আজ: শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১ইং, ৪ঠা আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১০ই সফর, ১৪৪৩ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

০৭ জুন ২০২১, সোমবার |



kidarkar

‘নেতিবাচক প্রভাব নেই, বাজার সংশোধন হয়েছে’

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: গতকাল রোববার দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) টাকার পরিমানে যে লেনদেন হয়েছে তা ছিলো গত ১০ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ। ওইদিন প্রধান সূচক সামান্য কমলেও সামগ্রিকভাবে বাজার নিয়ে বেশ ইতিবাচক মনোভাব তৈরি হয় বিনিয়োগকারীদের মধ্যে। ফলে বাজারে সেই ধারাবাহিকতা থাকবে এমন প্রত্যাশা ছিলো বিনিয়োগকারীদের।

কিন্তু সপ্তাহের দ্বিতীয় কার্যদিবস সোমবার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) সূচকের ব্যাপক পতন হয়েছে। একই সাথে লেনদেনে অংশ নেয়া অধিকাংশ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দর কমেছে। গতকাল ২ হাজার ৬৬৯ কোটি ৩৮ লাখ টাকার লেনদেন হলেও আজ হয়েছে ২ হাজার ৮৩ কোটি ২৮ লাখ টাকা।

তবে সূচক ও লেনদেন কমলেও এটাকে স্বাভাবিক বলে মনে করছেন শেয়ারবাজার সংশ্লিষ্টরা। বরং গতকালের উত্থানকে বাজেটের প্রভাব বলে মনে করছেন তারা।

বিষয়টি নিয়ে বাংলাদেশ মার্চেন্ট ব্যাংকার্স অ্যাসোসিয়েশনের (বিএমবিএ) প্রেসিডেন্ট ছায়েদুর রহমান শেয়ারবাজারনিউজকে বলেন, শেয়ারবাজারে গতকাল যে লেনদেন হয়েছিলো তা বাজেটের প্রভাবে হয়েছে। আজ সূচক কমেছে বলে এটা নিয়ে চিন্তিত হওয়ার কিছু নেই। প্রফিট টেকিংয়ের কারণে এমনটা হয়েছে। আমি বলবো বাজারে নেতিবাচক কোনো প্রভাব নেই।

ডিএসইর সাবেক প্রেসিডেন্ট ও বর্তমান পরিচালক মো. রকিবুর রহমান শেয়ারবাজারনিউজকে বলেন, জাতীয় সংসদে শেয়ারবাজার নিয়ে অর্থমন্ত্রীর দূরদর্শী একটি চিন্তার প্রতিফলন উঠে এসেছে। এর প্রভাব বাজারে দেখা গেছে। এ জন্য গতকাল লেনদেন বেড়েছে। আজ সূচক আর লেনদেন যতোটুকু কমেছে তা অস্বাভাবিক নয়; বরং এটা খুবই স্বাভাবিক। এটাকে বাজার সংশোধন বলা যায়।

তবে সেল প্রেশারে সূচক ব্যাপক কমেছে বলে মনে করছেন কিছু বিনিয়োগকারী। নাম প্রকাশ না করার শর্তে একজন বিনিয়োগকারী বলেন, একটি কোম্পানির শেয়ারে আজ প্রচন্ড পরিমানে সেল প্রেশার ছিলো। ফলে সূচকের পতন হয়েছে।

বাজার বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে, সোমবার দিনশেষে ডিএসই’র প্রধান সূচক আগের দিনের চেয়ে ৬২ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ৫ হাজার ৯৭৫ পয়েন্টে। শরিয়াহ সূচক দশমিক ৯ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ১ হাজার ২৮৯ পয়েন্টে এবং ডিএসই–৩০ সূচক ২৭ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ২ হাজার ১৯৫ পয়েন্টে।

দিনভর লেনদেন হওয়া ৩৬৭ টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ৯৮ টির, দর কমেছে ২৪২ টির এবং দর অপরিবর্তিত রয়েছে ২৭ টির।

ডিএসইতে টাকার পরিমাণে লেনদেন ২ হাজার ৮৩ কোটি ২৮ লাখ টাকা টাকার লেনদেন হয়েছে। যা আগের দিন থেকে ৫৮৬ কোটি ১০ টাকা কম। আগের দিন লেনদেন হয়েছিল ২ হাজার ৬৬৯ কোটি ৩৮ লাখ টাকার।

অপরদিকে, চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ১৯১ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১৭ হাজার ৩১৫ পয়েন্টে।

সিএসইতে ৩০০টি প্রতিষ্ঠান লেনদেনে অংশ নিয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ৮৬টির দর বেড়েছে, কমেছে ১৮৭টির আর ২৭টির দর অপরিবর্তিত রয়েছে। সিএসইতে ৯০ কোটি ৬৭ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে।

২ উত্তর “‘নেতিবাচক প্রভাব নেই, বাজার সংশোধন হয়েছে’”

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.