আজ: মঙ্গলবার, ০৪ অক্টোবর ২০২২ইং, ১৯শে আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৬ই রবিউল আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

২৭ জুলাই ২০১৫, সোমবার |


kidarkar

টক-শোতে বড় কথা বললেও আদালতে ভেজা বিড়াল


sinhaশেয়ারবাজার রিপোর্ট:  ‘আপনারা বিজ্ঞ আইনজীবীরা টক-শোতে গিয়ে বড় বড় কথা বলেন। আর আদালতে এসে ভেজা বিড়াল হয়ে যান। বাকস্বাধীনতার মানে এই নয় যে, যা খুশি তাই বলতে পারবেন বলে মন্তব্য করেছেন প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা।

সোমবার গণস্বাস্থ্যের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর আদালত অবমাননার শুনানিকালে এ কথা বলেন তিনি।

এ সময় ডা. জাফরুল্লাহর দেওয়া ব্রিটিশ সাংবাদিক ডেভিড বার্গম্যানের সাজা নিয়ে বিবৃতির বিষয়ে  বলেন, ‘ডেভিড বার্গম্যানের সাজার বিষয়ে ডা. জাফরুল্লাহ যে বিবৃতি দিয়েছিলেন তার ওপর এখনো অটল আছেন কি না, যদি অটল থাকেন তাহলে একধরনের শুনানি হবে, আর যদি তিনি সেই মন্তব্যের বিষয় থেকে সরে আসেন তাহলে অন্য রকম শুনানি হবে।’

এ সময় ডা. জাফরুল্লাহর পক্ষে শুনানিতে অংশ নেন অ্যাডভোকেট আবদুর রাজ্জাক খান ও ব্যারিস্টার আবদুল্লাহ আল মামুন।  অপরদিকে রাষ্ট্রপক্ষে উপস্থিত ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম।

উল্লেখ্য, বার্গম্যানের সাজার বিষয়ে গত বছরের ১৮ ডিসেম্বর ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীসহ ৫০ জন বিশিষ্ট ব্যক্তি যুক্ত বিবৃতি দিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেন।

এ বিষয়ে গত ১০ জুন বিচারপতি ওবায়দুল হাসানের নেতৃত্বে তিন সদস্যের আন্তর্জাতিক ট্রাইব্যুনাল-২  জাফরুল্লাহ চৌধুরীকে এক ঘণ্টার জন্য কারাদণ্ডাদেশ এবং পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করেন। ওই দিন দুপুর ১২টা ৪৯ মিনিট থেকে ১টা ৪৯ মিনিট পর্যন্ত জাফরুল্লাহ চৌধুরী কাঠগড়ায় দাঁড়িয়ে থেকে এই দণ্ড খাটেন। পরে তিনি ট্রাইব্যুনাল থেকে বের হয়ে সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমাকে সাজা দিয়ে ট্রাইব্যুনালের তিন বিচারপতি মানসিক অসুস্থতার পরিচয় দিয়েছেন। বিচারপতিরা সমালোচনা সহ্য করতে পারেন না। যেখানে বিচারপতিরা সমালোচনা সহ্য করতে পারেন না, সেখানে ন্যায়বিচার সম্ভব নয়।’

 

শেয়ারবাজারনিউজ/মু


আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.