আজ: সোমবার, ২৯ নভেম্বর ২০২১ইং, ১৪ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২২শে রবিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

১৪ নভেম্বর ২০২১, রবিবার |



kidarkar

প্রথম প্রান্তিকে আয় বেড়েছে জেএমআই সিরিঞ্জের

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: চলতি ২০২১-২২ অর্থবছরের প্রথম প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর) আয় বেড়েছে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত দেশের শীর্ষস্থানীয় চিকিৎসা সরঞ্জাম উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান জেএমআই সিরিঞ্জেস অ্যান্ড মেডিক্যাল ডিভাইসেস লিমিটেড (জেএসএমডিএল)-এর। রবিবার প্রতিষ্ঠানটির পরিচালনা পর্ষদের ২২৫তম সাধারণ সভা শেষে এ তথ্য জানানো হয়।

এ বছরের জুলাই থেকে সেপ্টেম্বর সময়ের অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী, জেএসএমডিএল-এর শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে শূন্য দশমিক ৮৬ টাকা, গত অর্থবছরের একই সময় যা ছিলো শূন্য দশমিক ৮০ টাকা।
চলতি অর্থবছরের প্রথম প্রান্তিকে জেএসএমডিএল-এর শেয়ার প্রতি সমন্বিত সম্পদ (এনএভি) হয়েছে ১২৩ টাকা ৫৫ পয়সা আর শেয়ারপ্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে শূন্য দশমিক ৮০ টাকা।
এ বছরের জুলাই থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সময়ে মোট ৩৭ কোটি ৮০ লাখ টাকার পণ্য বিক্রয় করেছে জেএসএমডিএল, যা আগের অর্থবছরের একই সময়ের চেয়ে সাত কোটি ৭৭ লাখ টাকা বেশি।

বাড়তি বিক্রির তুলনায় শেয়ার প্রতি আয় বেশি না বাড়ার বিষয়ে জানতে চাইলে প্রতিষ্ঠানটির কোম্পানি সচিব মোহাম্মদ তারেক হোসেন খান জানান, আমাদের বিক্রির পরিমাণ অনুযায়ী শেয়ারপ্রতি আয় আরও বেশি হওয়ার কথা। কিন্তু করোনা পরিস্থিতির কারণে বিশ্বব্যাপী কাঁচামালের দাম বেড়ে যাওয়ায়, আমাদের উৎপাদন খরচ বেড়ে গেছে। চলতি অর্থবছরের প্রথম প্রান্তিকে আমাদের বিক্রি বেড়েছে ২৬ শতাংশ, বিপরীতে উৎপাদন খরচ বেড়েছে ৩২ শতাংশ।

জেএমআই সিরিঞ্জেস অ্যান্ড মেডিক্যাল ডিভাইসেস লিমিটেডের চেয়ারম্যান জাবেদ ইকবাল পাঠানের সভাপতিত্বে ভার্চুয়্যাল মাধ্যমে অনুষ্ঠিত সাধারণ সভায় উপস্থিত ছিলেন প্রতিষ্ঠানটির প্রতিষ্ঠাতা ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. আবদুর রাজ্জাক, স্বতন্ত্র পরিচালক এটিএম সেরাজুল সালেকিন চৌধুরী এবং মুস্তাফিজুর রহমান, পরিচালক (অর্থ) হিরোশি সাইতো, জেএমআই গ্রুপের প্রধান অর্থ কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আলম, জেএমআই সিরিঞ্জেস অ্যান্ড মেডিক্যাল ডিভাইসেস লিমিটেডের প্রধান অর্থ কর্মকর্তা রনজিৎ চক্রবর্তী এবং কোম্পানি সচিব মোহাম্মদ তারেক হোসেন খান।

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.