আজ: বুধবার, ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২৩ইং, ১৮ই মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৯ই রজব, ১৪৪৪ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

১৯ নভেম্বর ২০২২, শনিবার |


kidarkar

তিন বৈজ্ঞানিক গবেষণার ফল; চ্যাম্পিয়ন হবে ব্রাজিল


নিজস্ব প্রতিবেদক : বিশ্বকাপের ফেবারিট কে, কে জিতবে বিশ্বকাপ কিংবা সেরাদের সেরা হবে কে? এসব নানা প্রশ্নই এখন বিশ্বকাপ ঘিরে। সারা বিশ্বের ফুটবলপ্রেমীরা তাকিয়ে কাতারের দিকে। বিশ্বসেরাদের লড়াই দেখার জন্য। কিন্তু বিশ্বকাপ জিতবে কে, কোটি ডলারের এই প্রশ্নের জবাব খুঁজতে নানা পন্থা অবলম্বন করছেন তারা।

বিশ্বকাপ খেলার জন্য অধিকাংশ দেশই পৌঁছে গেছে দোহায়। ব্রাজিলের মতো কিছু দেশের আসা এখনও বাকি। কে প্রতিযোগিতা জিতবে, তা নিয়ে বাজি ধরা, তর্কবিতর্কও শুরু হয়ে গেছে। মেসি কিংবা রোনালদো ট্রফি জিততে পারবেন কিনা- তা নিয়ে যেমন লড়াই হচ্ছে, তেমনই নেইমারের ব্রাজিলকেও দাবিদার মনে করছেন অনেকে। বিশ্বকাপের আগে তিনটি সংস্থা সম্ভাব্য বিজয়ী বেছে নিয়েছে। সব জায়গাতেই উঠে এসেছে একটি দেশের নাম। কারা তারা?

অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণা এবং লন্ডনের অ্যালান টুরিং ইনস্টিটিউটের বিচারে নেইমারের ব্রাজিলের হাতেই ১৮ নভেম্বর উঠছে বিশ্বকাপ শিরোপা। দু’জায়গাতেই সম্ভাব্য ফাইনালিস্ট হিসেবে ধরা হয়েছে বেলজিয়ামকে। তৃতীয় স্থানে থাকবে আর্জেন্টিনা। অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষনা জানিয়েছে, সেমিফাইনালে ব্রাজিল হারাবে আর্জেন্টিনাকে।

লন্ডনের অ্যালান টুরিং ইনস্টিটিউটের বিচারে ব্রাজিলের চ্যাম্পিয়ন হওয়ার সম্ভাবনা ২৫ শতাংশ। বেলজিয়ামের জেতার সম্ভাবনা ১৮.৯ শতাংশ। আর্জেন্টিনার সম্ভাবনা ১৩.২ শতাংশ। এরপর রয়েছে ফ্রান্স, ইংল্যান্ড, স্পেন, নেদারল্যান্ডস, ডেনমার্ক, পর্তুগাল এবং ক্রোয়েশিয়া।

কিভাবে বিশ্লেষণ করা হয়েছে? সংস্থাটি জানিয়েছেন, ২০০২ বিশ্বকাপ থেকে সব দলের সব ম্যাচের ফলাফল বিশ্লেষণ এবং পারফরম্যান্স বিচার করে গাণিতিক পদ্ধতিতে এই বিশ্লেষণ করা হয়েছে।

সংস্থার গবেষক নিক বার্লো বলেছেন, ‘ফুটবলে অনেক চমক দেখা যায়। তাই আগে থেকে কোনোভাবেই বলা যায় না, কার হাতে ট্রফি উঠতে চলেছে। তবে এই বিশ্লেষণ করে আমরা বেশ মজা পেয়েছি। এখন দেখতে হবে তার কতটা মেলে।’

আরও একটি সমীক্ষা চালিয়েছে নিয়েলসেনের গ্রেসনোট সংস্থা। তারাও জানিয়েছে, ষষ্ঠবার বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হতে চলেছে ব্রাজিল। তাদের মতে, ব্রাজিলের ট্রফি জেতার সম্ভাবনা ২০ শতাংশ। আর্জেন্টিনার ক্ষেত্রে সম্ভাবনা ১৬ শতাংশ। যদিও দুই দল নিজেদের গ্রুপের সব ম্যাচ জিতলে সেমিফাইনালেই মুখোমুখি হতে পারে। তবে গ্রেসনোটের দাবি, দু’দলকে ফাইনালে দেখা যাবে। আজ পর্যন্ত কোনো বিশ্বকাপের ফাইনালে ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা মুখোমুখি হয়নি।

গ্রেসনোটের এই বিশ্লেষণ, অবশ্য শেষ চার বছরের পারফরম্যান্সের নিরিখে করা হয়েছে। ব্রাজিল, আর্জেন্টিনার পাশাপাশি নেদারল্যান্ডস, পর্তুগাল, স্পেন, বেলজিয়াম, ফ্রান্সের মতো দলকে রাখা হয়েছে। গ্রেসনোটের দাবি, ইংল্যান্ডের পাশাপাশি ইরান গ্রুপ বি থেকে পরের রাউন্ডে যাবে। এশিয়ার একমাত্র দল হিসাবে পরের রাউন্ডে তারা উঠবে বলে জানিয়েছে গ্রেসনোট।

 


আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.