আজ: রবিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ইং, ১৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৮ই জমাদিউল আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

৩০ মে ২০১৬, সোমবার |


kidarkar

সূর্যে সৃষ্টি হয়েছে বিশাল গর্ত!


sunশেয়ারবাজার ডেস্ক: যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ গবেষণা প্রতিষ্ঠান নাসার গবেষকেরা দাবি করেছেন, আমাদের সৌরজগতের প্রাণকেন্দ্র সূর্যে বিশাল গর্ত শনাক্ত করেছেন তাঁরা। সূর্যের প্রায় ১০ শতাংশ এলাকাজুড়ে অবস্থান করছে ওই বিশাল গর্তটি।

মে মাসের ১৭ থেকে ১৯ তারিখ পর্যন্ত নাসার সোলার ডায়নামিকস অবজারভেটরি থেকে ধারণ করা ভিডিও ফুটেজে ওই গর্ত দেখা গেছে। এতে দেখা গেছে, সূর্যের ওপরের দিকে বিশাল অন্ধকারাচ্ছন্ন এলাকা, যা মূলত ‘করোনাল হোলস’ নামে পরিচিত।

নাসার একজন মুখপাত্র বলেছেন, ‘করোনাল হোলস’ হচ্ছে সূর্যের আবহাওয়ামণ্ডল বা করোনা অঞ্চলের কম ঘনত্বের অঞ্চল। এই অঞ্চলে যেহেতু স্বল্প সৌর উপাদান থাকে। তাই এ অঞ্চলের তাপমাত্রা কম থাকে এবং এর চারাপাশের তুলনায় অধিক অন্ধকারাচ্ছন্ন দেখায়।

করোনাল হোলস নির্দিষ্ট ধরনের চরম অতিবেগুনি রশ্মিতে কেবল বোঝা যায়, তবে চোখে তা ধরা যায় না।

নাসার বিজ্ঞানীরা বলছেন, সূর্যে এই বিশাল গর্ত হওয়ার ঘটনা বড় উদ্বেগের কোনো বিষয় নয়, তবে এ ধরনের গর্ত কেন সৃষ্টি হয় সে বিষয়টি স্পষ্ট নয়। এ গর্তের কারণে বিশাল সৌরঝড় হতে পারে, যার কারণে পৃথিবীতে সুমেরু প্রভা দেখা দেবে।

নাসার গবেষকেরা বলছেন, পৃথিবীকে সুরক্ষার জন্য যদি ম্যাগনেটোস্ফিয়ার না থাকত, তবে পৃথিবীর যোগাযোগব্যবস্থায় প্রভাব পড়ত এবং ক্যানসার সৃষ্টিকারী অতিবেগুনি রশ্মি ছড়িয়ে পড়ত। এই করোনাল হোলস পৃথিবীর চারপাশের মহাকাশীয় পরিবেশ বোঝার জন্য গুরুত্বপূর্ণ। এতে আমাদের প্রযুক্তি ও নভোচারীদের ভ্রমণের বিষয়গুলো সম্পর্কে জানতে সাহায্য করে।

গবেষকেরা বলছেন, গত বছরের অক্টোবরে তাঁরা সূর্যে ছোট আকারের গর্ত লক্ষ করেছিলেন। ওই সময় গর্তটির যা আকার ছিল, তা ৫০টি পৃথিবীর মতো। এবারে তার চেয়েও আর বড় গর্ত তৈরি হয়েছে সূর্যে। তথ্যসূত্র : ইউএসএ টুডে।

শেয়ারবাজারনিউজ/আ


আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.