আজ: শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১ইং, ৩১শে আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৮ই রবিউল আউয়াল, ১৪৪৩ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

২৮ অগাস্ট ২০১৭, সোমবার |



kidarkar

লিডের স্বপ্ন টিকে রইলো বাংলাদেশের

shakib-20170828121008শেয়ারবাজার রিপোর্ট: টেস্ট সিরিজের প্রথম টেস্টের শুরুটা টাইগারদের ভাল না হলে শেষটা ভাল চমক দেখালেন মুশফিক-তামিমবাহিনী।  ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতার দিনে শেষ বেলায় অস্ট্রেলিয়ার ৩ উইকেট নিয়ে বড় লিডের লক্ষ্যে দ্বিতীয় দিন শুরু করে বাংলাদেশ। আর দিনের শুরুতেই সবচেয়ে বড় বাধা স্মিথকে বোল্ড করে সাজঘরে ফেরান মিরাজ। স্মিথকে ফিরিয়ে লিডের স্বপ্ন দেখা বাংলাদেশের সামনে প্রতিরোধ গড়েন রেনশ-হ্যান্ডসকম্ব।  দুইজনে মিলে গড়েন ৬৯ রানের জুটি। অবশেষে সেই জুটি ভাঙেন তাইজুল। ৩৩ রান করা হ্যান্ডসকম্বকে এলবিডব্লিউয়ের ফাঁদে ফেলে সাজঘরে ফেরান বাঁহাতি এই স্পিনার।

হ্যান্ডসকম্বের বিদায়ের পর খুব বেশি সময় উইকেটে থাকতে পারলেন না রেনশ। সাকিবের বলে সৌম্যকে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফিরে গেছেন এক প্রান্ত আগলে রেখে খেলতে থাকা অজি ওপেনার রেনশ। আর তার বিদায়ের লিডের স্বপ্ন দেখছে বাংলাদেশ।  এরপর অজিরা ভরসা করেন একমাত্র মাক্সওয়েলের উপর। কিন্তু মাক্সওয়েলও বেশিক্ষণ ঠিকে থাকতে পারেন নি। সাকিবের বলে আগে এসে খেলতে  গিয়ে মুশফিকের হাতে স্ট্যাপিংয়ের শিকার হন মাক্সওয়েল। আর তাই লিডের স্বপ্ন টিকে রইলো বাংলাদেশের।

অস্ট্রেলিয়াকে অলআউট করতে বাংলাদেশের চাই আর মাত্র দুই উইকেট।  প্রথম ইনিংসের এখনো ১০৭ রান পিছিয়েছে রয়েছে অজিরা। এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত অস্ট্রেলিয়ার সংগ্রহ ১৫৩ রানে ৮ আউট।

এর আগে, ম্যাট রেনশ আর পিটার হ্যান্ডসকম্বের জুটিটা চোখ রাঙাচ্ছিল। ৬৯ রানের জুটি গড়ে বিপর্যয়টা কাটিয়ে ওঠার চেষ্টা করছিলেন তাঁরা। কিন্তু হ্যান্ডসকম্বকে ফিরিয়ে বাংলাদেশ-শিবিরে স্বস্তি ফেরান তাইজুল। ব্যক্তিগত ৩৩ রানে তাইজুলের বলে এলবিডব্লুর ফাঁদে পড়েন হ্যান্ডসকম্ব। এর কিছুক্ষণ পরই সাকিব আল হাসানের বলে স্লিপে সৌম্য সরকারের ক্যাচ হন অস্ট্রেলিয়ার পক্ষে এখনো পর্যন্ত সর্বোচ্চ ৪৫ রান করা রেনশ।

এরপর মধ্যাহ্ন বিরতির পরপরই মিরাজের আঘাত। এলবির ফাঁদে ম্যাথু ওয়েড। ৫ রানে ফিরেছেন তিনি। বিচ্ছিন্ন অস্ট্রেলিয়ার শেষ স্বীকৃত ব্যাটিং-জুটি। ভরসা হয়ে ছিলেন কেবল গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। অ্যাশটন অ্যাগার অবশ্য ব্যাটিংটা খারাপ করেন না। ১১ নম্বর ব্যাটসম্যান হিসেবে ৯৮ রান করেছিলেন অভিষেকে। কিন্তু সেই ম্যাক্সওয়েল চমক দেখাতে পারেননি।  সাকিবের বলে আগে এসে খেলতে  গিয়ে মুশফিকের হাতে স্ট্যাপিংয়ের শিকার হন মাক্সওয়েল।

১৫ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে প্রথম দিন শেষ কাঁপতে থাকা অস্ট্রেলিয়ার বিপদটা দ্বিতীয় দিন সকালে আরও বাড়ে অধিনায়ক স্মিথের ফেরায়। মেহেদী হাসান মিরাজের বলে একটু এগিয়ে এসে খেলতে গিয়ে ব্যাট-প্যাডের ফাঁক দিয়ে বোল্ড হয়ে যান তিনি। ৮ রানে স্মিথ ফেরার পর অস্ট্রেলিয়ার পক্ষে শক্ত হাতে হাল ধরেন ম্যাট রেনশ আর পিটার হ্যান্ডসকম্ব। রেনশ অবশ্য ফিরতে পারতেন। কিন্তু মিরাজের বলে আম্পায়ার তাঁকে একবার এলবিডব্লু দিলেও রিভিউ নিয়ে বেঁচে যান তিনি।
বাংলাদেশের সফল স্পিনাররাই। মিরাজ নিয়েছেন ৩ উইকেট। পাশাপাশি সাকিব ২টি পেয়েছেন। তাইজুল তুলে নিয়েছেন একটি।

শেয়ারবাজারনিউজ/এম.আর

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.