আজ: শুক্রবার, ১২ অগাস্ট ২০২২ইং, ২৮শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১২ই মহর্‌রম, ১৪৪৪ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

০৬ জানুয়ারী ২০১৭, শুক্রবার |



kidarkar

ফিন্যান্সিয়াল লিটারেসির আগাগোড়া

financial-litaracyশেয়ারবাজার রিপোর্ট: আগামী ৮ জানুয়ারি  রোববার বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) নবনির্মিত ভবন ও দেশব্যাপী ফিন্যান্সিয়াল লিটারেসি কার্যক্রম এর উদ্বোধন হবে। দেশব্যাপী বিনিয়োগকারীদের বিনিয়োগে শিক্ষিত করে তুলতে ন্যাশন ওয়াইড ফাইন্যান্সিয়াল লিটারেসি প্রোগ্রামের যাত্রা শুরু করছে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) ।

সারা জীবনব্যাপী কার্যকরভাবে আর্থিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য একজন ব্যক্তির আর্থিক সম্পদ পরিচালনা করার জ্ঞান ও দক্ষতা ব্যবহার করার ক্ষমতা অথবা একটি আর্থিকভাবে কল্যাণময় জীবনকাল অর্জনের উদ্দেশ্যে কার্যকরভাবে আর্থিক সম্পদ ব্যবস্থাপনার দক্ষতা ও জ্ঞান ব্যবহার করার ক্ষমতাকেই মূলত ফিন্যান্সিয়াল লিটারেসি বা আর্থিক স্বাক্ষরতা বলে।

এদিকে দেশের পুঁজিবাজারে বর্তমানে প্রায় ৩০ লাখ বিনিয়োকারী রয়েছেন, যার অধিকাংশই ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারী। এসব ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীদের প্রায় সকলেরই বিনিয়োগ শিক্ষা না থাকায় অন্ধকারে ঢিল ছোড়ার মত বিনিয়োগ করে থাকেন। আর এই সমস্যা থেকে উত্তোরণে বিনিয়োকারীদের শিক্ষিত করতে ফাইন্যান্সিয়াল লিটারেসি নামে একটি কার্যক্রম হাতে নিয়েছে এ খাতের নিয়ন্ত্রক সংস্থা।

পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এন্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) কার্যক্রমটি এগিয়ে নিতে ইতিমধ্যে স্টিয়ারিং কমিটি ও টেকনিক্যাল কমিটি নামক দুইটি কমিটি গঠন করেছে।

বিএসইসি বলছে, এই ধরণের একটি বড় উদ্যোগের মূল বিষয় হলো কার্যক্রমটির ছক তৈরী করা। যার মধ্যে অন্তর্ভুক্ত রয়েছে কর্মসূচী সম্পন্ন করার সম্ভাব্য সময়, টার্গেট গ্রুপ, সংশ্লিস্ট সকলের অংশগ্রহণ, কার্যক্রমের সমন্বয়, লক্ষ্য. উদ্দেশ্য, নীতি, কৌশল, পদ্ধতি, উপকরণ, বাজেট, তহবিল, পর্যবেক্ষন, মূল্যায়ন ইত্যাদি। কমিশন ইতোমধ্যে কার্যক্রমটি বাস্তবায়নের জন্য প্রাতিষ্ঠানিক কাঠামো গঠন করাসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে সম্পৃত্ত করে এ লক্ষ্যে বিভিন্ন কমিটি গঠন করেছে।

সেই প্রেক্ষিতে স্টিয়ারিং কমিটি এবং টেকনিক্যাল কমিটি গঠন করা হয়েছে। উপরন্তু, টেকনিক্যাল কমিটির অধীনে আরও ১০টি সাব-কমিটিও গঠন করা হয়েছে। এছাড়া, এই কার্যক্রমকে সঠিকভাবে সম্পাদন করার লক্ষ্যে টেকন্যিকাল কমিটির তত্ত্বাবধানে বেশকিছু ওয়ার্কিং গ্রুপ গঠন করা হয়েছে।

আর এর জন্য যে কর্ম পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে তার মধ্যে রয়েছে- কমিটি গঠন, রিসোর্স পারসন নির্বাচন, বিভাগ প্রতিষ্ঠা, সংশ্লিস্টদের প্রশিক্ষণ ও জ্ঞানের পরিধি বৃদ্ধি করা, বিধি প্রণয়ন, কার্যক্রমের বিস্তারিত বিষয় নজরে আনা, উপকরণ প্রস্তুতকরণ, প্রশিক্ষকদের প্রশিক্ষণ, সরকারের সাথে প্রয়োজনীয় যোগাযোগ, কার্যক্রম চালু করা, সেমিনার ও কর্মশালা, আঞ্চলিক সমন্বয়, প্রশিক্ষণ একাডেমী, পর্যবেক্ষণ ও তত্ত্বাবধান করা, বাজেট ও অর্থায়ন।

দেশব্যাপী বিনিয়োগ শিক্ষা প্রোগ্রামে সহযোগী প্রতিষ্ঠান হিসেবে যারা কাজ করছে- ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই), চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ (সিএসই), সেন্ট্রাল ডিপোজিটরি অব বাংলাদেশ (সিডিবিএল), ইন্সটিটিউট অব চার্টাটর্ড এ্যাকাউটেন্ট অব বাংলাদেশ, বাংলাদেশ ইন্সটিটিউট অব ক্যাপিটাল মার্কেট (বিআইসিএম), বাংলাদেশ মার্চেন্ট ব্যাংকার্স এ্যাসোসিয়েশন (বিএমবিএ), আইসিএসবি, আইসিএমএবি, বিআইবিএম, বিএপিএলসি ইত্যাদি।

উল্লেখ্য, এর গঠিত ১০ সদস্যের স্টিয়ারিং কমিটি বিনিয়োগ শিক্ষা কার্যক্রম এর সার্বিক নীতি নির্ধারণ, বাস্তবায়ন ও অগ্রগতি তত্ত্বাবধান এবং এই কার্যক্রম দেশব্যাপী বিস্তারে নেতৃত্ব প্রদান করবে। এর জন্য বিএসইসি’র চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে একটি স্টিয়ারিং কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির সদস্যরা হলেন-

১. চেয়ারম্যান, বিএসইসি, আহবায়ক; ২। কমিশনার-১, বিএসইসি, সদস্য; ৩। কমিশনার-২, বিএসইসি, সদস্য; ৪। কমিশনার-৩, বিএসইসি, সদস্য; ৫। কমিশনার-৪, বিএসইসি, সদস্য; ৬। চেয়ারম্যান, ডিএসই, সদস্য; ৭। চেয়ারম্যান, সিএসই, সদস্য; ৮। চেয়ারম্যান, সিডিবিএল, সদস্য; ৯। প্রেসিডেন্ট, বিএপিএলসি, সদস্য; ১০। মোঃ সাইফুর রহমান, নির্বাহী পরিচালক, বিএসইসি, সদস্য সচিব।

অন্যদিকে, টেকনিক্যাল কমিটি স্টিয়ারিং কমিটির তত্ত্বাবধানে কাজ করার জন্য একটি বিশেষায়িত কমিটি হিসাবে টেকনিক্যাল কমিটি গঠন করা হয়েছে। সারাদেশে বিনিয়োগ শিক্ষা কর্মসূচী বাস্তবায়নের লক্ষ্যে সুনির্দিষ্ট কর্মসূচী, প্রকল্প, কার্যপদ্ধতি, গবেষণা, টার্গেট গ্রুপ নির্ণয়, কৌশল ও উপকরণ প্রণয়ন, ওয়ার্কিং গ্রুপ গঠন এবং এ দসংক্রান্ত যাবতীয় কার্যক্রম পরিচালনার জন্য জনবল নিয়োগসহ তাদেরকে প্রশিক্ষিত করার জন্য টেকনিক্যাল কমিটি গঠন করা হয়েছে। ১৬ সদস্যের এই টেকনিক্যাল কমিটিতে রয়েছে:

১। মোঃ মাহবুবুল আলম, নির্বাহী পরিচালক, বিএসইসি, আহবায়ক; ২। রিপন কুমার দেবনাথ, পরিচালক, বিএসইসি, সদস্য; ৩। মোঃ আবুল কালাম, পরিচালক, বিএসইসি, সদস্য; ৪। মিসেস ফারহানা ফারুকী, পরিচালক, বিএসইসি, সদস্য; ৫। ব্যবস্থাপনা পরিচালক, ডিএসই, সদস্য; ৬। ব্যবস্থাপনা পরিচালক, সিএসই, সদস্য; ৭। ব্যবস্থাপনা পরিচালক, সিডিবিএল, সদস্য; ৮। প্রেসিডেন্ট/সেক্রেটারী, ডিএসই ব্রোকার ডিলার এসোসিয়েশন, সদস্য; ৯। প্রেসিডেন্ট/সেক্রেটারী, আইসিএবি, সদস্য;

১০। প্রেসিডেন্ট/সেক্রেটারী, আইসিএমএবি, সদস্য; ১১। প্রেসিডেন্ট/সেক্রেটারী, আইসিএসবি, সদস্য; ১২। প্রেসিডেন্ট/সেক্রেটারী, সিএফএ সোসাইটি, বাংলাদেশ, সদস্য; ১৩। প্রেসিডেন্ট, বিএমবিএ, সদস্য; ১৪। প্রেসিডেন্ট, এ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট কোম্পানীজ এন্ড মিচ্যুয়াল ফান্ড এসোসিয়েশন, সদস্য; ১৫। এক্সিউটিভ প্রেসিডেন্ট, বাংলাদেশ ইন্সটিটিউট অব ক্যাপিটাল মার্কেট; ১৬। মোঃ ওহিদুল ইসলাম, উপ-পরিচালক, বিএসইসি, সদস্য-সচিব।

শেয়ারবাজারনিউজ/রু

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.