আজ: সোমবার, ০৪ জুলাই ২০২২ইং, ২০শে আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৩রা জিলহজ, ১৪৪৩ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২২, সোমবার |



kidarkar

লা লিগার ম্যাচে আতলেতিকো মাদ্রিদকে উড়িয়ে দিয়েছে বার্সা

স্পোর্টস ডেস্ক: দীর্ঘদিন পর দারুণ এক পারফরম্যান্স করল বার্সেলোনা। জাভির শিষ্যরা লা লিগার ম্যাচে আতলেতিকো মাদ্রিদকে উড়িয়ে দিয়েছে।

ঘরের মাঠে ক্যাম্প ন্যুতে ৪-২ গোলে জয় পেয়েছে স্বাগতিকরা। দুই দলের ছয় গোলের পাশাপাশি ন্যু ক্যাম্পের দর্শকেরা সাক্ষী হয়েছে উত্তেজনাপূর্ণ এক ম্যাচের।

গোল, অ্যাসিস্টের পাশাপাশি লাল কার্ড দেখে আলাদাভাবে নজর কেড়েছেন বার্সেলোনার দানি আলভেজ।পুরো ম্যাচে ৫৭ শতাংশ বল দখলের পাশাপাশি আতলেতিকোর পোস্টে নয়বার শট নিয়ে চারবারই গোলের দেখা পেয়েছে বার্সেলোনা।

বিপরীতে ১০ বার শট নিয়ে আথলেতিকো মাদ্রিদ লক্ষ্যে রাখে চারবার। এই হারে আতলেতিকো মাদ্রিদকে টপকে লা লিগার পয়েন্ট টেবিলের চতুর্থ স্থানে উঠে আসল বার্সেলোনা, মাদ্রিদের ক্লাবটি নেমে গেছে পঞ্চম স্থানে।

প্রথমার্ধের শুরুতেই পিছিয়ে পড়ে বার্সেলোনা তবে দুই মিনিটের ব্যবধানে ম্যাচে ফিরে জাভির দল।এরপর প্রথমার্ধে আরো দুই গোল করে ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ নেয় স্বাগতিকরা। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই গোল করে আথলেতিকো মাদ্রিদকে ম্যাচ থেকে ছিটকে দেয় বার্সা। শেষের দিকে এক গোল শোধ দেন সুয়ারেস।

৮ মিনিটে স্বাগতিক দর্শকদের স্তব্ধ করে ম্যাচে এগিয়ে যায় আতলেতিকো মাদ্রিদ। ডান দিক থেকে লুইস সুয়ারেসের নিচু পাস বক্সের ভেতরে প্লেসিং শটে দূরের পোস্টে লক্ষ্যভেদ করেন বেলজিয়ান ফরোয়ার্ড ইয়ানিক ক্যারাসকো। তবে মিনিট দুয়েক বাদেই সমতায় ফেরে বার্সেলোনা। বক্সের ডান দিক থেকে ব্রাজিলিয়ান রাইট ব্যাক দানি আলভেস বল পাঠিয়ে দেন বক্সের বা দিকে থাকা আলবার উদ্দেশ্য, সেখান থেকে বাম পায়ের দুর্দান্ত ভলিতে দূরের পোস্টে বল জালে জড়ায়। সমতায় ফেরার পর আতলেতিকোর উপর আরো চড়াও হয় জাভির শিষ্যরা। ম্যাচে লিডও নেয় দ্রুত, ২১ মিনিটে গোল করেন দলের তরূন ফুটবলার গাভি। ডান দিক থেকে আডামা ত্রাওরের ক্রসে দারুণ হেডে লক্ষ্যভেদ করেন এই ১৭ বছর বয়সী মিডফিল্ডার। এ নিয়ে বার্সেলোনার জার্সিতে দ্বিতীয় গোলের দেখা পেলেন গাভি।

প্রথমার্ধের বিরতিতে যাওয়ার আগেই লিড আরো বাড়িয়ে নেয় বার্সেলোনা। ৪৩ মিনিটে গোছাল এক আক্রমণের আতলেতিকোর রক্ষণভাগ তছনছ করে দেয় বার্সার ফরোয়ার্ড লাইন। দানি আলভেসের ফ্রি কিক থেকে পাওয়া বল বক্সের ভেতরে ফেরান তোরেসের হেড ক্রসবারে লেগে ফিরে এলে ফিরতি বলে বুলেট গতির শটে গোল করেন রোনাল্ড আরোহো। প্রথমার্ধে ৩-১ গোলে এগিয়ে থাকে বার্সেলোনা।

বিরতি থেকে ফিরে ৪৯ মিনিটে চতুর্থ গোলের দেখা পায় বার্সেলোনা। বক্সের ভেতর থেকে গতির এক শটে গোল করে দানি আলভেস জানিয়ে দিলেন কেনো আবারো বার্সায় ফিরেছেন তিনি। দ্বিতীয় মেয়াদের বার্সেলোনায় ফেরার পর লা লিগায় এটিই তার প্রথম গোল। ৫৮ মিনিটে লুইস সুয়ারেসের গোল আশা জাগালেও তা যথেষ্ট ছিল না। শুধু ব্যবধানই কমেছে। ৬৯ মিনিটে দশ জনের দলে পরিণত হয় বার্সেলোনা। পিছন থেকে লাথি মারায় সরাসরি লাল কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন ব্রাজিলিয়ান রাইট ব্যাক দানি আলভেস। বাকি সময় দশ জনের দল নিয়েও আথলেতিকো মাদ্রিদকে আটকে দেয় বার্সেলোনা।

এই জয়ে ২২ ম্যাচে ৩৮ পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট তালিকার চারে উঠে আসল বার্সেলোনা। সমান ম্যাচে ৩৬ পয়েন্ট নিয়ে পাঁচে নেমে গেলো দিয়েগো সিমিওনের আতলেতিকো মাদ্রিদ।

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.