আজ: বৃহস্পতিবার, ১৯ মে ২০২২ইং, ৫ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৬ই শাওয়াল, ১৪৪৩ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

১৮ এপ্রিল ২০২২, সোমবার |



kidarkar

ইউক্রেন সেনা নিশ্চিহ্ন করে দেবার হুমকি রাশিয়ার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : রাশিয়া আত্মসমর্পণের সময়সীমা স্থির করে দিলেও মারিউপোল শহরে ইউক্রেনের সৈন্যরা হাল ছাড়তে প্রস্তুত নয়৷ রাশিয়া তাদের ‘নিশ্চিহ্ন’ করে দেবার হুমকি সত্ত্বেও নিজস্ব অবস্থানে অটল রয়েছে সৈন্যরা৷ ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি বহিরাগতদের মোকাবিলার পথই বেছে নিয়েছেন৷ তিনি মারিউপোলের সুরক্ষার জন্য সব রকম চেষ্টা করবেন বলে জানিয়েছেন৷ সে জন্য অবিলম্বে ভারি অস্ত্র ও সামরিক সরঞ্জাম সরবরাহের জন্য আন্তর্জাতিক মহলের কাছে আবেদন জানিয়েছেন জেলেনস্কি৷

তিনি বলেন, প্রতিবার সরবরাহে বিলম্ব হলেই রাশিয়া সেটাকে ইউক্রেনের মানুষের প্রাণহানির অনুমতি হিসেবে দেখছে৷ দেশের উত্তর পূর্ব অঞ্চল ও দক্ষিণে মারিউপোল শহরে রাশিয়ার হামলার তীব্র নিন্দা করেছেন তিনি৷ সেই সঙ্গে রাজধানী কিয়েভসহ দেশটির বিভিন্ন অংশ থেকে সেনা প্রত্যাহার সত্ত্বেও দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়ে যাচ্ছে রাশিয়া৷

রোববার জেলেনস্কি বলেন, এটা ইচ্ছাকৃত সন্ত্রাস ছাড়া কিছুই নয়৷ তিনি রাশিয়ার বিরুদ্ধে নিরীহ মানুষের বাসস্থানের উপর গোলাগুলি চালিয়ে যাওয়ার অভিযোগ করেন৷ রাশিয়া অবশ্য নিরীহ মানুষের উপর হামলার অভিযোগ অস্বীকার করেছে৷ মস্কোর মতে, নিপীড়নের ভুয়া প্রমাণ তুলে ধরে ইউক্রেন আসলে শান্তি আলোচনা বানচাল করার চেষ্টা করছে৷

মারিউপোল শহরের নিয়ন্ত্রণ নিয়েও সংশয় রয়েছে৷ রাশিয়া সেই শহর দখলের দাবি করলেই ইউক্রেনের প্রধানমন্ত্রী ডেনিস ইশ্মিয়াল বলেন, তাদের সৈন্যরা সংগ্রাম চালিয়ে যাচ্ছে৷ আমেরিকার এবিসি নেটওয়ার্কের কাছে তিনি বলেন, শহরের কিছু অংশ এখনো ইউক্রেনের নিয়ন্ত্রণেই রয়েছে৷

মারিউপোল রাশিয়ার দখলে চলে এলে পূবে ডনবাস থেকে দক্ষিণে ক্রাইমিয়া পর্যন্ত অঞ্চলের উপর অবিচ্ছিন্ন নিয়ন্ত্রণ পাবে মস্কো৷ ইইউ কমিশনের প্রেসিডেন্ট উরসুলা ফন ডেয়ার লাইয়েন সদস্য দেশগুলির উদ্দেশে ইউক্রেনকে দ্রুত অস্ত্র সরবরাহের আবেদন জানিয়েছেন৷

কোনো এক সময়ে যুদ্ধ শেষ হলে ইউক্রেনের পুনর্গঠন নিয়েও ভাবনাচিন্তা শুরু করেছে সে দেশটির সরকার৷ প্রধানমন্ত্রী ইশ্মিয়াল বলেন, বর্তমানে প্রতি মাসে বাজেট ঘাটতির মাত্রা প্রায় ৫০০ কোটি ডলার৷ এই অবস্থায় আরও আন্তর্জাতিক সহায়তার আবেদন করেছেন তিনি৷ প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কি এক টুইট বার্তায় জানিয়েছেন, যে তিনি আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের সঙ্গে আর্থিক সহায়তা ও যুদ্ধপরবর্তী পুনর্গঠন নিয়ে আলোচনা করেছেন৷ আইএমএফ-এর প্রধান ক্রিস্টিনা গেয়র্গিয়েভা সবরকম সম্ভাব্য সহায়তার আশ্বাস দিয়েছেন বলে তিনি জানান৷

প্রেসি়ডেন্ট জেলেনস্তকি ইউরোপীয় ইউনিয়নে যোগদানের লক্ষ্যে ব্রাসেলসের প্রশ্নপত্র পূরণ করে স্বাক্ষর করেছেন বলেও জানিয়েছেন৷ ফলে ইইউ সদস্যপদের পথে প্রথম আনুষ্ঠানিক পদক্ষেপ নিলো ইউক্রেন৷

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.