আজ: শনিবার, ১২ জুন ২০২১ইং, ৩০শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১লা জিলকদ, ১৪৪২ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

১৯ জানুয়ারী ২০১৫, সোমবার |


kidarkar

শুরুতেই ন্যাশনাল ফিডের চমক

National-Feedশেয়ারবাজার ডেস্ক: লেনদেন শুরুর প্রথম দিনেই  চমক দেখিয়েছে পুঁজিবাজারে সদ্য তালিকাভুক্ত হওয়া বিবিধ খাতের কোম্পানি ন্যাশনাল ফিড মিলস লিমিটেড । আজ সোমবার সকাল সাড়ে ১০টায় ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) আনুষ্ঠিানিকভাবে শুরু হয় এ কোম্পানির লেনদেন।  ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

বিশ্লেষণে দেখা গেছে, শুরুতে ডিএসইতে ন্যাশনাল ফিডের শেয়ার দর  ৪৪.৯০ টাকায়  ওপেন হলেও সর্বশেষ লেনদেনটি হয় ৪২.৩০ টাকায়। দিনভর এ কোম্পানির শেয়ার দর ৪০ টাকা থেকে ৪৯ টাকায় ওঠানামা করে। দিনশেষে এ কোম্পানির ৮১ লাখ ২৭ হাজার ১৮৭টি শেয়ার মোট ৩৬ কোটি ১৩ লাখ ৯৩ হাজার টাকায় লেনদেন হয়। তবে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) এখনো শুরু হয়নি এ কোম্পানির লেনদেন।

এদিকে পুঁজিবাজারে কোম্পানিটি ‘এন’ ক্যাটাগরি অধীনে লেনদেন শুরু করে।কোম্পানিটির ডিএসই ট্রেডিং কোড  ‘NFML’ এবং ডিএসই কোম্পানি কোড ৯৯৬৪০। আর সিএসইতে এ কোম্পানির স্ক্রীপ কোড ‘NFML’ এবং কোম্পানির স্ক্রীপ আইডি ৩২০২০।

এর আগে ন্যাশনাল ফিড কোম্পানিকে গত ৬ জানুয়ারি ডিএসইতে এবং ২৭ নভেম্বর সিএসইতে তালিকাভুক্তির সিদ্ধান্ত হয়।

জানা যায়, গত ২৭ নভেম্বর আবেদনকারীদের মধ্যে শেয়ার বরাদ্দ দেয়ার জন্য কোম্পানিটির আইপিও লটারির ড্র অনুষ্ঠিত হয়। আর আইপিওতে বরাদ্দ পাওয়া শেয়ার বিনিয়োগকারীদের বেনিফিশিয়ারি ওনার্স (বিও) অ্যাকাউন্টে গত ১৩ই জানুয়ারি জমা হয়েছে।

এ কোম্পানিটির আইপিওতে মোট ৮৪৪ কোটি ৪৬ লাখ ৩০ হাজার টাকার আবেদন জমা পড়ে। যা উত্তোলনকৃত অর্থের ৪৬.৯১ গুণ। এর মধ্যে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ৫৫০ কোটি ৮২ লাখ ৫০ হাজার টাকার, ক্ষতিগ্রস্ত বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ৬১ কোটি ৮৩ লাখ ৪৫ হাজার টাকার, এনআরবি বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ৩৩ কোটি ৬৫ লাখ ৩৫ হাজার টাকার এবং মিউচ্যুয়াল ফান্ড খাতের বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ১৯৮ কোটি ১৫ লাখ টাকার আবেদন জমা পড়ে।

কোম্পানিটির আইপিওতে আবেদন ২৬ অক্টোবর ৩০ অক্টোবর পর্যন্ত গ্রহণ করা হয়। তবে প্রবাসী বিনিয়োগকারীদের জন্য এ সুযোগ ছিলো ৮ নভেম্বর পর্যন্ত।

ন্যাশনাল ফিড শেয়ারবাজার থেকে ১৮ কোটি টাকা উত্তোলনের জন্য ১ কোটি ৮০ লাখ শেয়ার ছেড়েছে। এ জন্য প্রতিটি শেয়ারের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ১০ টাকা। ৫০০টি শেয়ারে মার্কেট লট নির্ধারণ করা হয়েছিল।

আইপিওর মাধ্যমে উত্তোলিত অর্থ দিয়ে কোম্পানিটি ব্যবসায় সম্প্রসারণ, ব্যাংক ঋণ পরিশোধ, চলতি মূলধন এবং আইপিও খরচ খাতে ব্যয় করবে।

৩১ ডিসেম্বর ২০১৩ সমাপ্ত অর্থবছরে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.৮৬ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভি) হয়েছে ১৪.৫৫ টাকা।

কোম্পানিটির ইস্যু ব্যবস্থাপনার দায়িত্ব পালন করছে আইসিবি ক্যাপিটাল ম্যানেজমেন্ট লিমিটেড এবং পিএলএফএস ইনভেস্টমেন্টস লিমিটেড।

 

শেয়ারবাজার/অ

 

 

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.