আজ: বৃহস্পতিবার, ২৬ মে ২০২২ইং, ১২ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২৩শে শাওয়াল, ১৪৪৩ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

২১ এপ্রিল ২০২২, বৃহস্পতিবার |



kidarkar

নিউমার্কেটে সংঘর্ষের ঘটনায় মামলা: আসামি সাড়ে ১৪০০

শেয়ারবাজার ডেস্ক : রাজধানীর নিউমার্কেট এলাকায় ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থী এবং ব্যবসায়ীদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় তিনটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। দুটি মামলা পুলিশের পক্ষ থেকে করা হয়েছে। আরেকটি মামলা নিহত ডেলিভারিম্যান নাহিদের পরিবারের পক্ষ থেকে করা হয়েছে। এসব মামলায় অজ্ঞাতনামা প্রায় সাড়ে ১৪শ’ জনকে আসামি করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২১ এপ্রিল) সকালে এসব তথ্য জানিয়ে নিউমার্কেট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এম এ কাইয়ুম বলেন, জ্বালাও-পোড়াও ও পুলিশের কাজে বাধা দেওয়ায় বিস্ফোরণ-হাঙ্গামার অভিযোগে পুলিশের পক্ষ থেকে দুটি মামলা করা হয়েছে। একটি মামলার বাদী হয়েছেন পরিদর্শক (তদন্ত) ইয়ামিন কবির। অপর মামলার বাদী এসআই মেহেদী হাসান। এছাড়া নিহত ডেলিভারিম্যান নাহিদ হোসেনের চাচা মোহাম্মদ সাঈদ একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।

তিনি আরও বলেন, ‘দায়ের করা তিনটি মামলার সবাই অজ্ঞাত আসামি। বুধবার রাতেই মামলাগুলো দায়ের করা হয়। নাহিদের চাচা মোহাম্মদ সাঈদের দায়ের করা হত্যা মামলায় আসামি করা হয়েছে ১০০ থেকে ১৫০ জনকে। ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনায় ২০০ থেকে ৩০০ জনকে। পুলিশের দায়ের করা মামলায় নিউমার্কেটের ২০০ থেকে ৩০০ জন ব্যবসায়ী-কর্মচারীকে আসামি করা হয়েছে এবং ঢাকা কলেজের ৬০০ থেকে ৭০০ জনকে আসামি করা হয়।

সোমবার রাত ১১টার দিকে কথাকাটাকাটির জেরে নিউমার্কেটের ব্যবসায়ী ও ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীদের সঙ্গে সংঘর্ষের সূত্রপাত হয়। মঙ্গলবার সকাল থেকে থেমে থেমে দুই পক্ষের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও ইটপাটকেল নিক্ষেপের ঘটনা ঘটে। ওই সংঘর্ষে বহু মানুষ আহত হন। তাদের মধ্যে কয়েকজনের অবস্থা গুরুতর। আর সংঘর্ষের মাঝে পড়ে গুরুতর আহত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন মারা যান নাহিদ হাসান মানে এক কুরিয়ারকর্মী।

ঘটনার দিন মঙ্গলবার কামরাঙ্গীরচরে বাসা থেকে বের হয়ে কর্মস্থলে যাচ্ছিলেন নাহিদ। এ সময় সংঘর্ষের মধ্যে পড়ে গুরুতর আহত হন তিনি। পরে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় নিহত নাহিদের বাবা মো. নাদিম হোসেন বাদী হয়ে নিউমার্কেট থানায় একটি হত্যা মামলা করেছেন। মামলায় তিনি অজ্ঞাত আসামি উল্লেখ করেছেন।

অন্যদিকে, সংঘর্ষের ঘটনায় আহত মো. মুরসালিন (২৪) নামে এক দোকান কর্মচারী আজ ভোর ৪টা ৪০ মিনিটে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যাকেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.