আজ: বুধবার, ১০ অগাস্ট ২০২২ইং, ২৬শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১০ই মহর্‌রম, ১৪৪৪ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

০৪ অগাস্ট ২০২২, বৃহস্পতিবার |



kidarkar

হিমাদ্রিকে ১০ শতাংশ শেয়ার ছাড়ার নির্দেশ বিএসইসির

নিজস্ব প্রতিবেদক : পুঁজিবাজারে এসএমই প্ল্যাটফর্মে তালিকাভুক্ত কোম্পানি হিমাদ্রি লিমিটেডের শেয়ারের দাম অস্বাভাবিক হারে বেড়েই চলেছে। ফ্রি ফ্লোট শেয়ারের সংখ্যা কম থাকায় কোম্পানিটির শেয়ারের দাম এভাবে বাড়ছে বলে মনে করছে পুঁজিবাজারের নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। তাই, কোম্পানিটিকে ১০ শতাংশ শেয়ার ছাড়ার (অফলোড) নির্দেশ দিয়েছে কমিশন।

সম্প্রতি কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ ও ব্যবস্থাপনা পরিচালকের কাছে এ সংক্রান্ত একটি চিঠি পাঠানো হয়েছে বলে কমিশন সূত্রে জানা গেছে।

একই সঙ্গে বিষয়টি ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই), চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ (সিএসই) এবং সেন্ট্রাল ডিপজেটরি বাংলাদেশ লিমিটেডের (সিডিবিএল) ব্যবস্থাপনা পরিচালককে অবহিত করা হয়েছে।
এদিকে, আগামী ৩০ কার্যদিবসের মধ্যে কোম্পানিটিকে এ নির্দেশনা পরিপালন করতে হবে। এছাড়া, কোম্পানিটি বিএসইসির নির্দেশনাটি পরিপালন করছে কি না, তা দেখভালের দায়িত্ব উভয় স্টক এক্সচেঞ্জেকে দেওয়া হয়েছে।

হিমাদ্রির ফ্রি ফ্লোট শেয়ারের তথ্য থেকে দেখা গেছে, কোম্পানির মোট শেয়ার ৭ লাখ ৫০ হাজারটি। এর মধ্যে কোম্পানির উদ্যোক্তা ও পরিচালকদের হাতে শেয়ার আছে ৭ লাখ ৩৮ হাজার ২০০টি এবং সরকারের হাতে আছে (শেয়ারগুলো পরিত্যক্ত) ১১ হাজার ১০০টি। ফলে, কোম্পানিটির শুধু ৭০০টি শেয়ার ফ্রি ফ্লোট হিসাবে লেনদেন করছে, যা মোট শেয়ারের ০.০৯ শতাংশ। এ কারণেই কোম্পানিটির শেয়ারের অস্বাভাবিকভাবে দর বাড়ছে বলে মনে করে বিএসইসি। তাই, দুই এক্সচেঞ্জ ও ওই কোম্পানিকে ১০ শতাংশ শেয়ার অফলোড করার বিষয়ে দুটি নির্দেশনা দিয়েছে বিএসইসি।

নির্দেশনা দুটি হলো—এসএমই প্ল্যাটফর্মে লেনদেনযোগ্য শেয়ার হিসেবে যোগ্যতা পেতে হলে তালিকাভুক্ত কোম্পানির কমপক্ষে ১০ শতাংশ ফ্রি ফ্লোট শেয়ার থাকতে হবে, যা স্টক এক্সচেঞ্জগুলো নিশ্চিত করবে। এ কারণে হিমাদ্রির উদ্যোক্তা ও পরিচালকরা কমপক্ষে ১০ শতাংশ বা তার অধিক লেনদেনকৃত শেয়ার অফলোড করবে।

এছাড়া, কোম্পানিটিকে সম্মিলিতভাবে ৩০ শতাংশ শেয়ার ধারণের নির্দেশনাও পালন করতে হবে। উভয় স্টক এক্সচেঞ্জ ও হিমাদ্রিকে এ চিঠি জারি করার ৩০ কার্যদিবসের মধ্যে উল্লিখিত বিষয়গুলো মেনে চলতে নির্দেশ দেওয়া হলো।

এ বিষয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিএসইসির একজন কর্মকর্তা বলেন, ‘কোম্পানিটির ফ্রি ফ্লোট শেয়ারের সংখ্যা অনেক কম। এ কারণেই কোম্পানিটির শেয়ার দর অস্বাভাবিকভাবে বাড়ছে বলে মনে করছি। তাই দুই এক্সচেঞ্জকে ও কোম্পানিটিকে ১০ শতাংশ শেয়ার অফলোড করার বিষয়ে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।’

প্রসঙ্গত, গত ৩০ সেপ্টেম্বর ওভার দ্য কাউন্টার মার্কেট (ওটিসি) থেকে এসএমই প্ল্যাটফর্মে স্থানান্তর করা হয় হিমাদ্রিকে। কোম্পানিটি ওটিসি মার্কেটে ২০১৪ সালের ৮ মার্চ সর্বশেষ ৮ টাকা দরে লেনদেন করে। পরবর্তীতে এসএমই প্ল্যাটফর্মে স্থানান্তরের কিছুদিন পর থেকে কোম্পানিটির শেয়ার দর অস্বাভাবিকভাবে বাড়তে থাকে। বৃহস্পতিবার (৪ আগস্ট) হিমাদ্রির শেয়ার সর্বশেষ লেনদেন হয়েছে ৩৫ টাকা ৩০ পয়সায়।

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.