আজ: রবিবার, ২২ মে ২০২২ইং, ৮ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৯শে শাওয়াল, ১৪৪৩ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

১৭ মার্চ ২০২২, বৃহস্পতিবার |



kidarkar

অমর একুশে বইমেলা শেষ হচ্ছে আজ

শেয়ারবাজার ডেস্ক:অমর একুশে বইমেলার পর্দা নামছে। মাসব্যাপী চলা প্রাণের মেলা শেষ হবে আজ বৃহস্পতিবার। এবার মেলায় রেকর্ডসংখ্যক বই প্রকাশিত হয়েছে। পাঠক ও দর্শকের উপস্থিতিও ছিল অন্যবারের চেয়ে বেশি। গত ১৫ ফেব্রুয়ারি শুরু হয়েছিল বইমলা, উদ্বোধন করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

গতকাল বুধবার মেলা ঘুরে দেখা গেছে, প্রায় প্রতিটি স্টলেই ছিল ভিড়। শেষ মুহূর্তের কেনাকাটায় ব্যস্ত পাঠকরা। অনেকে বইয়ের তালিকা হাতে নিয়েই কাঙ্খিত বইটির খোঁজ করেছেন। যেন নেভার আগে হঠাৎ জ্বলে উঠল বইমেলা! অথচ কদিন আগেও হাহুতাশ করেছেন প্রকাশকরা। গতকাল যেন সেই দুশ্চিন্তার মেঘ সরে গেল। প্রকাশক এবং বিক্রয়কর্মীরা বলছেন, সমাগম দেখে মনে হচ্ছে, কদিন বেচাবিক্রি খারাপ গেছে। আশা করি, আজ (গতকাল) আর শেষদিনে তা পূর্ণতা পাবে।

এবারের বইমেলা শুরু থেকেই জমে ওঠে। বিশেষ করে উদ্বোধনের দিন থেকে পরপর চারদিন ছুটির দিন থাকায় প্রথম থেকেই ছন্দ ফেরে মেলায়। বসন্তবরণ আর বিশ্ব ভালোবাসা দিবসের পর থেকে পূর্ণতা আসে। বইমেলা এই প্রাণের জোয়ারে ভেসেছে শুরু থেকেই। এরপর একুশে ফেব্রুয়ারির দিনেও এবারে উপচে পড়া ভিড় ছিল। তবে শুরু থেকে প্রাণে প্রাণে ভরে উঠলেও মধ্যগগনে এসে বৃষ্টিতে খানিক বিড়ম্বনা সৃষ্টি হয় মেলায়।

বইমেলা অনুষ্ঠিত হচ্ছে বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণ এবং ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের প্রায় সাড়ে ৭ লাখ বর্গফুট জায়গায়। একাডেমি প্রাঙ্গণে ১০২টি প্রতিষ্ঠানকে ১৪২টি এবং সোহরাওয়ার্দী উদ্যান অংশে ৪৩২টি প্রতিষ্ঠানকে ৬৩৪টি ইউনিট; মোট ৫৩৪টি প্রতিষ্ঠানকে ৭৭৬টি ইউনিট বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে প্যাভিলিয়ন ছিল ৩৫টি। এ বছর লিটল ম্যাগাজিন চত্বর স্থানান্তরিত হয়েছে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের এম্ফি থিয়েটারের পূর্বদিকে মেলার মূল প্রাঙ্গণে। সেখানে ১২৭টি লিটলম্যাগকে স্টল বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

বইমেলায় বাংলা একাডেমি এবং মেলায় অংশগ্রহণকারী অন্যান্য প্রতিষ্ঠানে ২৫ শতাংশ কমিশনে বই বিক্রি করা হয়। বইমেলার সোহরাওয়ার্দী উদ্যান অংশে ৪টি প্রবেশ পথ ও ৩টি বাহির পথ ছিল।

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.