আজ: বৃহস্পতিবার, ১৩ মে ২০২১ইং, ৩০শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৩০শে রমজান, ১৪৪২ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

১৫ ফেব্রুয়ারী ২০১৫, রবিবার |


শারীরিক সমস্যা সমাধানে মধু!

honey2শেয়ারবাজার ডেস্ক: সুপ্রাচীন কাল থেকেই মানুষ মধু ব্যবহার করে আসছে। কখনো তা ব্যবহৃত হয়েছে খাবার হিসেবে, কখনো ওষুধের অনুষঙ্গ হিসেবে। বিশেষ করে ভারতীয় আয়ুর্বেদ চিকিত্‍সাশাস্ত্রে মধুর ব্যবহার বেশ ব্যাপকভাবেই দেখা যায়। আর যাবেই না বা কেন? মধুর গুণ এবং উপকারিতাও কম নয়!

এবার আপনাদের জানাবো শারীরিক সমস্যা সমাধানে মধুর ব্যবহার।

দুর্বলতা: মধু তাপ ও শক্তির একটি অত্যন্ত ভালো উৎস। এতে যে শর্করা থাকে তা সহজেই হজম হয় ও রক্তের সাথে মিশে যায়। মধুতে রয়েছে ডেক্সট্রিন, যা সরাসরি রক্তে প্রবেশ করে এবং তাৎক্ষণিকভাবে কাজ করে। ফলে দেহ সহজেই শক্তির জোগান পায়। দুই চা চামচ মধু এক কাপ ফুটানো পানির সঙ্গে খেলে শরীর ঝরঝরে হয় ও দুর্বলতা কেটে যায়।

কোষ্ঠকাঠিন্য: ১ চা চামচ খাঁটি মধু ১ কাপ উষ্ণ গরমপানির সাথে মিশিয়ে সকালবেলা খালিপেটে পান করলে কোষ্ঠবদ্ধতা এবং অম্লত্ব দূর হয়।

রক্তস্বল্পতা: মধু খেলে উপকার পাওয়া যায় রক্তস্বল্পতা বা অ্যানিমিয়াতেও। মধু রক্তের হিমোগ্লোবিন গঠনে সহায়তা করে। ফলে এটি রক্তস্বল্পতা দূর করতে সহায়তা করে। মধুতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে কপার, লৌহ ও ম্যাঙ্গানিজ।

ব্যথা: মধু যেকোনো ধরনের ব্যথাকে প্রশমিত করে এবং জীবাণুনাশকের কাজ করে। বিশেষ করে ফোঁড়া ও ক্ষতের ব্যথায় বেশ ফলদায়ক। সমপরিমাণ মধু ও চিনির সাথে দারুচিনি গুঁড়ো মিশিয়ে ব্যথা বা ফোঁড়ার স্থানে লাগান। সম্ভব হলে হালকা ম্যাসাজ করুন। জাদুর মতো কাজ করবে। পিঁপড়া বা মৌমাছির কামড়ে আক্রান্ত স্থানে মধু লাগালেও ব্যথা কমে যায়।

অনিদ্রা: ঘুমের সমস্যায় হালকা গরম দুধের সঙ্গে মধু মিশিয়ে পান করলে উপকার পাওয়া যায়। আধা গ্লাস হালকা গরম দুধের সাথে ২ চা চামচ মধু মিশিয়ে খেলে ভালো ফল দেয়। আর ঘুমটাও গভীর ও শান্তির হয়।

সর্দি-কাশি: সাধারণ সর্দি-কাশিতে মধু খুবই উপকারী। ১ চা চামচ মধুর সাথে ১ চা চামচ তুলসী পাতার রস মিশিয়ে খেলে কাশি উপশম হয়। গলা ব্যথা কমাতে হালকা গরম পানির সাথে মধু ও লবণ মিশিয়ে গারগল করলে উপকার পাওয়া যায়।

দাঁতের সমস্যা: দাঁতের সুরক্ষায় খুবই উপকারী। মধু দাঁতের ওপর ব্যবহার করলে দাঁতের ক্ষয়রোধ করে, দাঁতে পাথর জমাট বাঁধা রোধ করে এবং দাঁত পড়ে যাওয়াকে বিলম্বিত করে। মধু মিশ্রিত পানি দিয়ে কুলি করলে মাঢ়ির প্রদাহ দূর হয়।

হজমের সমস্যা: মধু পাকস্থলীর কাজকে জোরালো করে এবং হজমের গোলমাল দূর করে। মধু হাইড্রোক্রলিক অ্যাসিডের ক্ষরণ কমিয়ে দেয় বলে অরুচি, বমিভাব, বুক জ্বালা ইত্যাদি দূর হয়ে যায়। অ্যাসিডিটি বা অন্য কোনো সাধারণ কারণে পাকস্থলীতে ব্যথা হলে গরম পানির সাথে মধু ও তার অর্ধেক পরিমাণ দারুচিনি মিশিয়ে পান করুন। ব্যথা উপশম হবে।

বাতের ব্যথা: এক কাপ গরম পানির মধ্যে ২ চা চামচ মধু আর ১ চা চামচ দারুচিনি গুঁড়ো মিশিয়ে পান করুন প্রতিদিন সকাল ও সন্ধ্যায়। এক সপ্তাহের ভেতরেই উপকার পাবেন৷

 

শেয়ারবাজার/অ

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.