আজ: বৃহস্পতিবার, ০৭ জুলাই ২০২২ইং, ২৩শে আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৬ই জিলহজ, ১৪৪৩ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

৩১ অক্টোবর ২০২১, রবিবার |



kidarkar

‘শেয়ারবাজারের পরিধি ও গভীরতা বাড়াতে ট্রেজারি বন্ডের লেনদেন চালু দরকার’

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: শেয়ারবাজারের আরো বৈচিত্র্যময়, পরিধি ও গভীরতা বোড়ানোর জন্য শেয়ারবাজারে সরকারি সিকিউরিটিজের লেনদেন চালু করা দরকার ছিল। সিকিউরিটিজ ও বন্ডের জন্য দেশে একটি দ্বিতীয় বাজারের চাহিদা অর্থনীতির সবসময়ই ছিল। আর এই যুগেই আমার আছি। সুতরাং বিষয়টিকে চূড়ান্ত ভাবে এগিয়ে যাওয়ার জন্য শেয়ারবজারে সরকারি সিকিউরিটিজের লেনদেন করা খুব দরকার বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যন্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) কমিশনার অধ্যাপক ড. শেখ শামসুদ্দিন আহমেদ।

রোববার (৩১ অক্টোবর) ভার্চুয়াল প্ল্যাটফর্মে সিএসইতে ট্রেজারি বন্ডের (সরকারি সিকিউরিটিজ) পরীক্ষামূলকভাবে লেনদেনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

এ সময়ে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) চেয়ারম্যান আসিফ ইব্রাহিম। এছাড়া অনুষ্ঠানে অর্থমন্ত্রণালয়, বিএসইসি, সিএসই, সিডিবিএল, বাংলাদেশ ব্যাংক, বিভিন্ন ব্রোকারেজ হাউজ, মার্চেন্ট ব্যাংক ও অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট কোম্পানির প্রতিনিধি ও ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন।

ড. শেখ শামসুদ্দিন আহমেদ বলেন, দেশের শেয়ারবাজারে পাইলটিংয়ের আওতায় বিভিন্ন মেয়াদি ৪টি সরকারি সিকিউরিটিজের (ট্রেজারি বন্ড) লেনদেন শুরু হয়েছে। এটি আমাদের শেয়ারবাজারের জন্য মাইলফলক ও দুর্দান্ত বিষয়। কারণ আমাদের প্রচুর সরকারি বন্ড রয়েছে। তবে তা কিছু মানুষের কাছে মজুদ রয়েছে। তাই সাধারণ মানুষ যাতে লেনদেন করতে পারে সে লক্ষ্যে শেয়ারবজারে সরকারি সিকিউরিটিজ চালু করা উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, আমরা নভেম্বরের প্রথম সপ্তাহের মধ্যে আনুষ্ঠানিকভাবে সম্পূর্ণরূপে এই প্রোগ্রামটি শুরু করতে সক্ষম হব বলে আশা করছি। আমাদের এখনও এক সপ্তাহ সময় আছে। আমি সেই অপেক্ষায় আছি। এ কাজের জন্য স্টক এক্সচেঞ্জে কিছু সফটওয়্যার ডেভেলপমেন্ট প্রয়োজন। আমি নিশ্চিত যে, আপনাদের মধ্যে কেউ কেউ সেই বিষয়ে কাজ করেছেন। আমি আগামী সপ্তাহের মধ্যে আপনাদের সকলের একটি চমৎকার প্রস্তুতি কামনা করছি। নিশ্চিত ও চূড়ান্তভাবে এগিয়ে যাওয়ার জন্য সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের পক্ষ থেকে সকল সহযোগিতা আপনাদের নিশ্চিত করা হবে।

শামসুদ্দিন আহমেদ আরো বলেন, শেয়ারবাজারে সরকারি সিকিউরিটিজের লেনদেন পুরোপুরিভাবে চালু করার আগে প্রশিক্ষণের প্রয়োজন। সকল স্টেকহোল্ডাররা যাতে এ বিষয়ে প্রশিক্ষণ নিতে পোরেন সে জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে হবে।

বিএসইসি’র কমিশনার বলেন, শেয়ারবাজারে সরকারি সিকিউরিটিজ চালু করার জন্য সংশ্লিষ্ট সকল পক্ষকে কঠোর পরিশ্রম করতে হয়েছে। এর জন্য আমি আবারও সবাইকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি। আজকের অনুষ্ঠানে সিএসইর চেয়ারম্যান, অর্থ মন্ত্রণালয়, বাংলাদেশ ব্যাংক, স্টক এক্সচেঞ্জ, সিডিবিএলসহ সকল স্টেকহোল্ডারদের পেয়ে আমি আনন্দিত।

অনুষ্ঠানে সিএসই চেয়ারম্যান আসিফ ইব্রাহীম স্বাগত বক্তব্যে বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকী উপলক্ষ্যে “মুজিববর্ষের অঙ্গীকার, উন্নয়ন-অর্থায়নের উৎস হবে পুঁজিবাজার” এই স্লোগানকে সামনে রেখে, বঙ্গবন্ধু সোনার বাংলার যে স্বপ্ন দেখেছিলেন, তাঁর সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমরা সেদিকে এগিয়ে যাচ্ছি। এখন আমরা উন্নয়নশীল দেশে উন্নীত হয়েছি। ২০৪১ সালের মধ্যে আমাদের উন্নয়নশীল দেশ থেকে উন্নত দেশে উন্নীত হওয়ার স্বপ্ন দেখছি। এই স্বপ্ন পূরণের জন্য আমাদের প্রয়োজন অত্যন্ত দক্ষ, বলিষ্ঠ ও শক্তিশালী পুঁজিবাজার।

তিনি বলেন, সরকারের দ্বারা এককভাবে এসডিজি অর্জন করা সম্ভব নয়। এসডিজি অর্জনে আমাদের সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে। ২০৩০ সালের মধ্যে এসডিজিতে অর্থায়নের জন্য বাংলাদেশের ৯২৮.৪৮ বিলিয়ন মার্কিন ডলার অতিরিক্ত অর্থায়নের প্রয়োজন হবে। মানি মার্কেট এই বাড়তি অর্থের যোগান দিতে পারবে না । এই অতিরিক্ত অর্থ জোগানের সবচেয়ে ভালো উৎস হলো ক্যাপিটাল মার্কেট।

গত ১৪ অক্টোবর ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে ১৬ বছর পর সরকারি ট্রেজারি বন্ডের লেনদেন পুনরায় শুরু হয়েছে। ডিএসইর ট্রেডিং সিস্টেম ব্যবহার করে ট্রেজারি বন্ডের প্রথম ট্রেডিং নিয়ে পরীক্ষা করা হয়েছে। সিএসইতে Large Scale Piloting এর আওতায় বিভিন্ন মেয়াদি ৪টি সরকারি সিকিউরিটিজের লেনদেন আজ শুরু হবে। এটি আমাদের পুঁজিবাজারের জন্য একটি অসাধারণ মাইলফলক। বিনিয়োগকারীরা এই নতুন স্থির আয়ের পণ্যটির ট্রেডিং শুরু হওয়ার জন্য দীর্ঘ অপেক্ষা করেছে। এটি সব ধরনের বিনিয়োগকারীদের জন্য উন্মুক্ত হওয়া উচিত।

প্রসঙ্গত, ‘এ’ ক্যাটাগরিতে সিএসই’র ডেবট বোর্ডের অনুমতি সাপেক্ষে বাংলাদেশ ব্যাংকের ৪টি ট্রেজারি বন্ড পরীক্ষমূলক লেনদেন হয়েছে। ট্রেজারি বন্ডগুলোর নাম হলো- “02 YEARS BGTB 08072022”, “10 YEARS BGTB 20012026”, “10 YEARS BGTB 20072026” ও “10 YEARS BGTB 15022022”।

১ টি মতামত “‘শেয়ারবাজারের পরিধি ও গভীরতা বাড়াতে ট্রেজারি বন্ডের লেনদেন চালু দরকার’”

  • N says:

    Sharebazare china biniyog Korar jonno ekti Noton index Korbe,eta Kobe korbe news Koren.

    Dse mobile app a 20 din na dhokle password cancel hoye jai,abar noton password nite hoi,eta ekta jamela,password jate shobshomoi active thake,news koren.

    Strategic investor ra market er unnoyon a ki kaj kortese news koren.

    India te 1992 theke short sell ase,kinto dse te ekhono onomodon dei nai,down market a against the trend trade kora lage eta khob risky,short sell er onomodon jate taratari dei news koren.

    Short sell bangladesh gajet a kobe prokash korbe news koren,ajke to 2.5 year holo.down market a short sell chara bebsha kora jai na,eta jate taratari dei,news koren.komishon eto slow kaj korle bazar agabe kivabe.

    Digital booth ei jinish ta ki,brokarage house er sathe eiter parthokko ki,news koren.

    Short sell bangladesh gajet a kobe prokash korbe news koren,ajke to 2.5 year holo.down market a short sell chara bebsha kora jai na,eta jate taratari dei,news koren.

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.