আজ: শনিবার, ২১ মে ২০২২ইং, ৭ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৮ই শাওয়াল, ১৪৪৩ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

১৫ মার্চ ২০২২, মঙ্গলবার |



kidarkar

শেয়ারবাজারে ভয়ের কিছু নাই- বিএসইসি চেয়ারম্যান

শেয়ারবাজার ডেস্ক : গত সপ্তাহে যুদ্ধ বা যেকোন কারন হোক, বিনিয়োগকারীদের মধ্যে আতঙ্ক তৈরী হয়েছিল। বিশ্বের অন্যান্য দেশেও এমন পরিস্থিতি হয়েছে। তবে আমরা স্ট্র্যাটেজিক ও ফাইন্যান্স ম্যানেজমেন্টের মাধ্যমে সেই সংকট কাটিয়ে উঠেছি। এক্ষেত্রে স্ট্যাবিলাইজেশন ফান্ড গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছে। আমরা যে উদ্দেশ্যে এই ফান্ড গঠন করেছিলাম, সেটা সত্যিই কাজে লেগেছে। তাই শেয়ারবাজারে ভয়ের কিছু নাই বলে বিনিয়োগকারীদের আশ্বস্ত করেন নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলাম। সেই সাথে এই বাজারে বিনিয়োগকারীদের পাশে সরকার থেকে শুরু করে সবাই আছে বলে জানান তিনি।

মঙ্গলবার (১৫ মার্চ) ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানে জন্মবার্ষিকী উদযাপন ও শেয়ারহোল্ডারদের দাবি মিমাংসা’-কে কেন্দ্র করে ক্যাপিটাল মার্কেট স্ট্যাবিলাইজেশন ফান্ডের (সিএমএসএফ) আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে বিএসইসির কমিশনার ড. শেখ সামসুদ্দিন আহমেদ ও বিএপিএলসির সদ্য বিদায়ী সভাপতি আজম জে চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া সিএমএসএফের সিওও মনোয়ার হোসেন উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সিএমএসএফ এর চেয়ারম্যান মো. নজিবুর রহমান।

তিনি বলেন, প্রাথমিক গণপ্রস্তাবে (আইপিও) আসার পর থেকে জমা হওয়া অবন্টিত লভ্যাংশ কোথায় রাখা হয়েছে বা কোথায় ব্যবহার করা হয়েছে, নাকি কেউ নিয়ে গেছে, তা খুজে বের করা হবে। এই অর্থ খুজে বের করতে আন্তর্জাতিক মানের নিরীক্ষক দিয়ে নিরীক্ষা করা হবে। এর মাধ্যমে ওই টাকা কোথায় গেছে, তা খুজে বের করব। যে টাকা নিজের না, তা আপনারা (কোম্পানির ম্যানেজমেন্ট) নিলেন কেনো? অন্যের টাকা নিয়ে নিজেদের বিল্ডিং-বাড়ি বানানোর অধিকার কেউ দেয়নি।

বিএসইসি চেয়ারম্যান বলেন, বিনিয়োগকারীদের দাবি মেটানো খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। বিনিয়োগকারীরা হয়তো অনেক বছর জানতোই না তাদের পাওনা টাকার বিষয়ে। আজকে পাওয়ার মাধ্যমে তাদের মধ্যে শেয়ারবাজার নিয়ে ইতিবাচক মনোভাব আসবে। এই বাজারে বিনিয়োগ করলে যে রিটার্ন পাওয়া যায়, তা আজকের অনুষ্ঠানে উপস্থিত বিনিয়োগকারীদের মাধ্যমে বাহিরে ম্যাসেজ চলে যাবে। এছাড়া তাদের পাওনা আদায় করে দেওয়ার জন্য যে রেগুলেটর আছে, সেটা তাদের মধ্যে আস্থার তৈরী করবে।

তিনি বলেন, কোম্পানিগুলোতে বিনিয়োগকারীদের হাজার হাজার কোটি টাকার লভ্যাংশ জমে থাকার বিষয়টি যখন আমরা তুলে নিয়ে আসলাম, তখন কোম্পানি কর্তৃপক্ষ ওই লভ্যাংশের পাওনাদার বিনিয়োগকারীদের খুজে পাচ্ছে। ঠিক আছে পাক। আমাদের উদ্যোগের ফলে যদি বিনিয়োগকারীরা তাদের পাওনা ফেরত পায়, সেটাও ভালো।

তবে এখনো কিছু কোম্পানি থেকে অবন্টিত লভ্যাংশের হিসাব নেই বলে কমিশনে চিঠি পাঠায় বলে জানান তিনি। অনেকেই মাসের পর মাস সময় চেয়েই যাচ্ছেন। তবে ৩১ মার্চের পরে কমিশন কঠোর হবে। এখনো জরিমানা করা শুরু করিনি, তবে শীগগির কমিশন পদক্ষেপ নেবে। আমরা অনেক সময় দিয়েছে এবং অপেক্ষা করেছি। চলতি মাসের পরে আর সময় দেওয়া হবে না।

অবন্টিত লভ্যাংশের অপব্যবহারকীরদের হুশিয়ারি দিয়ে তিনি বলেন, চলতি মাসের মধ্যে যদি ওই লভ্যাংশের হিসাব দিতে না পারে এবং ফান্ড কোথায় রয়েছে বলতে না পারলে ও স্ট্যাবিলাইজেশন ফান্ডে স্থানান্তর না করলে, কমিশন কঠোর ব্যবস্থা নেবে। যা অবন্টিত লভ্যাংশের থেকে কয়েকগুণ বেশি জরিমানা হবে।

শেয়ারবাজার থেকে কোম্পানির বেরিয়ে যাওয়ার জন্য পলিসি করা হয়েছে উল্লেখ করে শিবলী বলেন, প্রায় ২০টি কোম্পানি এখন শেয়ারবাজার থেকে বেরিয়ে যেতে চায়। ওইসব কোম্পানি বিনিয়োগকারীদের অর্থ বুঝিয়ে দেবে। যেসব কোম্পানির কার্যক্রম বন্ধ থাকায় বিনিয়োগকারীদের অর্থ ২০-৩০ বছর ধরে আটকে আছে।

তবে বর্তমানে বের হয়ে যাওয়া ও বিনিয়োগকারীদের অর্থ ফেরক দীর্ঘমেয়াদি বলে জানান তিনি। এটি সহজ করার জন্য সিএমএসএফের হাতে দেওয়া হবে। এখান থেকে বিনিয়োগকারীরা তাদের অর্থ ফেরত পাবে। এভাবে শেয়ারবাজার থেকে বেরিয়ে যেতে চাওয়া কোম্পানিগুলোর ফান্ড সিএমএসএফে নিয়ে আসার চিন্তাভাবনা করছি।

তিনি বলেন, আমরা বাংলাদেশ ব্যাংককে বন্ড মার্কেট ছাড়া কোন দেশ উন্নতি হয় না বলে জানিয়েছি। আমরা এই মার্কেটটাকে এগিয়ে নিতে কাজ করছি। তবে বিনিয়োগ সীমার মধ্যে অন্তর্ভূক্ত করার কারনে বাধাগ্রস্থ হচ্ছে। এ বিষয়টি সমাধানে বাংলাদেশ ব্যাংককে সহযোগিতার জন্য বলেছি।

 

১০ উত্তর “শেয়ারবাজারে ভয়ের কিছু নাই- বিএসইসি চেয়ারম্যান”

  • এম এন আজিম says:

    যখনি কঠিন পতনের মুখোমুখি হয় শেয়ার বাজার তখনি অতন্দ্র প্রহরীর ভুমিকায় বিএসইসিকে দেখা যায়। শামসুদ্দিন সাহেব সাধারণ বিনিয়োগকারীর পক্ষে একনিষ্ঠ কন্ঠস্বর। শিবলী সাহেব সাধারণ বিনিয়োগকারীর পক্ষে অপ্রতিরোধ্য শক্তি। বাংলাদেশ ব্যাংক‌‌‌ এবং বিএসইসির সবাইকে সাধারণ বিনিয়োগকারীর পক্ষ হইতে অজস্র সালাম এবং অকৃত্রিম ভালোবাসা।

  • একাব্বর আলী says:

    তেল ছাড়া পাছা মেরে পাছার ছাল তুলে ফেলেছেন।এখনো পাছার ছাল গজায় নাই। এখন তেল দিয়ে ঢুকাতে চাইলেও আর কেউ পাছার কাপড় খুলবে?

  • Partha Sarathi y says:

    শুভ সকাল.
    বিএসইসির চেয়ারম্যান মহোদয়কে এই রকম একটা ভালো উদ্যোগ নেওয়ার জন্য ধন্যবাদ জানাই।
    ১. সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কষ্টার্জিত টাকা ফেরত পেলে বিনিয়োগকারীদের আস্থা আস্তে আস্তে ফিরে আসবে।
    ২. শেয়ারবাজার এ ভুয়া, নামেমাত্র কোম্পানিগুলোর চিহ্নিত করে যথযত শাস্তির ব্যবস্থা করা জরুরি মনে করি।
    ধন্যবাদ।
    পার্থ সারথী দেব
    CLIENT

    AB

  • মিল্টন বড়ুয়া says:

    খুবই প্রশংসার দাবি রাখে এবং সেজন্য বিএসইসির চেয়ারম্যান ধন্যবাদ পাওয়ার যোগ্য।
    কিন্ত এখন আমার একটা প্রশ্নঃ- একটা শেয়ারের দাম যখন দিনের পর দিন বাড়তে থাকে তখন ডিএসই কোনো মূল্য সংবেদনশীল তথ্য আছে কিনা জানতে চায় কিন্তু একটা শেয়ার যখন দিনের পর দিন কমতে থাকে তখন ডিএসইর পক্ষ থেকে কোনো কিন্তু জানানো হয় না কেন ?

  • মিল্টন says:

    খুবই প্রশংসার দাবি রাখে এবং সেজন্য বিএসইসির চেয়ারম্যান ধন্যবাদ পাওয়ার যোগ্য।
    কিন্ত এখন আমার একটা প্রশ্নঃ- একটা শেয়ারের দাম যখন দিনের পর দিন বাড়তে থাকে তখন ডিএসই কোনো মূল্য সংবেদনশীল তথ্য আছে কিনা জানতে চায় কিন্তু একটা শেয়ার যখন দিনের পর দিন কমতে থাকে তখন ডিএসইর পক্ষ থেকে কোনো কিছু জানানো হয় না কেন ?

  • Anonymous says:

    শেয়ার বাজার ভবিষ্যতে আরো অনেক উচ্চতায় যাবে লাখ লাখ বিনিয়োগকারী আশা করছে । তার সাথে আছে কোটি পরিবার আশা করছি কারসাজির মাধ্যমে শেয়ার বাজার ভবিষ্যতে যেন ক্ষতিগ্রস্ত না হয়। সেই দিঘি নজরে রাখতে হবে নিয়ন্ত্রণ সংস্থার উচিত হবে মাননীয় চেয়ারম্যান মহদোয় এর অনেক চেষ্টা করে যাচ্ছে অতিতে অন্য কোন চেয়ারম্যান থাকা অবস্থায় শেয়ার বাজার নিয়ে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের জন্য সময় দেবার প্রয়োজন মনে করেন নাই। চেয়ারম্যান মহদোয় আপনার সুস্বাস্থ্য কামনা করছি আল্লাহর রহমতে আপনাকে অনেক ভালো রাখতে তিনিরকাছ দোয়া করি আল্লাহ ও আপনার পরিবারের জন্য দোয়া রইল।

  • মনিরুল ইসলাম says:

    বিশ্বাস করতে পারছি না। অনেক কষ্টের কিছু টাকা শেয়ার বাজারে বিনিয়োগ করেছিলাম।, দেড় বছরে কোন লাভ তো পাইলাম না আরও পুঁজি হারালাম।

  • Anonymous says:

    Beximco synthetic ar jaigata beximco health PPE industrial Park korasa Kano aita bajar thaka bar kora hossa?????

  • MOF says:

    Dividend payout should be at least 60 percent in case of the companies already have good reserve. Maximum Companies do the same but some good company do not want to pay good dividend. Bad companies window dressed and good companies keeps secret reserve. All the same. So requesting to save the investors with giving good dividend.

  • MOF says:

    Delta Life : Once it had arranged AGM after 8 – 10 years. Again going to do the same. Even the disclosure have not been updated. I think if they apply to BSEC , the problem can be solved at an earlier date. There may be delay in the court , main thing is the will to expedite the matter. Please do the same.

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.