আজ: মঙ্গলবার, ২২ জুন ২০২১ইং, ৮ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১০ই জিলকদ, ১৪৪২ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

১৪ মার্চ ২০১৫, শনিবার |


kidarkar

প্রবৃদ্ধি তলানিতে : ডিভিডেন্ড নিয়ে শঙ্কা

??????????????শেয়ারবাজার রিপোর্ট: নন-লাইফ বীমা খাতের প্রবৃদ্ধি সর্বনিম্ন পর্যায়ে ঠেকেছে। ২০১৪ অর্থবছরে এ খাতের প্রবৃদ্ধি হয়েছে মাত্র ৬ শতাংশ। যা গত ১৫ বছরের মধ্যে সর্বনিম্ন বলে বাংলাদেশ ইন্স্যুরেন্স এসোসিয়েশন (বিআইএ) সূত্রে জানা গেছে।
এদিকে, নন-লাইফ বীমা খাতের প্রবৃদ্ধি অস্বাভাবিকহারে কমে যাওয়ায় শেয়ারবাজারে এর নেতিবাচক প্রভাব পড়বে বলে মনে করছেন বাজার সংশ্লিষ্টরা। কারণ সংশ্লিষ্টদের সতে, আলোচ্য অর্থবছরে এ খাতের কোম্পানিগুলোর প্রবৃদ্ধি না থাকায় শেয়ারহোল্ডাররা ভাল ডিভিডেন্ড পাবে না।
প্রাপ্ত তথ্যমতে, ২০১৪ অর্থবছরে নন-লাইফ বীমা ব্যবসায় নিবন্ধন প্রাপ্ত ৪৫টি কোম্পানি সম্মিলিতভাবে ২ হাজার ২৭১ কোটি টাকা প্রিমিয়াম আয় করেছে। এর মধ্যে শেয়ারবাজারে ৩৪টি কোম্পানি তালিকাভুক্ত রয়েছে। অর্থাৎ এর আগের বছরের তুলনায় প্রবৃদ্ধি হয়েছে মাত্র ৬ শতাংশ। গত ২০০২ সালের পর এটাই নন-লাইফ বীমা খাতের সর্বনিম্ন প্রবৃদ্ধি। ২০১৩ সালে রাজনৈতিক অস্থিরতা সত্ত্বেও এ খাতে প্রবৃদ্ধির হার ছিল ১১ শতাংশ। ২০১২ সালে প্রবৃদ্ধি হয়েছিল ১০ শতাংশ, ২০১১ সালে ১৫ শতাংশ এবং গত পাঁচ বছরে সবচেয়ে বেশি প্রবৃদ্ধি হয়েছিল ২০১০ সালে। এ সময় প্রবৃদ্ধি হয়েছিল ১৮ শতাংশ।
এদিকে, ২০১৪ অর্থবছরে নন-লাইফ খাতের মোট প্রিমিয়াম আয়ের ৩৬ শতাংশ অর্জন করেছে চারটি বীমা কোম্পানি। এগুলো হলো গ্রীণডেল্টা ইন্স্যুরেন্স, পাইওনিয়ার ইন্স্যুরেন্স, রিলায়্যান্স ইন্স্যুরেন্স এবং প্রগতি ইন্স্যুরেন্স। মোট প্রিমিয়াম আয়ের বাকি ৬৪ শতাংশ এসেছে ৪১টি নন-লাইফ বীমা কোম্পানির কাছ থেকে।
প্রসঙ্গত, সম্প্রতি শেয়ারহোল্ডারদের প্রতি গ্রীণডেল্টা ইন্স্যুরেন্স ২৫ শতাংশ (১৫ শতাংশ নগদ ও ১০ শতাংশ স্টক), রিলায়্যান্স ইন্স্যুরেন্স ৩০ শতাংশ (১৫ শতাংশ নগদ ও ১৫ শতাংশ স্টক) এবং প্রাইম ইন্স্যুরেন্স ১৫ শতাংশ (১০ শতাংশ ক্যাশ ও ৫ শতাংশ স্টক) ডিভিডেন্ড দিয়েছে।
এদিকে, ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ সূত্রে জানা যায়, তালিকাভুক্ত নন-লাইফ ৩৪ বীমা কোম্পানির মধ্যে আয় বেড়েছে মাত্র ৭টির। এ কোম্পানিগুলো হলো গ্রীণডেল্টা ইন্স্যুরেন্স, রিলায়্যান্স ইন্স্যুরেন্স, পূরবী জেনারেল ইন্স্যুরেন্স, সেন্ট্রাল ইন্স্যুরেন্স, ফিনিক্স ইন্স্যুরেন্স, পাইওনিয়ার ইন্স্যুরেন্স এবং স্ট্যান্ডার্ড ইন্স্যুরেন্স। বাকি ২৭টি কোম্পানির আয় ২০১৩ অর্থবছরের তুলনায় কমেছে।
এ বিষয়ে বাংলাদেশে ইন্স্যুরেন্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি শেখ কবির হোসেন শেয়ারবাজার নিউজ ডট কমকে বলেন, রাজনৈতিক অস্থিরতার কারণে আমদানি-রপ্তানি কমে যাওয়ায় এর নেতিবাচক প্রভাব সাধারণ বীমায় পড়ছে। কারণ নন-লাইফ বীমা ব্যবসা দেশের আমদানি-রপ্তানির ওপর অনেকাংশে নির্ভর করে। তাছাড়া পিছিয়ে থাকা কোম্পানিগুলোর অদক্ষতার কারণে তারা এ খাতে ভাল ব্যবসা করতে পারছে না।

শেয়ারবাজার/তু/সা

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.