আবার ঝিমিয়ে পড়েছে বাজার

price-chart-downশেয়ারবাজার রিপোর্ট: সপ্তাহজুড়ে লেনদেন হওয়া পাঁচ কার্যদিবসের মধ্যে তিন কার্যদিবস মূল্য সূচক বেড়েছে। বাকি দুই কার্যদিবস সূচক তুলনামুলক বেশি কমেছে। এরই ধারাবাহিকতায় সপ্তাহ শেষে দেশের উভয় শেয়ারবাজারে সূচকের পাশাপাশি কমেছে লেনদেন। ফলে আবার ঝিমিয়ে পড়েছে বাজার।

সপ্তাহ শেষে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) ব্রড ইনডেক্স কমেছে ০.৮৩ শতাংশ বা ৪০ পয়েন্ট। সপ্তাহজুড়ে লেনদেন হওয়া ৩২০টি কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ৯৪টির, কমেছে ২০৪টির, দর অপরিবর্তিত রয়েছে ২১টির এবং লেনদেন হয়নি ১টি কোম্পানির শেয়ার। যা টাকার অংকে লেনদেন হয়েছে ১ হাজার ৭১ কোটি ৪১ লাখ ৮ হাজার ৬০৩ টাকা।

এর আগের সপ্তাহ শেষে ডিএসইর ব্রড ইনডেক্স কমেছিল ১.৫৪ শতাংশ বা ৭৩ পয়েন্ট। । আর আগের সপ্তাহে ডিএসইতে লেনদেন হয়েছিল ১ হাজার ৮৫ কোটি ২২ লাখ ৫৩ হাজার ৩১৬ টাকা। সে হিসেবে গত সপ্তাহে ডিএসইতে টাকার অংকে লেনদেন কমেছে ১.২৭ শতাংশ বা ১৩ কোটি ৮১ লাখ ৪ হাজার ৭১৩ টাকা।

এছাড়াও গত সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে মোট শেয়ার লেনদেন হয়েছে ২৮ কোটি ২০ লাখ ৭১ হাজার ১১২টি। আগের সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে মোট শেয়ার লেনদেন হয়েছিল ৩০ কোটি ৩৪ লাখ ২০ হাজার ১৮২টি। অর্থাৎ শেয়ারের হিসাবে লেনদেন কমেছে ৭.০৪ শতাংশ বা ২ কোটি ১৩ লাখ ৪৯ হাজার ৭০টি।

গত সপ্তাহে ডিএসইতে ‘এ’ ক্যাটাগরির শেয়ার লেনদেন হয়েছে ৭৮.৬৮ শতাংশ, ‘বি’ ক্যাটাগরির ৩.৭৭ শতাংশ, ‘এন’ ক্যাটাগরির ১২.৮৩ শতাংশ এবং ‘জেড’ ক্যাটাগরির ৪.৭১ শতাংশ। যা আগের সপ্তাহে ডিএসইতে ‘এ’ ক্যাটাগরির শেয়ার লেনদেন হয়েছিল ৭৬.০১ শতাংশ, ‘বি’ ক্যাটাগরির ৫.১২ শতাংশ, ‘এন’ ক্যাটাগরির ১৪.৪৫ শতাংশ এবং ‘জেড’ ক্যাটাগরির ৪.৪২ শতাংশ।

এদিকে সপ্তাহ শেষে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সাধারণ মূল্যসূচক কমেছে ০.৩২ শতাংশ বা ২৯ পয়েন্ট। সপ্তাহজুড়ে সিএসইতে লেনদেন হওয়া ২৭১টি কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ৭৫টির, কমেছে ১৭১টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২৫টি কোম্পানির শেয়ার দর। যা টাকার অংকে ৯৯ কোটি ৫৫ লাখ ৫৩ হাজার ৩৬১ টাকা।

এর আগের সপ্তাহ শেষে সিএসইর সাধারণ মূল্যসূচক কমেছিল ২.১১ শতাংশ বা ১৮৮ পয়েন্ট। আগের সপ্তাহে লেনদেন হয়েছিল ১০২ কোটি ৪২ লাখ ২৩ হাজার ৬০২ টাকার। সে হিসেবে গত সপ্তাহে লেনদেন কমেছে ২ কোটি ৮৬ লাখ ৭০ হাজার ২৪১ টাকা।

 

শেয়ারবাজার/অ

আপনার মন্তব্য

Top