আজ: শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ইং, ২রা আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৮ই সফর, ১৪৪৩ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

১২ মার্চ ২০১৭, রবিবার |



kidarkar

বেতন বাড়ার বিষয়টি ‘টোটালি ফলস’: অর্থমন্ত্রী

muhith_SharebazarNewsশেয়ারবাজার ডেস্ক: সরকারি চাকরিজীবীদের আবার বেতন বাড়ছে বলে বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদকে ‘টোটালি ফলস’ বলে মন্তব্য করেছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। আজ রবিবার সচিবালয়ে নিজ দফতরে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ মন্তব্য করেন।

গত কয়েকদিন ধরে বিভিন্ন সংবাদপত্র খবর প্রকাশ হয়েছে যে সরকারি চাকরিজীবীদের বেতন-ভাতা আরেক ধাপ বাড়ানোর প্রক্রিয়া শুরু করা হয়েছে। বার্ষিক বেতন বৃদ্ধি ৫ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ৮ শতাংশ করা হচ্ছে। এ বিষয়ে আজ রবিবার সচিবালয়ে নিজ দফতরে বৈঠক ডাকেন অর্থমন্ত্রী।

অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘বিভিন্ন গণমাধ্যমে এসেছে আরেক দফা বেতন বাড়ছে, ইট ইজ টোটালি ফলস (পুরোপুরি মিথ্যা)। মোটেই আরেক দফা ইনক্রিমেন্টের কোন ব্যবস্থা আমরা করছি না এই মুহূর্তে। ’

মুহিত বলেন, ‘নো ইস্যু অব অ্যানাদার ইনক্রিমেন্ট, নো। এটা হচ্ছে ভবিষ্যৎ কিভাবে হবে। যেমন ২০১৭ সালে অনেক কিছু দাম বাড়বে। পণ্য মূল্যের ক্ষেত্রে ২০১৬ সালের সঙ্গে ২০১৭ সালের ভিন্নতা আছে। সো তাতে কিছু দেওয়া হতে পারে। ’

‘ফের বেতন বাড়নো হচ্ছে’- পত্রিকার এ হেডলাইনটা অসুবিধাজনক হয়েছে জানিয়ে মৃদু হেসে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘বাকিটা ঠিক আছে। হ্যাঁ আমরা বসেছি, ভবিষ্যতে কি হবে তা নির্ধারণ করার জন্য। ’

এর আগে স্থায়ী বেতন কমিশন গঠনের পরিবর্তে মূল্যস্ফীতি বিবেচনায় নিয়ে সরকারি চাকরিজীবীদের বেতন-ভাতা নির্ধারণের উপায় খুঁজতে একটি বৈঠক করেন অর্থমন্ত্রী। বৈঠকে সরকারি চাকরিজীবীদের বেতন-ভাতা নির্ধারণের উপায় খুঁজতে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিবের (সমন্বয় ও সংস্কার) নেতৃত্বে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটিকে তিন মাসের মধ্যে রিপোর্ট দিতে বলা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

অর্থমন্ত্রীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এই বৈঠকে অর্থমন্ত্রী ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ, জনপ্রশাসন মন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম, জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ইসমাত আরা সাদেক, অর্থ প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান, বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির, অর্থ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব হেদায়েতুল্লাহ আল মামুনসহ কয়েকজন সচিব।

শেয়ারবাজারনিউজ/মু

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.