আজ: রবিবার, ১৩ জুন ২০২১ইং, ৩০শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১লা জিলকদ, ১৪৪২ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

০৬ মে ২০২১, বৃহস্পতিবার |


kidarkar

নিয়্যালকো নিয়ে বিনিয়োগকারীদের ব্যাপক আগ্রহ, আইপিও আবেদন ১৬-২০ মে

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: শেয়ারবাজারে আসার প্রক্রিয়ায় থাকা দেশের প্রথম স্মলক্যাপ কোম্পানি নিয়্যালকো এলোয়েস লিমিটেড নিয়ে বিনিয়োগকারীদের আগ্রহের শেষ নেই। বাজারে প্রথম এসএমই কোম্পানি হওয়ায় সকল স্তরের বিনিয়োগকারীই শতভাগ রপ্তানিমুখি কোম্পানিটিতে বিনিয়োগে আগ্রহ প্রকাশ করছেন। তবে সকল বিনিয়োগকারী নয়; শুধু কোয়ালিফাইড ইনভেস্টর ওফারের (কিউআইও) মাধ্যমেই অর্থ সংগ্রহ করবে প্রতিষ্ঠানটি। অর্থাৎ এলিজেবল ইনভেস্টর বা যোগ্য বিনিয়োগকারীরাই শুধু শেয়ারের জন্য আবেদন করতে পারবেন।

ইস্যু ম্যানেজার কোম্পানি সূত্রে জানা গেছে, নিয়্যালকোর শেয়ার নিয়ে বিনিয়োগকারীদের মধ্যে ব্যাপক আগ্রহ তৈরি হয়েছে। তারা প্রতিদনই ফোন করে এ বিষয়ে জানতে চাচ্ছেন।

কোম্পানি সূত্রে জানা গেছে, নিয়্যালকো এলোয়েসে প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) আবেদন শুরু হবে আগামী ১৬ মে সকাল ১০টায়। আবেদন গ্রহণ করা হব ২০ মে বিকেল ৫টা পর্যন্ত।

কোম্পানিটি ১০ টাকা অভিহিত মূল্যে ৭৫ লাখ শেয়ার ইস্যু করে সাড়ে ৭ কোটি টাকা মুলধন সংগ্রহ করবে। কোয়ালিফাইড ইনভেস্টর অফারের মাধ্যমে কোম্পানিটি যোগ্য বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে এই টাকা সংগ্রহ করবে।

কোম্পানির পক্ষ থেকে যোগ্য বিনিয়োগকারীর একটি ধারনাও দেয়া হয়েছে। তারা জানিয়েছে, মার্চেন্ট ব্যাংকার্স অ্যান্ড প্রোটফোলিও ম্যানেজার, অ্যাসেট ম্যানেজার, মিউচুয়াল ফান্ডস অ্যান্ড কালেকটিভ ইনভেস্টমেন্ট স্কিমস (সিআইএস), স্টক-ডিলারস, ফাইন্যান্সিয়াল ইনস্টিটিউটস, ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি, ফান্ড ম্যানেজার, অলটারনেটিভ ইনভেস্টমেন্ট ফান্ডস, এমন বিদেশি বিনিয়োগকারী যাদের কমিশনের আওতাধীন যে কোনো সিকিউরিটিতে একাউন্ট রয়েছে, রিকোগনাইজড প্রফিডেন্ড ফান্ডস এবং আবাসিক ও অনাবাসিক বাংলাদেশি বিনিয়োগকারী যাদের তালিকাভূক্ত সিকিউরিটিতে কমপক্ষে ১০ মিলিয়ন টাকা রয়েছে। এছাড়া যেসব ব্যক্তি বিনিয়োগকারীর তালিকাভূক্ত সিকিউরিটিতে অন্তত এক কোটি টাকা রয়েছে তারা নিয়্যালকোর আইপিওতে আবেদন করতে পারবেন।

জানা গেছে, কোম্পানিটি সংগ্রহ করা টাকা দিয়ে ভূমি উন্নয়ন, যন্ত্রপাতি ক্রয় ও আইপিও খরচ খাতে ব্যয় করবে।

এর আগে শেয়ারবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) কোম্পানিটিকে এসএমই সেক্টরে দীর্ঘমেয়াদী অর্থায়নের লক্ষ্যে অনুমোদন দেয়য়।

৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২০ অনুযায়ী কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) ৯১ পয়সা। এই সময় কোম্পানির শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) ছিল ১২ টাকা ৪৩ পয়সা।

কোম্পানিটির ইস্যু ম্যানেজার হিসেবে কাজ করছে এমটিবি ক্যাপিটাল লিমিটেড।

কোম্পানি সূত্রে জানা গেছে, নিয়্যালকো শতভাগ রপ্তানিমুখি প্রতিষ্ঠান। কোম্পানির পণ্যের তালিকায় রয়েছে ব্রোঞ্জ গান মেটাল, ফসফরাস ব্রোঞ্জ, লিডেড ব্রোঞ্জ, অ্যালুমিনিয়াম ব্রোঞ্জ, ম্যাঙ্গানিজ ব্রোঞ্জ, স্যান্ড কাস্ট ব্রাস (এসসিবি), হাই টেনসিল ব্রাস (এইচটিবি), ডাই কাস্ট ব্রাস (ডিসিবি), মাস্টার এলোয়েস, ফসফরাস কপার ইত্যাদি। এসব পণ্য জাপান, জামার্নিসহ বিশ্বের অন্যান্য দেশে রপ্তানি হয়।

কোম্পানির নাম নির্বাচনের ক্ষেত্রে উৎপাদিত পণ্যকে গুরুত্ব দেয়া হয়েছে। কোম্পানিটি বলছে,
Nickel থেকে NI, Aluminium থেকে AL এবং Copper থেকে CO নিয়ে NIALCO নামকরণ করা হয়েছে।

২০১৫ সালের ৫ জুলাই উৎপাদনে আসা নিয়্যালকো এলোয়েস লিমিটেডের সহযোগী প্রতিষ্ঠান মেরিন সেফটি সিস্টেম। প্রতিষ্ঠানটি বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ও রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর যৌথ উদ্যোগে একাধিকবার জাতীয় রপ্তানি ট্রফি (স্বর্ণ) পেয়েছে।

প্রতিষ্ঠানটি বলছে, পার্শ্ববর্তী দেশ ভারত এসএমই খাতে বেশ এগিয়েছে। চীনের ৩০টিরও বেশি এসএমই কোম্পানি মূল মার্কেটে অন্তর্ভূক্ত হয়েছে। বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে শেয়ারবাজারে নিয়্যালকো প্রথম হওয়ায় বিনিয়োগকারীরা এটিকে ইতিবাচকভাবেই নেবে। এছাড়া নিয়্যালকোর সহযোগী প্রতিষ্ঠান মেরিন সেফটি সিস্টেমের অর্জন যেকোনো বিনিয়োগকারীকে আকৃষ্ট করবে।

তালিকাভূক্ত হলে কোম্পানিটি চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) লেনদেন করবে।

৫ উত্তর “নিয়্যালকো নিয়ে বিনিয়োগকারীদের ব্যাপক আগ্রহ, আইপিও আবেদন ১৬-২০ মে”

  • সাইদুল ইসলাম খান মাজলিশ (তুষার) says:

    এমনিতেই কম শেয়ার এর কোম্পানী গুলোর শেয়ার গুঁটি কয়েক লোকের হাতে বন্দি। আর এখানে ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীদের অংশ গ্রহনের সুযোগ দেয়া হয় নাই। বড় বিনিয়োগকারীরা বাজারে শেয়ারের সরবরাহ সংকট করে মূল্য বৃদ্ধি করে ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীদের কাছে বিক্রি করে বের হয়ে যাবে। আইপিও তে বড় ও প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের সুযোগ না দিয়ে শুধু মাত্র ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীদের সুযোগ দিলে বাজার নিয়ন্ত্রণ করা সহজ হত।

  • Anonymous says:

    এসএমই মার্কেটে বিনিয়োগ খুব রিস্কি। যারা মার্কেট খুব ভাল বুঝে ও অধিক রিস্ক নিতে সক্ষম তাদেরই এই মার্কেটে বিনিয়োগ উচিত। তা না হলে ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীগণ ক্ষতিগ্রস্ত হবেন।

  • Najmus Sakib says:

    আমার কিছুই বলার নেই!

  • Anonymous says:

    এটা অনুমোদন দেয়া মোটেও ঠিক হয়নি।গেইমলার টাকা ওঠিয়ে লাপাত্তাদিবে ফলে শেয়ার মার্কেটের আবারো ধ্বস হবে নিঃসন্দেহে।এটা একটা গভীর ষড়যন্ত্র। আমারমতে এখানে ডিসিসন মেকারের সুক্ষ একটা কারসাজির প্রয়াস মাত্র। বিষেশ করে এ দেশের প্রেক্ষা পটে।এবং মার্কেট গভীরতা হ্রাস পাবে ও ঝুঁকিবহুল হবে।

  • Moloy Das says:

    Amra Choto Ar Olpo Puzir Biniog Karik Tai Choto Companite Biniog Korte Pari Na . Etai Ki Thik Niom ?

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

kidarkar