আজ: সোমবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২৩ইং, ১৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, ১৯শে জমাদিউল আউয়াল, ১৪৪৫ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

২৬ অক্টোবর ২০২২, বুধবার |

kidarkar

টাইগার একাদশে আসতে পারে একটি পরিবর্তন

স্পোর্টস ডেস্ক :আচ্ছা, কালকের ম্যাচেও একাদশ অপরিবর্তিত থাকবে বাংলাদেশের? নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে খেলা দলটিই বৃহস্পতিবার দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষেও খেলবে? তার মানে এদিনও কি ৪ প্রতিষ্ঠিত বোলার নিয়ে মাঠে নামবে বাংলাদেশ?

অধিনায়ক সাকিব আল হাসানের কণ্ঠে কিন্তু রদবদলের আভাস। ম্যাচ শুরুর আগে প্রেস মিটে টাইগার ক্যাপ্টেন বললেন, ‘আমরা প্রেডিক্টেবল দল হতে চাই না। পরিবেশ, প্রতিপক্ষ দেখে বুঝেই দল সাজাবো আমরা।’

অধিনায়কের এমন কথায় আছে এক বড়সড় ইঙ্গিত। মনে হচ্ছে, দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে বাংলাদেশ একাদশে একটি পরিবর্তন আসন্ন। জানা গেছে, সিডনিতে আজ বুধবার নেটে ব্যাটিং করেননি ইয়াসির আলী রাব্বি। সেখানে মিরাজকে ব্যাটিং অনুশীলন করতে দেখা গেছে।

তার মানে প্রোটিয়াদের বিপক্ষে খেলবেন মিরাজ। আর তাহলে আর ৪ স্পেশালিস্ট বোলার নিয়ে খেলবে না সাকিবের দল। তিন পেসার তাসকিন আহমেদ, মোস্তাফিজুর রহমান ও হাসান মাহমুদের সঙ্গে অধিনায়ক সাকিব একা নন, একাদশে ঢুকে যাবেন অফস্পিনার মেহেদি হাসান মিরাজও। মিরাজের অন্তর্ভুক্তি মানেই কেউ একজন থাকবেন না। ইয়াসির আলী রাব্বির বাদ পড়ার সম্ভাবনাই বেশি।

আসলে নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে ৪ প্রতিষ্ঠিত বোলার নিয়ে মাঠে নেমেই একটা বড়সড় ঝুঁকি নিয়েছিলেন অধিনায়ক সাকিব। প্রতিপক্ষ নেদারল্যান্ডস বলেই রক্ষা। শেষদিকে সৌম্য সরকারকে দিয়ে কাজ চালানো গেছে। তবে নেদারল্যান্ডসও কিন্তু শেষ ওভারে ছক্কা মেরে ভয় ঢুকিয়ে দিয়েছিল টাইগার শিবিরে।

ডাচরা পঞ্চম বোলিং অপশনের ওপর সেভাবে চড়াও হতে পারেনি। কিন্তু বাভুমার দক্ষিণ আফ্রিকা নিশ্চয়ই সে ভুল করবে না। বাংলাদেশ দলে একজন বোলার কম। বাকি ৪ ওভারের কোটা পূরণ করতে অন্য বোলিং অপশনের ওপর নির্ভর করতে হবে। তেমন হলে সেই জায়গায় আক্রমণের চিন্তাই হয়তো করবেন কুইন্টন ডি কক, রাইলি রুশো, ডেভিড মিলাররা।

যাদের নাম বলা হলো, তাদের সামর্থ্য নিয়ে বলার কিছু নেই। নিজেদের দিনে তারা বিশ্বের যে কোনো বোলিং আক্রমণকে লণ্ডভণ্ড করে দিতে পারেন। এই ঝোড়ো উইলোবাজদের বিপক্ষে একজন বোলার কম নিয়ে খেলার অর্থ বড় ধরনের ঝুঁকি নেয়া। এখন বাংলাদেশ হয়তো সেই ঝুঁকি নিতে চাচ্ছে না।

আর তাই মিরাজকে দলে নেওয়ার কথা ভাবা। প্রোটিয়াদের ব্যাটিং লাইনআপে আছেন পাঁচজন বাঁহাতি ব্যাটার। সেই দিকটি মাথায় রেখে অফস্পিনার মেহেদি হাসান মিরাজকে খেলানোই হতে পারে সেরা সিদ্ধান্ত।

ক্রিকেটীয় যুক্তিতে সেটা সমর্থনযোগ্য। উপমহাদেশের দলগুলো সবসময়ই দক্ষিণ আফ্রিকান ব্যাটারদের অস্বস্তিতে ফেলতে বাড়তি স্পিনার খেলানোকেই যুক্তিযুক্ত মনে করে। হয়তো বাংলাদেশ টিম ম্যানেজমেন্টও সে পথেই হাঁটতে যাচ্ছে।

সচেতন ক্রিকেট অনুরাগীদের মত, প্রোটিয়াদের বিপক্ষে ইয়াসির আলী রাব্বিকে বাইরে নিয়ে মিরাজকে খেলানো হলে একটি ইতিবাচক দিক আছে। এক, পঞ্চম বোলার পাওয়া যাবে। পাশাপাশি ব্যাটিং অপশন মোটামুটি অপরিবর্তিত থাকবে। কেননা মিরাজ স্পিন বোলিংয়ের পাশাপাশি ব্যাটিংটাও ভালো করেন।

বাংলাদেশের সম্ভাব্য একাদশ
নাজমুল হোসেন শান্ত, সৌম্য সরকার, লিটন দাস, সাকিব আল হাসান (অধিনায়ক), আফিফ হোসেন ধ্রুব, মেহেদি হাসান মিরাজ, নুরুল হাসান সোহান (উইকেটরক্ষক), মোসাদ্দেক হোসেন, তাসকিন আহমেদ, মোস্তাফিজুর রহমান, হাসান মাহমুদ।

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.