মূলধন ঘাটতি কাটিয়ে উঠেছে রাষ্ট্রায়ত্ত্ব চার ব্যাংক

BANK1429448892শেয়ারবাজার রিপোর্ট: মূলধন ঘাটতি কাটিয়ে উঠেছে রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন সোনালী, জনতা, অগ্রণী ও রূপালী ব্যাংক। তবে বেসিক ব্যাংক, বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক ও রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংকের মূলধন ঘাটতি রয়েছে বলে অর্থমন্ত্রণালয়ের ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ সূত্রে জানা গেছে।

সূত্র জানায়, সম্প্রতি রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন বাণিজ্যিক/বিশেষায়িত ব্যাংকগুলোর কার্যক্রম সংক্রান্ত এক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের অতিরিক্ত সচিব গোকুল চন্দ্র দাসের সভাপতিত্বে রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রতিনিধিরা বৈঠকে তাদের অবস্থান তুলে ধরেন। এসময় নবগঠিত পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকও তাদের মূলধন সংকটের কথা উল্লেখ করে।

সূত্র জানায়, বৈঠকে গ্রামীণ ব্যাংকের একটি চিঠি উল্লেখ করে গ্রামীণ ব্যাংকের মূলধনের প্রয়োজনীয়তার কথা তুলে ধরা হয়। এতে বলা হয়েছে, ২০১৪ সালের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত গ্রামীণ ব্যাংকের মোট পরিশোধিত মূলধনের পরিমান দাঁড়িয়েছে ৭৯ কোটি ৬২ লাখ টাকা। এরমধ্যে সদস্যরা পরিশোধ করেছেন ৬০ কোটি ১৫ লাখ টাকা।

গ্রামীণ ব্যাংক আইন ২০১৩ অনুযায়ী সরকারের অংশে আসে ২০ কোটি ৫ লাখ টাকা (পরিশোধিত মূলধনের ২৫ শতাংশ)। ইতোমধ্যে ১৯ কোটি ৪৭ লাখ টাকা পরিশোধ করা হয়েছে। ২০১৪ সালের ডিসেম্বরের অনুপাত ঠিক রাখার জন্য বাকি ৫৮ লাখ টাকাও ইতোমধ্যে পরিশোধ করা হয়েছে বলে সূত্র জানিয়েছে।

এদিকে পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের কার্যক্রম শুরু করার জন্য ব্যাংকের মূলধন সরবরাহের ওপর গুরুত্ব আরোপ করা হয় বৈঠকে। ব্যাংকের আইন অনুযায়ী মূলধন বাবদ সরকারকে ১২৫ কোটি টাকা দিতে হবে। চলতি ২০১৪-২০১৫ অর্থ বছরের বাজেটে ব্যাংকের মূলধন পুনর্গঠন বিনিয়োগখাতে ৫ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ রয়েছে।

এর আগে জরুরি বিবেচনায় সোনালী  ব্যাংকের অনকূলে দুই দফায় ১ হাজার ৫০০ কোটি টাকা ছাড় করা হয়েছে। ফলে এখাতে ৩ হাজার ৫০০ কোটি টাকা অবশিষ্ট ছিল বলে বৈঠকে অবহিত করা হয়। ওই টাকা থেকে বেসিক, বিকেবি ও রাকাবের মূলধন ঘাটতি পূরনে বরাদ্দ দেওয়ার কথা বলা হয়।
সূত্র জানায়, ২০১৪ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত  বেসিক ব্যাংকের মূলধন ঘাটতি ছিল ৩ হাজার কোটি টাকা, বিকেবি’র ৬ হাজার ৬৪৩ কোটি ৮০ লাখ টাকা এবং রাকাবের ৮৮৪ কোটি ৫৬ লাখ টাকা। বাজেট বরাদ্দের অবশিষ্ট ৩ হাজার ৫০০ কোটি টাকা থেকে বেসিক ব্যাংককে ২ হাজার কোটি টাকা, বিকেবিকে ১ হাজার কোটি টাকা এবং রাকাবকে ৩৭৪ কোটি ৪২ লাখ টাকা মূলধন ঘাটতি পূরনের প্রস্তাব অর্থ বিভাগের কাছে পাঠানো হয়।

বৈঠকে জানানো হয়, আনসার-ভিডিপি উন্নয়ন ব্যাংক থেকে কৃষি ভিত্তিক শিল্প ঋণ সহায়তা, নারী উদ্যোক্তা তহবিলে বিশেষ অনুদান এবং দূর্যোগে ক্ষতিগ্রস্থ ক্ষুদ্র কৃষক ও পোল্ট্রি খামারীদেও সহায়তা তহবিল বাবদ ১২৫ কোটি টাকা বরাদ্দের জন্য তিনটি প্রস্তাব পাওয়া গেছে বলে উল্লেখ করা হয়। আনসার-ভিডিপি উন্নয়ন ব্যাংক ও কর্মসংস্থান ব্যাংক বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে পুনঃ অর্থায়ন স্কীমের আওতায় অর্থ সহায়তা পেয়েছে।

 

শেয়ারবাজারনিউজ/তু

আপনার মন্তব্য

Top