আজ: বৃহস্পতিবার, ১৯ মে ২০২২ইং, ৫ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৬ই শাওয়াল, ১৪৪৩ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

১২ মার্চ ২০২২, শনিবার |



kidarkar

২৮ মার্চ হরতাল ডাকলেন ডা.জাফরুল্লাহ

শেয়ারবাজার ডেস্ক:বাম গণতান্ত্রিক জোটের ঘোষণা দেওয়ার কয়েক ঘণ্টা পর পণ্যের মূল বৃদ্ধির প্রতিবাদে হরতালের ডাক দিলেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীও।

শুক্রবার (১১ মার্চ) বিকালে রাজধানীর ধানমন্ডির গণস্বাস্থ্য নগর হাসপাতালের বীর উত্তম মেজর হায়দার মিলনায়তনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এই কর্মসূচি ঘোষণা করেন। দ্রব্যমূল্যসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে ২৮ মার্চ আধা বেলা হরতালের ডাক দিয়েছেন তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে গণ অধিকার পরিষদের সদস্য সচিব নুরুল হক নুর, ভাসানী অনুসারী পরিষদের মহাসচিব শেখ রফিকুল ইসলাম, মুক্তিযোদ্ধা নঈম জাহাঙ্গীর, গণস্বাস্থ্যের মিডিয়া কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আলমসহ অনেকে উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে সকালেই বাম গণতান্ত্রিক জোট দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির প্রতিবাদে একই দিন আধা বেলা হরতাল পালনের ঘোষণা দিয়েছে।

হরতাল পালনের ঘোষণা দিয়ে তিনটি দাবি উপস্থাপন করেছেন ডা. জাফরুল্লাহ। তিন দাবি হলো- দ্রব্যমূল্য সাধারণ মানুষের ক্রয়ক্ষমতায় আনা, ভর্তুকি মূল্যে দরিদ্র দুই কোটি পরিবারকে নিয়মিত রেশন দেওয়া এবং দ্রব্যমূল্যের বৃদ্ধির ব্যবসায়ী সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ।

জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করার জন্য, জনগণের কথা সরকারের কানে প্রবেশের জন্য ২৮ মার্চ সব রাজনৈতিক দলের, সব মানুষের উচিত শান্তিপূর্ণভাবে হরতাল পালন করা।

শ্রমজীবীদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, আপনারা ২৮ তারিখ বাসার বাইরে বের হবেন না। বের হলেও হরতালে যোগ দেওয়ার জন্য বের হবেন। সবাই মিলে দলমত-নির্বিশেষে যে যেভাবে পারেন ২৮ মার্চ এই হারতাল পালন করেন।

গণস্বাস্থ্যের প্রতিষ্ঠাতা বলেন, দেশ কঠিন সময় অতিক্রম করছে। এটা ১৯৭৪ সালের পূর্বাভাস। ১৯৭৪ সালে অনাহারে তিন লাখ মানুষ মৃত্যুবরণ করেছিলো। কয়েক মাস আগেও আমাদের দেশে রাষ্ট্রীয় উদ্বৃত্ত ছিলো ৪৭ বিলিয়ন ডলার। এখন সেটা ৪৩ বিলিয়ন ডলারে চলে এসেছে। এই চার বিলিয়ন কোথায় গেলো? এই চার বিলিয়ন ডলার দিয়ে তো কয়েক বছর দেশব্যাপী দু-তিন কোটি পরিবারকে রেশন দেওয়া যেতো।

এসময় হরতালের সমর্থন জানিয়ে গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জোনায়েদ সাকি বলেন, সরকারের সব উন্নয়ন ধসে পড়ে, যখন জনগণ টিসিবি’র গাড়ির পেছনে হুমড়ি খেয়ে পড়ে।

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.