবং ডিএসই-৩০ সূচক ২০.৭৯ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে যথাক্রমে ১১৯৭.৬৬ পয়েন্টে এবং ১৯৯০.৩৯ পয়েন্টে।

আজ ডিএসইতে ৪৭৫ কোটি ৮৭ লাখ টাকার লেনদেন হয়েছে। যা আগের দিন থেকে ১০৬ কোটি ৬৫ লাখ টাকা কম। আগের দিন লেনদেন হয়েছিল ৫৮২ কোটি ৫২ লাখ টাকার।

অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ১৯৭.৮১ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১৫ হাজার ২৩৭.০৯ পয়েন্টে। সিএসইতে আজ ২১৭টি প্রতিষ্ঠান লেনদেনে অংশ নিয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ৪৪টির দর বেড়েছে, কমেছে ১৫৪টির আর ১৯টির দর অপরিবর্তিত রয়েছে। সিএসইতে ২৪ কোটি ৬০ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে।

১৭ উত্তর “ফ্লোর প্রাইস প্রত্যাহারের চাপে বড় পতন শেয়ারবাজারে”

  • Anonymous says:

    Lenden jokon 2000 koti er kase silo tokon floor tola ucit silo

  • Nasir says:

    jokon lenden 2000 koti taka hossilio tokon floor tola ucit silo……

  • Islam says:

    Floor price need to be continued for the sack of mini investor from next trading date. Otherwise BSEC would be blamed for that. It’s totally wrong decision.

  • Md Islam says:

    I hate to Shbli Shaheb for wrong decision regarding floor price withdrawn of 66 securities. Please go to previous state for mini investor.

  • মোঃ শাহাদাত হোসেন says:

    বার বার নিয়ম পরিবরতন করা হয় ক্ষুদ্র ও গরীব বিনিয়োগকারীদের মারার জন্য এই নিয়ম করা হয়েছে। যখন লেনদেন ২০০০ কোটি টাকার উপরে ছিল তখন কেন ফ্লোর প্রাইস উঠানো হয়নি। এই করোনার মাঝে গরিবকে মারার জন্য এই নিয়ম করা হল।

  • Mahmud Iftekhar Khan says:

    এমন একটি সময়ে এ সিদ্ধান্ত এর সাথে যুক্ত (ফ্লোর প্রাইস উঠানো) সকলকে জেলে ঢুকানো হোক।এটি বিনিয়োগ কারীদের জন্য করা হয় নি। নিজেদের স্বার্থে করা হয়েছে। আল্লাহ তায়ালা তোমাদের কঠিন বিচার করবেন ইনশাআল্লাহ। ্্ঃ্্্্ঃ্্্ঃ্্্্ঃ্্ঃ্্্্্্্্ঃ্্্ঃ্্্্ঃ্্্ঃ্্

  • Rafiq says:

    বাংলাদেশের দুর্নীতির সবচেয়ে বড় সেক্টর শেয়ারবাজার এখান থেকে হাজার হাজার কোটি টাকা মন্ত্রী-এমপিরা কামিয়ে নিচ্ছে

  • কায়সার says:

    এসএস স্টীল রেকর্ড ও এজিএম করার পর প্রায় চার মাস হয়ে গেল ঘোষিত নগদ লভ্যাংশ দিচ্ছে না। এগুলি দেখার কেউ নেই। আর নগদ লভ্যাংশ কিভাবে দিবে সেটাও উল্লেখ করেনি। অবশ্যই যেন ইএফটিএন সিস্টেমে ব্যাংক হিসাবে দেয় সে ব্যাপারে উদ্যোগ নেয়ার জন্য বিএসইসিকে অনুরোধ করছি।

  • কায়সার says:

    এসএস স্টীল রেকর্ড ডেট ও এজিএম করার পর প্রায় চার মাস হয়ে গেল ঘোষিত নগদ লভ্যাংশ দিচ্ছে না। এগুলি দেখার কেউ নেই। আর নগদ লভ্যাংশ কিভাবে দিবে সেটাও কোম্পানি উল্লেখ করেনি। অবশ্যই যেন ইএফটিএন সিস্টেমে ব্যাংক হিসাবে দেয় সে ব্যাপারে উদ্যোগ নেয়ার জন্য বিএসইসিকে অনুরোধ করছি।

  • আজিজুল ইসলাম আনসারী says:

    ব‍্যাঙ্ক লুটের পর এখন শেয়ার বাজারে লুটপাটের সড়যন্ত্র।

  • Rafiq says:

    ভাই আমি গত তিন বছর আগে যবে অবধি বসুন্ধরা পেপার মার্কেটে এসেছে তখন 182 টাকা করে 2000 শেয়ার ক্রয় করি যার প্রিমিয়ামসহ কাট অফ প্রাইস নির্ধারণ করা হয় 82 টাকা।গত এক বছর যাবত ফ্লোর প্রাইজ 39.90 টাকায় এটা পড়ে আছে।ফ্লোর প্রাইস না থাকলে হয়তো শেয়ারটি 5 থেকে 10 টাকায় নেমে আসতো।এমতাবস্থায় শেয়ার বাজারে নতুন আশা কোম্পানি গুলোর কাট অফ প্রাইস নির্ধারণের ক্ষেত্রে জেনারেল ইনভেস্টরদের মতামত গ্রহণ কতটা জরুরী একবার ভাবুন!এই একটি শেয়ার থেকে কোম্পানিটি 500 কোটি টাকার ওপর দুর্নীতি করেছে এভাবে 350 টির মতো কোম্পানি রয়েছে শেয়ারবাজারে।প্রায় প্রতিটি কোম্পানি এখানে বড় অঙ্কের দুর্নীতির সাথে সম্পৃক্ত।আর এভাবেই বাংলাদেশের ধ্বনির সংখ্যা বিশ্বের বুকে বৃদ্ধি পাচ্ছে সর্বোচ্চহারে।আর এটাই হলো আমাদের দুর্নীতিতে জিরো টলারেন্সের সোনার বাংলাদেশ।।😃😃😃

  • ইমরান says:

    আমাদের শেয়ার মার্কেট খুবই বৈচিত্র্যময় ।তার চেয়ে বেশি বৈচিত্র্যময় মার্কেটের নীতি নির্ধারকরা। যার কারণে আমাদের মতো অতি সাধারণ বিনিয়োগকারীরা বারবার …বাঁশ নিয়ে বাড়ি যাই।

  • আহা says:

    বিনিয়োগকারিরাও খুবই অস্থির চিত্তের
    নূতন শেয়ার বাজারে আসার সঙ্গে সঙ্গে অস্থির
    হয়ে যায় শুরুই করে 50% বৃদ্ধি করে
    তার পর থেকে টানা টানি মনে হয় কি যেন হারিয়ে যাচ্ছে।
    সুবিধা ভোগ লুটেরাদের তো কপাল খুলে যায়।
    কোম্পানির ভালো মন্দ /লাভ লস দেখে তো
    শুরু করতে হয়।
    তাহলে লুটেরাদের সুবিধা কমবে বিনিয়োগকারিরাও বাঁচবে। ঠিক কিনা?

  • জালাল says:

    চোর বাটপারে ছেয়েগেছে, দেশে কোন ভালো লোক নাই।

  • Sk datta says:

    Akhon je floor Price tule nilo.amora tu safe mone kore share kinichi akhon tu 10% kome gelo sei taka ke dibe. Tarporeo sale koete pari na. Aro je porbe na ke bolbe. Ai vabe khoti kora dik hoy ni

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.