আজ: মঙ্গলবার, ০৪ অক্টোবর ২০২২ইং, ১৯শে আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৬ই রবিউল আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

১২ জুলাই ২০১৬, মঙ্গলবার |


kidarkar

কর রেয়াতের খবরে সূচক ও লেনদেনে গতি


bazar 3শেয়ারবাজার রিপোর্ট: ২০১৬ সালের প্রস্তাবিত অর্থ আইনে করযোগ্য আয়ের ২০ শতাংশ পর্যন্ত বিনিয়োগে রেয়াত সুবিধার প্রস্তাব করা হয়েছিল। শুরুতে রেয়াত সুবিধা কমিয়ে আনার প্রস্তাব করা হলেও সংশ্লিষ্টদের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে শেষ পর্যন্ত এ বিনিয়োগসীমা ২৫ শতাংশ নির্ধারণ করা হয়। তবে এ সুবিধার আওতায় বিনিয়োগে কর রেয়াতের হার অপরিবর্তিত রাখা হয়েছে। আর বিনিয়োগে ২৫ শতাংশ পর্যন্ত কর ছাড়ের এমন খবরে সুবাতাস বইতে শুরু করেছে বাজারে।

চূড়ান্ত অর্থ আইন অনুযায়ী, শেয়ারবাজার, সঞ্চয়পত্র, ব্যাংকসহ যেকোনো স্থানে বিনিয়োগে একজন করযোগ্য ব্যক্তি মোট আয়ের ২৫ শতাংশ পর্যন্ত কর রেয়াত সুবিধা পাবেন। তবে বিনিয়োগের পরিমাণভেদে রেয়াতের হার ১৫-১০ শতাংশ হতে পারে। ১০ লাখ টাকা পর্যন্ত বিনিয়োগে ১৫ শতাংশ, ৩০ লাখ টাকা পর্যন্ত বিনিয়োগে ১২ শতাংশ ও ৩০ লাখ টাকার বেশি সর্বোচ্চ দেড় কোটি টাকা পর্যন্ত বিনিয়োগে ১০ শতাংশ পর্যন্ত রেয়াত সুবিধা দেয়া হয়েছে। গত অর্থবছর পর্যন্ত এ রেয়াত সুবিধার আওতাধীন বিনিয়োগসীমা ছিল ৩০ শতাংশ ও রেয়াতের হার ছিল ১৫ শতাংশ। চলতি অর্থবছরের বাজেটে তা কমিয়ে বিনিয়োগসীমা ২০ শতাংশ ও রেয়াতের হার অবস্থাভেদে ১০ শতাংশ পর্যন্ত করার প্রস্তাব করা হয়েছিল।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) বলছে, ২০১৩-১৪ অর্থবছর পর্যন্ত ব্যক্তির মোট আয়ের ২০ শতাংশ বিনিয়োগের বিপরীতে ১০ শতাংশ আয়কর রেয়াত মিলত। বিনিয়োগে উৎসাহিত করতে এটি পরিবর্তন করে গত দুই অর্থবছর করদাতাদের বিনিয়োগের বিপরীতে এ সুবিধা কিছুটা বাড়ানো হয়েছিল। বিনিয়োগ কাঙ্ক্ষিত হারে না বাড়ায় চলতি অর্থবছর থেকে তা আবার আগের অবস্থায় নিয়ে যাওয়ার প্রস্তাব করা হয়েছিল। তবে করদাতাদের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে চূড়ান্ত অর্থবিলে তা আবারো কিছুটা বাড়ানো হয়েছে।

দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) শুরু থেকে উত্থান লক্ষ করা গেলেও ১০ মিনিট পর পরতে থাকে এবং ৪০ মিনিট পর টানা বাড়তে থাকে সূচক। মঙ্গলবার সূচকের পাশাপাশি বেড়েছে বেশীরভাগ কোম্পানির শেয়ার দর। আর টাকার অংকে ডিএসইতে আগের দিনের তুলনায় লেনদেন কিছুটা বেড়েছে। আজ দিন শেষে ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৩৯৪ কোটি টাকা।

এদিন ডিএসই’তে দিনশেষে ডিএসইর ব্রড ইনডেক্স আগের দিনের চেয়ে ৩৯ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ৪৫৪৪ পয়েন্টে। ডিএসই শরিয়াহ সূচক ৯ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ১১১৬ পয়েন্টে এবং ডিএসই–৩০ সূচক ১৫ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ১৭৭২ পয়েন্টে। দিনভর লেনদেন হওয়া ৩২৩টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ২০৩টির, কমেছে ৭১টির আর অপরিবর্তিত রয়েছে ৪৯টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের দর। আজ ডিএসইতে মোট ৩৯৪ কোটি ১১ লাখ ২২ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে।

এর আগের কার্যদিবস অর্থাৎ সোমবার ডিএসইর ব্রড ইনডেক্স আগের দিনের চেয়ে ৯ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করে ৪৪০৫ পয়েন্টে। ডিএসই শরিয়াহ সূচক ১ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করে ১১০৬ পয়েন্টে এবং ডিএসই–৩০ সূচক ২ পয়েন্ট কমে অবস্থান করে ১৭৫৬ পয়েন্টে। ওইদিন ডিএসইতে লেনদেন হয় মোট ২৭২ কোটি ৭৫ লাখ ৭৭ হাজার টাকা। সে হিসেবে আজ ডিএসইতে লেনদেন বেড়েছে ১২১ কোটি ৩৫ লাখ ৪৫ হাজার টাকা।

এদিকে দিনশেষে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সাধারণ মূল্যসূচক ৫৬ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ৮৪৭০ পয়েন্টে। দিনভর লেনদেন হওয়া ২৫৩টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ১৪২টির, কমেছে ৭১টির ও দর অপরিবর্তিত রয়েছে ৪০টির। আজ সিএসই‘তে মোট লেনদেন হয়েছে ২১ কোটি ৯৮ লাখ ৬৮ হাজার টাকা।

শেয়ারবাজারনিউজ/মু


আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.