কামালের পদত্যাগ নিয়ে আইসিসির বিভিন্ন ব্যাখ্যা প্রদান

david recarsonশেয়ারবাজার ডেস্ক: মেলবোর্নে ১৯ মার্চ বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যকার অনুষ্ঠিত কোয়ার্টার ফাইনাল ম্যাচটিতে অনেক অনিয়ম হয়েছে। বুধবার দুপুরে দেশে ফিরে শাহাজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে এসব অনিয়মের কথা তুলে ধরেন আইসিসির সদ্য পদত্যাগকারী সভাপতি আ হ ম মুস্তফা কামাল। ভারতের  বিপক্ষে বাংলাদশের ম্যাচে স্পাইডার ক্যামেরা কেন ব্যবহার করা হয়নি সে প্রশ্ন তোলেন কামাল। এমনকি ‘নো’ বল কি না নিশ্চিত হতে তৃতীয় আম্পায়াররে সহায়তা নেয়া হয়নি কেন মাঠের দুই আম্পায়ার, সে প্রশ্নও তোলেন তিনি। মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের আউটের ক্ষেত্রে ফিল্ডারে পা সীমানা দড়ি র্স্পশ করেছে কী না, সেটা নিশ্চিত হতে ক্যামেরা ভিডিও চিত্র জুম করে দেখানো হয়নি দাবি করে মুস্তফা কামাল বলেন, মাঠে অবস্থিত জায়ান্ট স্ক্রিনে শুরু থেকেই ভারতরে সর্মথনে স্লোগান লেখা দেখানো হয়েছে।

অন্যায়ের প্রতিবাদ জানাতে গিয়ে আইসিসির সভাপতির পদ থেকে পদত্যাগ করছেন আ হ ম মুস্তফা কামাল। আইসিসির সদ্য সাবেক প্রেসিডেন্ট মুস্তফা কামালের প্রতি তারপরও যেন আক্রোশ কমছে না ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থার। এবার তার পদত্যাগপত্রকে ভুলভাবে ব্যাখ্যা করলো আইসিসি।

আইসিসি তাদের নিজস্ব ওয়েবসাইটে জানায় মুস্তফা কামাল নাকি আইসিসির প্রধান নির্বাহী ডেভিড রিচার্ডসনের কাছে লেখা পদত্যাগপত্রে আইসিসির কর্মকর্তাদের কাছে ক্ষমা-প্রার্থনা করেন। কিন্তু বাস্তব ঘটনা ভিন্ন। জনাব কামাল পদত্যাগপত্রে উল্লেখ করেন, ‘দীর্ঘ ৬ বছর ধরে আমি আইসিসির বিভিন্ন পদের সঙ্গে জড়িত ছিলাম। এই সময়ের মধ্যে যদি কাউকে আঘাত করে থাকি তবে তাদের কাছে আমি দুঃখ-প্রকাশ করছি।’

মুস্তফা কামালের অফিস থেকে বলা হয়, জনাব কামাল সাধারণ সৌজন্যতার খ্যাতিরে তার সাবেক সহকর্মীদের কাছে দুঃখ-প্রকাশ করেন। আর সেই ভদ্রতার বিষয়টিকে ভুলভাবে ব্যাখ্যা করেছে আইসিসি। তারা তাদের নিজস্ব ওয়েবসাইটে উল্লেখ করেছে, ‘আইসিসির কাছে ক্ষমা চেয়ে পদত্যাগ করেছেন মুস্তফা কামাল। কারও বিরুদ্ধে তার কোন অভিযোগ নেই।’

এরপর মুস্তফা কামালের পক্ষ থেকে আইসিসিতে অনেক যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও কেউ ফোন ধরেনি। ই-মেইল করলে তারা বলেছে, ‘আমাদের কিছু করার নেই। যা দিয়েছি সেটাই থাকবে।’

শেয়ারবাজার/রা

আপনার মন্তব্য

Top