আজ: মঙ্গলবার, ০৪ অক্টোবর ২০২২ইং, ১৯শে আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৬ই রবিউল আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

১৫ অক্টোবর ২০১৬, শনিবার |


kidarkar

যা যা থাকছে আওয়ামী লীগের ঘোষনাপত্রে


awamileagueশেয়ারবাজার ডেস্ক: আগামী ২২ ও ২৩ অক্টোবর অনুষ্ঠেয় আওয়ামী লীগের ২০তম সম্মেলনকে ঘিরে চলছে ঘোষণাপত্র তৈরির কাজ।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, আওয়ামী লীগের আগামী ঘোষণাপত্র হবে খুবই চমৎকার। ঘোষণাপত্রে সরকারের উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের হাইলাইটস থাকবে। থাকবে আগামী দিনের পরিকল্পনাও।

এ বিষয়ে দলের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও ঘোষণাপত্র উপ-কমিটির আহ্বায়ক শেখ ফজলুল করিম সেলিম বলেছেন, বিশ্বের কারও সামনে মাথানত না করে নিজের পায়ে দাঁড়িয়ে দেশকে এগিয়ে নেয়ার সুস্পষ্ট ঘোষণা থাকবে দলের ঘোষণাপত্রে। পরবর্তী জাতীয় নির্বাচনসহ রূপকল্প ২০৪১ সালকে সামনে রেখে ঘোষণাপত্র চূড়ান্ত করবে আওয়ামী লীগ।

এ বিষয়ে দলের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ বলেছেন, ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত করার কর্ম-পরিকল্পনা থাকবে সম্মেলনের ঘোষণাপত্রে।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত হওয়ার জন্য সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে আইসিটি খাত বা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি। তাই ঘোষণাপত্রে আইসিটি খাত সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব পাবে। আইসিটি খাতের সঙ্গে যু্ক্ত প্রায় ৭০ শতাংশ তরুণকেও গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে ঘোষণাপত্রে। কারণ উন্নত বাংলাদেশ গড়তে হলে তরুণদের কর্মসংস্থান সৃষ্টি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। দেশে কর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যে বর্তমান সরকারের হাতে নেয়া ১০০টি অর্থনৈতিক অঞ্চলের কর্মপরিকল্পনা বিস্তারিত থাকবে।

সূত্র জানায়, ঘোষণাপত্রের প্রথমভাগে থাকবে আওয়ামী লীগ সরকারের ২০০৮ সাল থেকে বর্তমান সময় পর্যন্ত যেসব উন্নয়ন কাজ করা হয়েছে তার চিত্র ও সরকারের চলমান মেগা প্রকল্পগুলোর তুলনামূলক চিত্র। আগামীতে সরকার কী ধরনের উন্নয়ন কাজ হাতে নেবে তার তালিকাসহ বর্তমান আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন সরকারের শুধু উন্নয়ন নয়, কল্যাণমূলক কাজও উঠে আসবে এই ঘোষণাপত্রে।

ঘোষণাপত্রে গুরুত্বসহকারে তুলে ধরা হবে সরকারের সামাজিক নিরাপত্তা খাতের সফলতা। তার মধ্যে থাকবে খাদ্যের নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণ, বিধবা ভাতা, বয়স্ক ভাতা ও সবার জন্য শিক্ষা নিশ্চিত করার বিষয়টি।

কৃষি খাতের আগামী দিনের পরিকল্পনা থাকবে ঘোষণাপত্রে। কীভাবে কৃষির বহুমুখীকরণ ও সহজীকরণ করা যায়। উন্নত প্রযুক্তির মাধ্যমে কৃষি উৎপাদনের খরচ হ্রাস করা। কৃষিপণ্যের বিপণন ব্যবস্থার উন্নয়ন করা।

সপ্তম পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনার বিষয়গুলোকে গুরুত্বসহকারে স্থান দেয়া হবে সংক্ষিপ্ত এই ঘোষণাপত্রে। ২০০৮ সালের ঘোষণাপত্রে মিলেনিয়াম ডেভেলপমেন্ট গোল বা সহস্রাব্দ উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রার বিষয়গুলো স্থান পেয়েছিল। তার অনেকাংশই অর্জিত হয়েছে ধরে নিয়ে ২০তম জাতীয় সম্মেলনের ঘোষণাপত্রে সাসটেইনেবল ডেভেলপমেন্ট গোল (টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা) বিষয়ে গুরুত্ব দেয়া হবে।

সম্মেলন উপলক্ষে গঠিত ঘোষণাপত্র উপ-পরিষদ সূত্রে জানা গেছে, নিম্ন-মধ্যম আয়ের দেশ থেকে উচ্চ আয়ের দেশ গঠনের পাশাপাশি কল্যাণমূলক কর্মকাণ্ডের বিষয়গুলোকে জোর দেয়া হবে। তবে ঘোষণাপত্রের বিষয়গুলো প্রস্তাবিত আকারে আগামী ১২ অক্টোবরের মধ্যে জমা দেবেন উপ-পরিষদ সদস্যরা। পরে বিষয়গুলো নিয়ে ঘোষণাপত্রের একটি খসড়া তৈরি করে দলীয় প্রধানের সম্মতি নিয়ে সম্মেলনে উপস্থাপনের জন্য চূড়ান্ত করা হবে।

শেয়ারবাজারনিউজ/মা


আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.