আজ: রবিবার, ০২ অক্টোবর ২০২২ইং, ১৭ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৪ঠা রবিউল আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

২৩ নভেম্বর ২০১৫, সোমবার |


kidarkar

এশিয়ার সবচেয়ে উন্নত কয়লা খালাসপীর খনিতে


rungpurশেয়ারবাজার ডেস্ক:  রংপুরের খালাসপীর কয়লা খনিতে প্রায় ৫০ কোটি মেট্রিক টন কয়লা মজুদ রয়েছে। যার মান এশিয়া মহাদেশের মধ্যে সবচেয়ে উন্নত।

বিশেষজ্ঞদের ধারণা, বছরে এখান থেকে অন্তত ২০ লাখ মেট্রিক টন কয়লা উত্তোলন সম্ভব। যার মাধ্যমে একদিকে যেমন দেশের জ্বালানি চাহিদা মেটানো যাবে তেমনি কমবে কয়লার আমদানি নির্ভরতাও।

রংপুর জেলার পীরগঞ্জ সদর উপজেলা থেকে ১২ কিলোমিটার দূরে মদনখালী ইউনিয়নের খালাসপীরের মাটির নিচে মজুদ আছে প্রায় ৫০ কোটি মেট্রিক টন বিটুমিনাস কয়লা। ১০টি গ্রাম নিয়ে এই খনির বিস্তৃতি ৭.৫০ থেকে ৮ বর্গকিলোমিটার পর্যন্ত।

নিজ এলাকায় দেশের অন্যতম বৃহত্তম এই খনি আবিষ্কৃত হওয়ায় এখান থেকে কয়লা উত্তোলন নিয়ে আগ্রহের শেষ নেই এ অঞ্চলের বাসিন্দাদের। কিন্তু সকল পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে মাইনিং লিজের জন্য ৯ বছর আগে ২০০৬-এ আবেদন করা হলেও কয়লা নীতি চূড়ান্ত না হওয়ায় এখনও কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি উন্নতমানের এই কয়লা উত্তোলন নিয়ে।

হোসাফ চাইনিজ কনসোরটিয়াম খালাসপীর কয়লা খনির প্রকল্প পরিচালক প্রকৌশলী এ.কে.এম শামসুদ্দীন বলেন, ‘৬ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপন্ন করার মতো কয়লা দিয়ে এখানে ২০ বছর পর্যন্ত কয়লা উত্তোলন করা যেতে পারে।’

এর আগে দেশের বিভিন্ন কয়লা খনিতে ঘটে যাওয়া বিভিন্ন দুর্ঘটনা থেকে শিক্ষা নেয়া এবং  সকল খনিজ সম্পদ উত্তোলন ও ব্যবহারের জন্য একটি জাতীয় সংস্থা গঠনের পরামর্শ এই অর্থনীতিবিদের।

খনিজ সম্পদ ও বন্দর রক্ষা কমিটির আহ্বায়ক আনু মোহাম্মদ বলেন, ‘কোন পদ্ধতিতে তুললে কয়লাটা সম্পদ হিসেবে বিবেচিত হবে এবং দেশের জন্য লাভজনক হবে সেটার জন্য জাতীয় সংস্থা দরকার।

জাতীয় স্বার্থটা নিশ্চিত করা এবং সম্পদ যাতে শতভাগ দেশের কাজে লাগে সেটা নিশ্চিত করার মতো প্রতিষ্ঠান, নীতিমালা, আইনকানুন সেগুলো ঠিক করতে হবে।’ (সূত্র: সময়টিভি)

 

শেয়ারবাজারনিউজ/অ


আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.